তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৩১st মার্চ ২০১৫

তথ্যবিবরণী 31/03/2015

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৯৫২

পাবলিক পার্লামেন্ট বিতর্ক প্রতিযোগিতা
বাংলাদেশকে উন্নতদেশে পরিণত করতে ঐকমত্যের পরিবেশ সৃষ্টি করা দরকার
                                                                       -- বাণিজ্যমন্ত্রী
ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    এমন একটি বাংলাদেশ চাই, যে দেশে সরকার ও বিরোধীদল সংসদে আলোচনার মাধ্যমে একটি সমৃদ্ধিশালী দেশগঠনে এগিয়ে আসবে। যে দেশে তরুণ ছাত্রসমাজ দেশ নিয়ে ভাবে সেদেশ উন্নতদেশে পরিণত হবেই। সেকারণেই সর্বাগ্রে একটি ঐকমত্যের পরিবেশ সৃষ্টি করা দরকার।
    আজ তেজগাঁওস্থ এফডিসিতে ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র আয়োজনে পাবলিক পার্লামেন্ট বিতর্কের গ্র্যান্ড ফাইনাল বিতর্ক প্রতিযোগিতায় বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব বলেন। এতে সভাপতিত্ব করেন ডিবেট ফর ডেমোক্রেসি’র চেয়ারম্যান হাসান আহমেদ চৌধুরী কিরণ।
    বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ এখন আর তলাবিহীন ঝুড়ির দেশ নয়। মঙ্গা-সাইক্লোন, ঘূর্ণিঝড়ের দেশ নয়। এসব মোকাবিলায় আমরা যথেষ্ট সক্ষমতা অর্জন করেছি। আন্তর্জাতিক বিভিন্ন অর্থনৈতিক ও সামাজিক সূচকে পৃথিবীর বুকে বাংলাদেশের বিস¥য়কর উত্থান ঘটেছে। সকল সূচকে আমরা পাকিস্তান থেকে এগিয়ে। এমনকি সামাজিক মানদ-ে আমরা ভারতকেও পিছনে ফেলেছি। ইতোমধ্যে বাংলাদেশ মধ্যমআয়ের দেশে প্রবেশ করেছে।  
    তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ খাদ্যঘাটতির দেশ থেকে রপ্তানিমুখী দেশে পরিণত হয়েছে। দেশে রেমিটেন্স বৃদ্ধি পেয়েছে, রিজার্ভের পরিমাণ বেড়ে চলছে, নারীশিক্ষা, মাতৃমৃত্যু প্রতিরোধ, শিশুমৃত্যুর হার কমানোসহ সর্বক্ষেত্রেই বাংলাদেশ কাক্সিক্ষত লক্ষ্যের দিকে এগিয়ে যাচ্ছে।
    ‘সহিংসমুক্ত রাজনীতিই পারে বাংলাদেশকে মধ্যমআয়ের দেশে পরিণত করতে’ শীর্ষক চূড়ান্ত বিতর্ক প্রতিযোগিতায় সরকারি দল বিজিএমইএ ইউনিভার্সিটি অভ্ ফ্যাশন এন্ড টেকনোলজি বিরোধীদল হিসেবে ঢাকা ইন্টারন্যাশনাল ইউনিভার্সিটিকে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হওয়ার গৌরব অর্জন করে। এছাড়াও প্রতিযোগিতায় তৃতীয়স্থান অধিকার করে ইডেন মহিলা কলেজ। চ্যাম্পিয়নদল নগদ একলাখ টাকা, রানারআপদল পঞ্চাশ হাজার টাকা ও তৃতীয়স্থান অধিকারী দলকে পঁচিশ হাজার টাকাসহ ট্রফি, ক্রেস্ট ও সনদপত্র দেয়া হয়।
#

তারিকুল/ফায়জুল/আলম/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৫/২০০০ঘণ্টা  
তথ্যবিবরণী                                                             নম্বর : ৯৫১

নারীর অধিকার নিশ্চিতসহ গৃহহীনদের পুনর্বাসনে আরো আন্তরিক হওয়ার আহ্বান ভূমিমন্ত্রীর

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    ভূমিমন্ত্রী শামসুর রহমান শরীফ দেশের ভূমিহীন ও গৃহহীনদের জন্য গৃহনির্মাণ এবং তাদের পুনর্বাসনের বিষয়ে আন্তরিক হওয়ার আহ্বান জানিয়েছেন। তিনি বলেন, দারিদ্র্যবিমোচনে নারীর অধিকার নিশ্চিত করা এবং পুনর্বাসিত পরিবারের সামাজিক নিরাপত্তাবিধানসহ তাদের শিক্ষা ও আর্থসামাজিক অবস্থার উন্নয়নে প্রশিক্ষণ ও ক্ষুদ্রঋণ প্রদানে সংশ্লিষ্টদের আরো আন্তরিক হতে হবে।
    আজ ভূমি মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে ২০১৪-১৫ অর্থবছরের সংশোধিত বার্ষিক উন্নয়নকর্মসূচি (আরএডিপি)তে অন্তর্ভুক্ত প্রকল্পওয়ারি বাস্তবায়ন অগ্রগতি মার্চ ২০১৫ সভায় সভাপতিত্বকালে ভূমিমন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের উদ্দেশ্যে এসব কথা বলেন।
সভায় জানানো হয় ২৫১টি গুচ্ছগ্রামে ১০ হাজার ৬২০টি ভূমিহীন ও গৃহহীন পরিবারকে পুনর্বাসন করা হয়েছে। জুন ২০১৫ এর মধ্যে ৩০টি পরিবারকে পুনর্বাসনের জন্য ১টি গুচ্ছগ্রাম নির্মাণ, ৪৬টি মাল্টিপারপাস হল নির্মাণ, ১০টি নলকূপ স্থাপন, ৭ হাজার ৬৬০টি উন্নতচুলা, ৩০টি কবুলিয়ত দলিল প্রদান করা হবে। সভায় আরো জানানো হয়, সারাদেশে সরকার ২০৭টি মাল্টিপারপাস হল, ১ হাজার ১২০টি টিউবওয়েল ও ১০ হাজার ৬৫০টি পরিবারের মাঝে ভূমি ও গৃহের কবুলিয়ত দলিল প্রদান করা হয়েছে।
ভূমিব্যবস্থাপনাকে আধুনিকায়নের লক্ষ্যে আধুনিক প্রযুক্তি ব্যবহার করে সিএস, এসএ, আরএস খতিয়ানসমূহ ভূমিমালিকদের সহজে সরবরাহ করার লক্ষ্যে এ পর্যন্ত ৮২ লাখ ৮৮ হাজার খতিয়ানের ডেটা এন্ট্রি করা হয়েছে ও তা সংরক্ষণ করা হয়েছে। এছাড়া ৫৫টি জেলায় ইলেক্ট্রনিক ল্যান্ড রেকর্ডস এন্ড সার্ভে সিস্টেম (ইএলআরএস) বাস্তবায়ন করা হচ্ছে।
ভূমি মন্ত্রণালয়ের ৬টি বিনিয়োগপ্রকল্প ও ৩টি কারিগরি সহায়তাপ্রকল্পসহ মোট ৯টি প্রকল্পের অনুকূলে আরএডিপিতে ৮৬ কোটি ৫৬ লাখ টাকা বরাদ্দ আছে। বরাদ্দকৃত অর্থের বিপরীতে মার্চ ২০১৫ পর্যন্ত ২৯ কোটি ৯৭ লাখ ৫৭ হাজার টাকা ব্যয় হয়েছে যা মোট বরাদ্দের ৩৪ দশমিক ৬৩ ভাগ।
ভূমিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোয়েজ্জদ্দীন আহম্মেদ, ভূমি রেকর্ড ও জরিপ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আঃ জলিল, ভূমি মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব আকরাম হোসেন, যুগ্মসচিব পুণ্যব্রত চৌধুরী, জাতীয় প্রকল্প পরিচালক জিল্লুর রহমান, শামসুল আলম ও সিরাজ উদ্দীন আহম্মেদ উপস্থিত ছিলেন।
#
রেজুয়ান/ফায়জুল/আলম/জসীম/রেজাউল/২০১৫/১৮৪৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৯৫০
আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে
দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস ও প্রস্তুতিগ্রহণ করতে হবে
                   -- দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণমন্ত্রী মোফাজ্জল হোসেন চৌধুরী মায়া বীরবিক্রম বলেছেন, আধুনিক বিজ্ঞান ও প্রযুক্তিগত জ্ঞান কাজে লাগিয়ে দুর্যোগ ঝুঁকিহ্রাস ও প্রস্তুতিগ্রহণ করতে হবে।
    মন্ত্রী আজ ওসমানী স্মৃতি মিলনায়তনে জাতীয় দুর্যোগ প্রস্তুতিদিবস ২০১৫ এর উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন।
    দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শাহ্ কামালের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়সংক্রান্ত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি ধীরেন্দ্র দেবনাথ সম্ভু, জাতীয় দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা কার্যক্রমের (সিডিএমপি) জাতীয় প্রকল্প পরিচালক আব্দুল কাইয়ুম এবং দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক আব্দুল ওয়াজেদ মিয়া বক্তব্য রাখেন।
    এবছর দিবসটির প্রতিপাদ্য “বিজ্ঞানভিত্তিক তথ্য জানি, দুর্যোগের ক্ষতি কমিয়ে আনি”। এ প্রতিপাদ্যের ওপর সিডিএমপি’র জাতীয় প্রকল্প পরিচালক আব্দুল কাইয়ুম মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন।
    মূলপ্রবন্ধে আব্দুল কাইয়ুম বলেন, আধুনিক সময়ে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাকে টেকসই কাঠামোয় আনতে বিজ্ঞানভিত্তিক তথ্য, উপাত্ত ও যথাযথ প্রযুক্তি ব্যবহার নিশ্চিত করতে হবে। এক্ষেত্রে তথ্য, উপাত্ত ও প্রযুক্তিকে দুর্যোগকেন্দ্র পর্যায়ে যথাযথভাবে এবং দ্রুত সময়ের মধ্যে প্রয়োগের ওপর তিনি গুরুত্বারোপ করেন। পরিবর্তীত জলবায়ুর প্রেক্ষাপটে প্রাকৃতিক দুর্যোগ গবেষণার ওপর জোর দিতে হবে।
    তিনি বলেন, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনাকে প্রাতিষ্ঠানিক ও বিজ্ঞানভিত্তিক রূপ দিতে সরকার তৃতীয় শ্রেণি থেকে মাস্টার্স ডিগ্রি সিলেবাসে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা শিক্ষা অন্তর্ভুক্ত করেছে। ঢাকা, চট্টগ্রাম ও সিলেট শহরের ভূমিকম্প ঝুঁকি মানচিত্র প্রস্তুত ও ৬টি শহরের জন্য জিও-মরফলজিক্যাল ম্যাপিং করা হয়েছে। তিনি বলেন, এখন মোবাইল ফোনের ১০৯৪১-৪ নম্বর থেকে প্রাকৃতিক দুর্যোগের আগাম সতর্কবার্তা পাওয়া যাচ্ছে। বন্যা ও ঘূর্ণিঝড়ের পূর্বাভাস থেকে এর ক্ষয়ক্ষতি অনেকাংশে কমিয়ে আনা হয়েছে।
    অনুষ্ঠানে প্রাকৃতিক দুর্যোগসংক্রান্ত বিশেষজ্ঞগণ, বিভিন্ন এনজিও প্রতিনিধি এবং স্বেচ্ছাসেবক সংস্থার প্রতিনিধি উপস্থিত ছিলেন।
    মন্ত্রী প্রাকৃতিক দুর্যোগসংক্রান্ত প্রকাশনা ও যন্ত্রপাতি প্রদর্শনীরও উদ্বোধন করেন।
#
ওমর ফারুক/ফায়জুল/মিজান/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৯৩০ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                            নম্বর : ৯৪৯

শিক্ষামন্ত্রীর সাথে ময়মনসিংহ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের সাক্ষাৎ
মন্ত্রীর শিক্ষার সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখার আহ্বান

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    ময়মনসিংহের বাংলাদেশ কৃষি বিশ্ববিদ্যালয় গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের সভাপতি ও সাধারণ সম্পাদকের নেতৃত্বে ১০ সদস্যবিশিষ্ট প্রতিনিধিদল আজ বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদের সাথে মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাক্ষাৎ করেন। তাঁরা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যের বিরুদ্ধে উত্থাপিত অনৈতিক কর্মকা-, বিতর্কিত ৩০৭ কর্মচারী নিয়োগসহ নানা অভিযোগ তুলে ধরেন। তাঁরা ঐতিহ্যবাহী এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সম্মানহানি, অচলাবস্থা সৃষ্টি ও পরিবেশ নষ্টেরও অভিযোগ করেন।

    শিক্ষামন্ত্রী ধৈর্য্যসহকারে প্রতিনিধিদলের কথা শোনেন। তিনি এসব অভিযোগ খতিয়ে দেখার জন্য গঠিত তদন্ত কমিটিকে আগামীকাল থেকে সরেজমিনে তদন্ত কাজ শুরুর নির্দেশ দেন। তদন্ত প্রতিবেদন প্রাপ্তির সাথে সাথে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে বলে তিনি প্রতিনিধিদলকে আশ্বস্ত করেন। তিনি প্রতিনিধিদলের মাধ্যমে এ বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল শিক্ষক, শিক্ষার্থী, কর্মকর্তা-কর্মচারীদেরকে বিশ্ববিদ্যালয়ে শিক্ষা, গবেষণা, প্রশাসনিক সুষ্ঠু পরিবেশ বজায় রাখতে দায়িত্বশীল ভূমিকা রাখার আহ্বান জানান।

    গণতান্ত্রিক শিক্ষক ফোরামের সভাপতি প্রফেসর ড. এ কে এম শামসুদ্দীন, প্রফেসর ড. মোঃ শহীদ উল্লাহ তালুকদার (সাবেক উপাচার্য), প্রফেসর ড. মোঃ আফজাল হোসেন (সাবেক উপাচার্য), প্রফেসর ড. সাখাওয়াত হোসেন (সাবেক উপাচার্য), প্রফেসর ড. এ এস মাহফুজুল বারী (সাবেক উপাচার্য), প্রফেসর পরেশ মোদক, প্রফেসর ড. মঞ্জুরুল আলম, প্রফেসর ড. মোঃ রকিবুল ইসলাম খান, প্রফেসর ড. এ কে এম জাকির হোসেন ও প্রফেসর ড. মোঃ এনামুল হক প্রতিনিধিদলে  ছিলেন।

#

সুবোধ/ফায়জুল/মিজান/জসীম/রেজাউল/২০১৫/১৮০৪ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৯৪৮

সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
দশম জাতীয় সংসদের সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ৮ম বৈঠক আজ সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি মোঃ মোজাম্মেল হোসেন বৈঠকে সভাপতিত্ব করেন।
কমিটির সদস্য প্রমোদ মানকিন, মনোরঞ্জন শীল গোপাল, পীর ফজলুর রহমান, মোঃ আব্দুল মতিন এবং লুৎফা তাহের বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
বৈঠকে সরকারি শিশু পরিবারসমূহের ব্যবস্থাপনা, শিক্ষা প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন এবং স্বাস্থ্যসেবা নিশ্চিতকরণ, বেসরকারি এতিমখানায় ক্যাপিটেশন গ্র্যান্ট প্রদানের পূর্বে যাচাইকরণ প্রক্রিয়া এবং দুস্থ শিশুদের প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা করা হয়। এছাড়াও সমাজসেবা অধিদপ্তরের বিভিন্ন শূন্যপদে নিয়োগসংক্রান্ত বিষয়ে আলোচনা হয়।    
কমিটি বিভিন্ন রাজনৈতিক কর্মসূচিতে এতিমখানার শিশুদের পাঠানো হলে সেসব প্রতিষ্ঠানের ক্যাপিটেশন গ্র্যান্ট বাতিল করার সুপারিশ করে। এছাড়া, বেসরকারি এতিমখানার ক্যাপিটেশন গ্র্যান্ট প্রদান কমিটিতে স্থানীয় সংসদ সদস্যদের অন্তর্ভুক্ত করার সুপারিশ করে।
বৈঠকে গাজীপুরের কোনাবাড়ীতে দুস্থশিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্র এবং চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়ায় এতিম ও দুস্থশিশুদের বৃত্তিমূলক প্রশিক্ষণ কেন্দ্রে উন্নত ও আধুনিক প্রশিক্ষণ প্রদানের সুপারিশ করা হয়।
    সমাজকল্যাণ মন্ত্রণালয়ের সচিব, সমাজসেবা অধিদপ্তরের মহাপরিচালকসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
#

মৌমিতা/ফায়জুল/মিজান/জসীম/জয়নুল/২০১৫/১৮০০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৯৪৭

জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কার্যনির্বাহী কমিটির সভা

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের কার্যনির্বাহী কমিটির এক সভা আজ পরিষদের সম্মেলনকক্ষে অনুষ্ঠিত হয়। সভায় যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী এবং জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সভাপতি বীরেন শিকদার সভাপতিত্ব করেন।
    সভায় জাতীয় ক্রীড়া ফেডারেশন ও অ্যাসোসিয়েশনের স্বীকৃতি প্রদানের জন্য চার সদস্যবিশিষ্ট কমিটির প্রণীত নীতিমালা সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদন দেয়া হয়। উল্লেখ্য, জাতীয় ক্রীড়া ফেডারেশন ও অ্যাসোসিয়েশনের স্বীকৃতি প্রদানের জন্য জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ একটি সুনির্দিষ্ট নীতিমালা প্রণয়নের উদ্যোগ গ্রহণ করে। বিভিন্ন খেলায় স্বীকৃতি প্রদান এবং স্বীকৃতিপ্রাপ্ত ফেডারেশন ও অ্যাসোসিয়েশনকে স্বীকৃতি দেয়ার জন্য এ নীতিমালা প্রণয়ন করা হয়।
    এছাড়া, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের অ্যাফিলিয়েটেড স্থানীয় ক্রীড়া সংস্থাগুলোর কার্যনির্বাহী পরিষদের নির্বাচন সুষ্ঠুভাবে সম্পন্ন করার লক্ষ্যে বিদ্যমান গঠনতন্ত্র সংশোধনের জন্য জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিবকে আহ্বায়ক করে গঠিত ১৪ সদস্যবিশিষ্ট কমিটি একটি নির্বাচন বিধিমালা প্রণয়ন করে এবং প্রণীত নির্বাচন বিধিমালা আলোচনা শেষে সর্বসম্মতিক্রমে অনুমোদিত হয়।
    সভায় যুব ও ক্রীড়া সচিব নূর মোহাম্মদসহ কার্যনির্বাহী কমিটির কোষাধ্যক্ষ বাদল রায়, সদস্য এএসএম আলী কবীর, দেওয়ান সফিউল আরেফিন টুটুল, আশিকুর রহমান মিকু, রাফিয়া আখতার ডলি, ইব্রাহিম চেঙ্গিস উপস্থিত ছিলেন। সভা পরিচালনা করেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের সচিব শিবনাথ রায়।
#
শফিকুল/ফায়জুল/মিজান/জসীম/জয়নুল/২০১৫/১৭৪৫ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর : ৯৪৬
সরকারি কাজে ব্যবহারিক বাংলা ও প্রশাসনিক পরিভাষা
নিয়ে দু’টি গ্রন্থ প্রকাশ করল জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়
ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    পকেট সাইজ ‘সরকারি কাজে ব্যবহারিক বাংলা’ ও ‘প্রশাসনিক পরিভাষা ২০১৫’ শীর্ষক দু’টি গ্রন্থ সংকলনের মোড়কউন্মোচন করলেন জনপ্রশাসন প্রতিমন্ত্রী ইসমাত আরা সাদেক।
    প্রতিমন্ত্রী আজ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সম্মেলনকক্ষে এ গ্রন্থ দু’টির মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠিত হয়।
     প্রমিত ভাষারীতি সম্পর্কে কর্মকর্তাগণকে অবহিত করার মাধ্যমে সরকারি কাজে ভাষার শুদ্ধতা নিশ্চিত করার উদ্দেশ্যে বাংলা একাডেমির প্রমিত বানানরীতি অনুসরণে এ গ্রন্থ দু’টি সংকলিত হয়েছে।
     মোড়কউন্মোচন অনুষ্ঠানে বিভিন্ন মন্ত্রণালয় ও সরকারি সংস্থার প্রাত্যহিক কাজে গ্রন্থদ্বয় সহায়ক হবে বলে প্রতিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।
     এ সময় জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরীসহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
#
তৌহিদুল/ফায়জুল/মিজান/রফিকুল/জয়নুল/২০১৫/১৭৪০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                            নম্বর : ৯৪৫

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর সাথে নবনিযুক্ত পাকিস্তানি হাইকমিশনারের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :
    বাংলাদেশে পাকিস্তানের নবনিযুক্ত হাইকমিশনার সুজা আলম (ঝযঁলধ অষধস) আজ পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলী এবং পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহ্রিয়ার আলম এর সাথে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ে সাক্ষাৎ করেন।
    পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে হাইকমিশনার সুজা আলম শিক্ষা, স্বাস্থ্য, নারীউন্নয়ন, প্রযুক্তি, ক্ষুদ্রঋণ প্রভৃতি খাতে বাংলাদেশের অভূতপূর্ব উন্নয়নের ভূয়সী প্রশংসা করেন। তিনি বলেন, শুধু দক্ষিণ এশিয়া নয় বরং মুসলিম রাষ্ট্রসমূহের মধ্যেও বাংলাদেশের এ অগ্রগতি উল্লেখযোগ্য।
    বাংলাদেশে সৌরশক্তির প্রবর্তন ও ব্যাপক সম্প্রসারণের বিষয়ে হাইকমিশনার সুজা আলমের আগ্রহের প্রেক্ষিতে পররাষ্ট্রমন্ত্রী জানান, বাংলাদেশের দুর্গম চরাঞ্চলে যেসব স্থানে প্রধান সঞ্চালন লাইন হতে বিদ্যুৎ সরবরাহ খুবই জটিল সেসব স্থানে সৌরবিদ্যুৎ কার্যকর ভূমিকা রাখছে। তিনি আরো বলেন, এ বিষয়ে অভিজ্ঞতা অর্জনের জন্য পাকিস্তান হতে একটি প্রতিনিধিদল বাংলাদেশ সফর করতে পারে।
    এর পূর্বে পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে হাইকমিশনার সুজা আলম বলেন, বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যে দ্বিপাক্ষিক কূটনৈতিক সম্পর্ক জোরদারের পাশাপাশি বাণিজ্যিক ও অর্থনৈতিক সম্পর্ক সম্প্রসারণের ব্যাপক সুযোগ রয়েছে। বাংলাদেশের তৈরিপোশাক বিশেষ করে ছেলেদের পোশাকের বিরাট বাজার রয়েছে পাকিস্তানে। তিনি বাংলাদেশের সিরামিক পণ্যের ব্যাপারেও পাকিস্তানের ক্রেতাদের আগ্রহের কথা জানান। এ প্রসঙ্গে বাণিজ্যিক প্রতিনিধিদলের সফর বিনিময় দু’দেশের মধ্যে বাণিজ্যিক সম্পর্ক সম্প্রসারণে কার্যকরী ভূমিকা রাখবে বলে তিনি মন্তব্য করেন। পাকিস্তানের হাইকমিশনার দু’দেশের জনগণের মধ্যে বিদ্যমান সৌহার্দ্যপূর্ণ মনোভাবকে দু’দেশের জন্য সুফলদায়ী কার্যাবলিতে রূপান্তরের ওপর গুরুত্বারোপ করেন।
    এসময় পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী প্রাকৃতিকসম্পদে পরিপূর্ণ এবং ঐতিহাসিক ও সাংস্কৃতিক বন্ধনে আবদ্ধ দক্ষিণ এশিয়ার দেশসমূহ শান্তি ও স্থিতিশীলতা অব্যাহত রেখে ক্রমান্বয়ে উন্নয়নের শিখরে পৌঁছবে বলে আশাপ্রকাশ করেন।
    পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রী উভয়েই গতবছরের নভেম্বরে নেপালের কাঠমুন্ডুতে অনুষ্ঠিত সার্ক শীর্ষ সম্মেলনের পাশাপাশি বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের দুই প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও নওয়াজ শরীফের মধ্যে অনুষ্ঠিত বৈঠকের কথা স্মরণ করেন। মাহমুদ আলী ও শাহ্রিয়ার আলম পাকিস্তানের নবনিযুক্ত হাইকমিশনারকে বাংলাদেশে স্বাগত জানিয়ে তাঁর কর্মকালে বাংলাদেশ ও পাকিস্তানের মধ্যে বিরাজমান সম্পর্ক আরো শক্তিশালী হবে বলে আশা প্রকাশ করেন। তাঁরা পাকিস্তানের হাইকমিশনারকে ঢাকায় তাঁর কর্মকালে পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সকল সহযোগিতার আশ্বাস দেন।
#

খালেদা/ফায়জুল/মিজান/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৫/১৭৩৫ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ৯৪৪

প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির বৈঠক অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :

১০ম জাতীয় সংসদের প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত স্থায়ী কমিটির ১২তম বৈঠক আজ জাতীয় সংসদভবনে অনুষ্ঠিত হয়। কমিটির সভাপতি মোঃ মোতাহার হোসেনের সভাপতিত্বে কমিটির সদস্য প্রাথমিক ও গণশিক্ষামন্ত্রী মোস্তাফিজুর রহমান, আ খ ম জাহাঙ্গীর হোসাইন, মোঃ নজরুল ইসলাম বাবু, মোঃ আবুল কালাম, আলী আজম, মোহাম্মদ ইলিয়াছ এবং উম্মে রাজিয়া কাজল বৈঠকে অংশগ্রহণ করেন।
কমিটি সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের সাথে নতুন জাতীয়করণকৃত বিদ্যালয়ের মান সামঞ্জস্যপূর্ণ করার লক্ষ্যে উপজেলা শিক্ষা কমিটির সাথে আলোচনার মাধ্যমে এক বিদ্যালয় থেকে অন্য বিদ্যালয়ে সমন্বয় বদলির সুপারিশ করে।
সভায় প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন যে সকল বিদ্যালয়ে অষ্টম শ্রেণি পর্যন্ত শিক্ষা কার্যক্রম চালু আছে ঐ সকল বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা যাতে নিজ বিদ্যালয়ের অধীনে রেজিস্ট্রেশন করে জেএসসি পরীক্ষা দিতে পারে তার জন্য প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণে সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়কে সুপারিশ করা হয়।
কমিটি রস্ক প্রকল্পের মাধ্যমে পরিচালিত ‘আনন্দ স্কুল’ নিয়মিত পরিদর্শন করে যে সকল জায়গায় স্কুলের প্রয়োজনীয়তা রয়েছে সেই স্কুলগুলো রেখে বাকিগুলো বন্ধ করে দেয়ার সুপারিশ করে।
বৈঠকে প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিবসহ মন্ত্রণালয় এবং জাতীয় সংসদ সচিবালয়ের সংশ্লিষ্ট ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
#

নীলুফার/মোহাম্মদ আলী/অনসূয়া/শুকলা/আসমা/২০১৫/১৫৪৫ ঘণ্টা

 

 
তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ৯৪৩

বাজেটে টেকসই উন্নয়নকে গুরুত্ব দেয়া উচিত
                              - ডেপুটি স্পিকার

হ্যানয়, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :


    সোমবার ভিয়েতনামের হ্যানয়ে অনুষ্ঠেয় ১৩২তম আইপিইউ অ্যাসেম্বলির সাধারণ সভায় বাংলাদেশ সংসদীয় প্রতিনিধিদলের নেতা ডেপুটি স্পিকার মোঃ ফজলে রাব্বী মিয়া “ঞযব ংঁংঃধরহধনষব ফবাবষড়ঢ়সবহঃ মড়ধষং:ঞঁৎহরহম ড়িৎফং রহঃড় ধপঃরড়হ” এর ওপর আলোচনা করেন। তিনি বাংলাদেশের আর্থসামাজিক বিষয় নিয়েও আলোচনা করেন। এসময় তিনি এমডিজি গোল ১,২,৩,৪,৫ও ৬ অর্জনের ক্ষেত্রে বাংলাদেশের সাফল্যজনক অবস্থান এবং সরকারের গৃহীত বিভিন্ন পদক্ষেপের কথা তুলে ধরেন।
    তিনি বলেন, টেকসই উন্নয়নের জন্য জাতীয় বাজেটে পর্যাপ্ত ক্ষেত্র তৈরির বিষয়টি নিশ্চিত করতে সংসদ সদস্যদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখার প্রয়োজন। পার্লামেন্টের উচিত জনগণের ভাগ্য উন্নয়নে বাজেটে টেকসই উন্নয়নকে গুরুত্ব দেয়া।
    এক পার্শ্ব বৈঠকে ডেপুটি স্পিকার ভারতের লোকসভার স্পিকার সুমিত্রা মাহাজনের সাথে সাক্ষাৎ করেন। সাক্ষাৎকালে তিনি বাংলাদেশের স্বাধীনতা আন্দোলনে ভারতের সহযোগিতা, সিপিএ নির্বাচনে বাংলাদেশকে সমর্থনসহ বিভিন্ন উন্নয়নমূলক কাজে সহযোগিতার জন্য ভারতকে ধন্যবাদ জানান। ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদির বাংলাদেশ সফরকালে তিস্তা চুক্তি সম্পাদন, সীমান্ত  চুক্তিসহ আরো বেশ কয়েকটি বিষয়ে চুক্তি স্বাক্ষরিত হবে বলে তারা উভয়ই আশাবাদ ব্যক্ত করেন।
    এছাড়াও ডেপুটি স্পিকার ভুটান ও মালদ্বীপের স্পিকারের সাথে সাক্ষাৎ করেন এবং দু’দেশের স্বার্থসংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় নিয়ে আলোচনা করেন।
#

স্বপন/মোহাম্মদ আলী/অনসূয়া/শুকলা/আসমা/২০১৫/১৫৪৫ ঘণ্টা


 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ৯৪২

যুবসমাজকে দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তর করতে হবে
                                          - চিফ হুইপ

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :

বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ বলেছেন, দেশের অর্থনৈতিক প্রবৃদ্ধির গতিধারা আরো জোরদার করতে হলে দেশের যুবসমাজকে দক্ষ মানবসম্পদে রূপান্তর করতে হবে। দেশের বিশাল কর্মশক্তিকে সঠিকভাবে কাজে লাগানো সম্ভব হলে তা দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়নে ইতিবাচক ভূমিকা রাখবে।
আজ বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের শপথ কক্ষে এসপিসিপিডি প্রকল্প আয়োজিত ঈযধষষবহমবং ধহফ ঙঢ়ঢ়ড়ৎঃঁহরঃরবং ড়ভ ঃযব উবসড়মৎধঢ়যরপ ঞৎধহংরঃরড়হ রহ ইধহমষধফবংয: চৎরড়ৎরঃরুরহম ওহাবংঃসবহঃং রহ ুড়ঁঃয শীর্ষক গোলটেবিল বৈঠকের উদ্বোধনকালে তিনি একথা বলেন।  
চিফ হুইপ বলেন, দেশের অর্থনৈতিক ধারাকে সচল রাখতে এবং প্রতিযোগিতামূলক বিশ্বে টিকে থাকতে হলে যুবসমাজকে উপযুক্ত প্রশিক্ষণ প্রদান করতে হবে। উপযুক্ত শিক্ষা ও প্রশিক্ষণের মাধ্যমে জনসংখ্যাকে দক্ষ জনশক্তিতে রূপান্তর করা সম্ভব। বাংলাদেশ তথ্যপ্রযুক্তিখাতে অনেক দূর এগিয়ে গেছে। এদেশের যুব সমাজ তথ্যপ্রযুক্তিখাতে অত্যন্ত দক্ষ। তাদের এ দক্ষতাকে কাজে লাগিয়ে বিপুল পরিমাণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন সম্ভব। পৃথিবীর অনেক দেশ এ খাতকে কাজে লাগিয়ে এবং দেশের শ্রমশক্তির সঠিক ব্যবহারের মাধ্যমে তাদের দেশের অর্থনৈতিক উন্নয়ন নিশ্চিত করেছে। বাংলাদেশের সামনেও আজ এ সুযোগ বিদ্যমান। এ সুযোগকে কাজে লাগাতে হবে। বাংলাদেশ সরকারের একার পক্ষে সীমিত সম্পদ নিয়ে জনসংখ্যার সর্বোচ্চ ব্যবহার নিশ্চিত করা কষ্টসাধ্য। এ জন্য প্রয়োজন সকলের সম্মিলিত উদ্যোগ। এ লক্ষ্যে যুবসমাজকে যথাযথ প্রশিক্ষণ প্রদান করে বিদেশে কর্মসংস্থানের ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য তিনি সরকারের পাশাপাশি বেসরকারি প্রতিষ্ঠানসমূহকে আরো কার্যকরী ভূমিকা পালনের আহ্বান জানান।
তিনি বলেন, যুব সমাজকে বিভিন্ন কর্মসূচির মাধ্যমে দেশের অর্থনৈতিক কর্মকা-ে সম্পৃক্ত করতে হবে। তিনি এ লক্ষ্যে সংসদ সদস্যদেরকে তাদের নিজ এলাকার যুবসমাজকে উদ্বুদ্ধ করে গঠনমূলক কর্মকা-ে সম্পৃক্ত করার আহ্বান জানান।  
তিনি আরো বলেন, অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রে অগ্রগতিতে বাংলাদেশ বিশ্বে একটি রোল মডেল। বাংলাদেশের এ অর্জনকে দেশে-বিদেশে সকলের কাছে তুলে ধরে দেশের ভাবমূর্তি উন্নয়নে তিনি সংবাদকর্মীসহ সংশ্লিষ্ট সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
সংসদ সদস্য সানজিদা খানমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে হুইপ মাহবুব আরা গিনি বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য রাখেন। পপুলেশন কাউন্সিলের কান্ট্রি ডিরেক্টর ওবায়দুর রব অনুষ্ঠানে মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন। সংসদ সদস্যসহ সমাজের গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ এসময় উপস্থিত ছিলেন।  
#
শিবলী/মোহাম্মদ আলী/অনসূয়া/শুকলা/আসমা/২০১৫/১৫০০ ঘণ্টা

 

 
তথ্যবিবরণী                                                                                                       নম্বর : ৯৪১

কাল থেকে শুরু হচ্ছে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ-২০১৫

ঢাকা, ১৭ চৈত্র (৩১ মার্চ) :

    ইলিশ সম্পদের সহনশীল উন্নয়নের জন্য জাটকা সংরক্ষণে জনসচেতনতা বৃদ্ধির লক্ষ্যে ‘জাটকা মাছ রক্ষা করি, ইলিশ সম্পদ বৃদ্ধি করি” শ্লোগানকে সামনে রেখে ১ থেকে ৭ এপ্রিল জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ’১৫ পালিত হবে।
    জাতীয় মাছ ইলিশ এদেশের মানুষের কৃষ্টি,ঐতিহ্য ও জীবন-জীবিকার সাথে ওতপ্রোতভাবে জড়িত। দেশের মৎস্য উৎপাদনের  শতকরা ১০ ভাগেরও বেশি যোগান দিচ্ছে ইলিশ এবং জাতীয় আয়ের একভাগ আসে ইলিশ থেকে। জাটকা আহরণকারী মৎস্যজীবীদের বিকল্প কর্মসংস্থান ও ভিজিএফ কর্মসূচির আওতা বৃদ্ধি করে আপৎকালীন খাদ্য সহায়তা প্রদান এবং গণসচেতনতা সৃষ্টিতে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সমন্বিত কার্যক্রম পরিচালনা করছে। ফলে ইলিশের উৎপাদন দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে। গত ২০১৩-১৪ অর্থবছরে ইলিশের উৎপাদন ৩ দশমিক ৮৫ লাখ মেট্রিক টনে উন্নীত হয়েছে।
    প্রাকৃতিক ও মনুষ্যসৃষ্ট নানাবিধ কারণে ইলিশের প্রজনন ও বিচরণ বাধাগ্রস্ত হচ্ছে। এদের মধ্যে অতিমাত্রায় ডিমওয়ালা ইলিশ আহরণ, কারেন্ট জালের ব্যবহার, নৌকার যান্ত্রিকায়নসহ জাটকা নিধন অন্যতম। বর্তমান সরকার ইলিশের উৎপাদন বৃদ্ধির লক্ষ্যে জাটকা সংরক্ষণ প্রকল্পসহ নানা পদক্ষেপ গ্রহণ করেছে। জাটকা রক্ষা ও ইলিশ সম্পদ ব্যবস্থাপনার গুরুত্ব সর্ম্পকে জেলে সম্প্রদায়,মৎস্যজীবী, ইলিশ ব্যবসায়ী,ডিপো ও বরফ কল মালিক,বোট মালিক,আড়তদার এবং সংশ্লিষ্ট সকলের মাঝে জনসচেতনতা সৃষ্টি করতে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহে জাতীয় পর্যায়ে সরকার ব্যাপক কর্মসূচি গ্রহণ করেছে।
    জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে প্রথম দিন ১ এপ্রিল বিভিন্ন জাতীয় পত্রিকায় ক্রোড়পত্র প্রকাশ ও দ্বিতীয় দিন ট্রাকযোগে ঢাকা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে বিশেষ করে মৎস্য অবতরণ কেন্দ্র, আড়ত, মাছ বাজারে জাটকা সংরক্ষণ আইন প্রচারণা এবং ভ্রাম্যমাণ আদালত পরিচালনা করা হবে।
    তৃতীয় দিন বিভিন্ন শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে এবং সন্ধ্যায় ঢাকা শহরের গুরুত্বপূর্ণ স্থানে ভিডিও চিত্রপ্রর্দশনী, চতুর্থদিন চাঁদপুর অঞ্চলের জনপ্রতিনিধিগণের সাথে মতবিনিময় এবং সংবাদসম্মেলন আয়োজন করা হয়েছে। এদিন বাংলাদেশ টেলিভিশন ও বাংলাদেশ বেতারে জাটকা সংরক্ষণ বিষয়ক আলোচনা অনুষ্ঠান প্রচার করা হবে। পঞ্চমদিনে চাঁদপুরে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহের আনুষ্ঠানিক উদ্বোধন করা হবে এবং মেঘনা নদীর মূলহেড হতে হরিনা পর্যন্ত নৌর‌্যালি আয়োজন করা হয়েছে। ৬ষ্ঠ দিন মৎস্য অধিদপ্তরে জাটকা সংরক্ষণ প্রকল্পের কার্যক্রম বাস্তবায়নের অগ্রগতি উপস্থাপন বিষয়ক কর্মশালা এবং সপ্তম দিন ইলিশ গবেষণা বিষয়ক কর্মশালা অনুষ্ঠিত হবে।
    এছাড়া ১৫ এপ্রিল বরিশালে অত্র অঞ্চলের জনপ্রতিনিধিগণের সাথে মতবিনিময় এবং ১৬ এপ্রিল নৌর‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে।
#
আকতারুল/মোহাম্মদ আলী/অনসূয়া/আসমা/২০১৫/১৫০০ ঘণ্টা
 


তথ্যবিবরণী                                                             &

Todays handout (8).doc Todays handout (8).doc

Share with :

Facebook Facebook