তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২৯ ডিসেম্বর ২০১৫

তথ্যবিবরণী 29/12/15

তথ্যবিবরণী                                     নম্বর : ৩৮৬০

জনগণ ও সরকারকে সার্বক্ষণিক যুক্ত রাখবে ই-ফাইল পদ্ধতি
                       ---তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :    

    তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু বলেছেন, ই-ফাইল পদ্ধতি প্রবর্তন ২০০৮ সালের নির্বাচনে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার প্রতিশ্রুত ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার একটি তাৎপর্যপূর্ণ ধাপ এবং জনগণ ও সরকারকে সার্বক্ষণিক যুক্ত রাখার প্রক্রিয়া। 

    মন্ত্রী আজ তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা-কর্মচারীদের ই-ফাইলিং প্রশিক্ষণ কোর্সের দ্বিতীয় পর্বের উদ্বোধনকালে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। 

    মন্ত্রী বলেন, নথি ব্যবস্থাপনায় কাগজমুক্ত এ পদ্ধতি যেমন সময় ও খরচ বাঁচাবে তেমনই  নথিগুলো নিরাপদভাবে সংরক্ষণের নিশ্চয়তা দেবে। তবে এ পদ্ধতির সফলতার জন্য বিদ্যুৎ ও ইন্টারনেট সংযোগ এবং ব্যাক-আপ রাখার বিকল্প নেই। 

    প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের একসেস টু ইনফরমেশন (এটুআই) প্রকল্পের সহায়তায় মন্ত্রণালয়ের এ কোর্স উদ্বোধনে সভাপতিত্ব করেন তথ্য সচিব মরতুজা আহমদ। 

    তথ্য সচিব বলেন, ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়ার লক্ষ্য অর্জনে ই-ফাইলিং অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ একটি ধাপ। সচিবালয় নির্দেশিকার গত সংস্করণে ই-ফাইলিং পদ্ধতি ব্যবহার অন্তর্ভুক্ত হয়েছে উল্লে¬খ করে মরতুজা আহমদ বলেন, আমরা যেখানেই অবস্থান করি, ই-ফাইলে কাজ করা সম্ভব। 

    তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব এ এস এম মাহবুবুল আলম, এস এম  হারুন- অর-রশীদ  ও শাহজাদী আঞ্জুমান আরাসহ মন্ত্রণালয়ের কর্মকর্তা কর্মচারীবৃন্দ ৩ দিনব্যাপী এ প্রশিক্ষণে অংশ নিচ্ছেন।

#
আকরাম/আফরাজ/জসীম/আব্বাস/২০১৫/১৮১৩ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                              নম্বর : ৩৮৫৯

যুদ্ধাপরাধ অস্বীকারকারীরা ইতিহাস হত্যাচেষ্টার অপরাধী
                    ---তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :   

    যুদ্ধাপরাধ অস্বীকারকারীদের ইতিহাস হত্যাচেষ্টার অপরাধী বলে উল্লেখ করেছেন তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু। 

    আজ তথ্য মন্ত্রণালয়ে নিজ দপ্তরে ইতিহাস গবেষক মুস্তফা চৌধুরী সংকলিত ‘৭১-এর  যুদ্ধশিশু-অবিদিত ইতিহাস’ গ্রন্থের মোড়ক উন্মোচনকালে মন্ত্রী বলেন, বহুদিন পরে হলেও মহান মুক্তিযুদ্ধে পাকবাহিনী ও রাজকারদের  নারী নির্যাতন ও যুদ্ধপরাধের বিচার চলছে। যুদ্ধশিশুদের ওপর গবেষণালব্ধ এ গ্রন্থটি সেই নির্যাতন ও যুদ্ধাপরাধের সাক্ষ্য বহন করছে। যারা সে নির্যাতন ও অপরাধ অস্বীকার করছে, তারা যুদ্ধাপরাধীদের বাঁচানো এবং ইতিহাস অস্বীকার করা-এ দুই অপরাধের দায়ে অভিযুক্ত।

    যুদ্ধশিশুদের লালনপালনে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ঐতিহাসিক ‘পরিত্যক্ত শিশু আইন’ প্রণয়ন করে মানবতার প্রোজ্জ্বল দৃষ্টান্ত স্থাপন করেছেন উলে¬øখ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, বেশকিছু কানাডিয় পরিবার যুদ্ধশিশুদের দত্তক হিসেবে লালন পালন করে মহানুভবতার পরিচয় দিয়েছেন। 

    ঢাকার ‘একাডেমিক প্রেস এন্ড পাবলিশার্স লাইব্রেরি’ থেকে গ্রন্থটি প্রকাশিত হয়েছে। 

#
আকরাম/আফরাজ/মিজান/জসীম/আব্বাস/২০১৫/১৮১২ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                          নম্বর : ৩৮৫৮

জনপ্রশাসনে নিয়োগ ও 
প্রশিক্ষণ : সমস্যা ও সম্ভাবনা শীর্ষক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত

ঢাকা, ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :   

          বাংলাদেশ সরকারি কর্মকমিশন (পিএসসি) এর উদ্যোগে আজ ঢাকায় কমিশন ভবনে ‘বাংলাদেশের জনপ্রশাসনে নিয়োগ ও প্রশিক্ষণ : সমস্যা ও সম্ভাবনা’ শীর্ষক এক মতবিনিময়সভা অনুষ্ঠিত হয়।

    মতবিনিময়সভায় শিক্ষামন্ত্রী নুরুল ইসলাম নাহিদ প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন মন্ত্রিপরিষদ সচিব মোহাম্মদ শফিউল আলম ও জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব ড. কামাল আবদুল নাসের চৌধুরী। সভায় সভাপতিত্ব করেন পিএসসি’র চেয়ারম্যান ইকরাম আহমেদ। 

    বিভিন্ন পাবলিক বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্যগণ, কমিশনের সদস্যবৃন্দ, কমিশন সচিবালয়ের সচিব, বিভিন্ন ট্রেনিং ইনস্টিটিউটের প্রধানগণ এবং এসোসিয়েশন অভ্ ননগভর্নমেন্ট ইউনিভার্সিটি বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সভায় উপস্থিত ছিলেন।  

    বিষয়বস্তুর ওপর মূলপ্রবন্ধ উপস্থাপন করেন কর্মকমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. এম আবুল কাশেম মজুমদার। সভায় সাংবিধানিক অনুশাসনের আওতায় প্রজাতন্ত্রের কর্মে উপযুক্ত কর্মকর্তা নিয়োগের উদ্দেশ্যে যাচাই প্রক্রিয়া, পরীক্ষা পরিচালনা এবং নিয়োগ পরবর্তী প্রশিক্ষণ কর্মসূচি বিষয়ে বিস্তারিত আলোচনা হয়।

    সভায় ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের উপাচার্য  অধ্যাপক ড. আ আ ম স আরেফিন সিদ্দিক  পিএসসি পরীক্ষায় স¦চ্ছতা এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনায় বিশ্বাসী কর্মকর্তা নিয়োগের বিষয়ে গুরুত্বারোপ করেন। এছাড়া, আপ-টু-ডেট সিলেবাসের ভিত্তিতে পরীক্ষা নেয়ার সুবিধার্থে বিশ্ববিদ্যালয় ও পিএসসি’র  মধ্যে যোগাযোগ বৃদ্ধি করা দরকার বলে তিনি মত প্রকাশ করেন।

#
ডায়ানা/আফরাজ/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৫/১৮১০ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                           নম্বর: ৩৮৫৭

সত্যিকারের ইসলামে সন্ত্রাসবাদের কোনো জায়গা নেই
                                      ---পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী
রাজশাহী, ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :  

    পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মো. শাহ্রিয়ার আলম বলেছেন, ইসলাম শান্তির ধর্ম। সত্যিকারের ইসলামে সন্ত্রাসবাদের কোনো জায়গা নেই। তিনি বলেন, বিভ্রান্তি সৃষ্টিকারী কিছু মানুষের জন্য ইসলামের প্রকৃত আদর্শ থেকে আমরা পিছিয়ে পড়েছি। 

    প্রতিমন্ত্রী আজ রাজশাহী মেডিকেল কলেজ অডিটোরিয়ামে অনুষ্ঠিত রাজশাহী বিভাগীয় খতিব ও গণশিক্ষার শিক্ষক সম্মেলনে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় একথা বলেন। 

    প্রতিমন্ত্রী বলেন, ধর্মীয় নীতির অপব্যাখ্যা-ব্যক্তিস্বার্থ-ক্ষমতার লোভ এবং বিভিন্ন ষড়যন্ত্রে আমরা ইসলামের মূল দীক্ষা থেকে সরে এসেছি। সারাবিশে^র মুসলিম সম্প্রদায় অশান্তি ও হানাহানিপূর্ণ  এক দুর্যোগময়  মুহুর্ত পার করছে। নিজেদের মধ্যে কোন্দলের কারণে মুসলিম সম্প্রদায় আজ সন্ত্রাসী হিসেবে পরিচিত হচ্ছে। তিনি বলেন, মুসলিম সম্প্রদায়কে এ অবস্থা থেকে বেরিয়ে আসতে হবে। এ লক্ষ্যে কাজ করার জন্য তিনি খতিবদের অগ্রণী ভূমিকা পালন করার আহ্বান জানান।

    শাহ্রিয়ার আলম বলেন, স্বাধীনতা পরবর্তীকালে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান ইসলামি শিক্ষার প্রসারে আলিয়া মাদ্রাসা সম্প্রসারণ করেছিলেন। তিনি ইসলামিক ফাউন্ডেশন প্রতিষ্ঠা করেছিলেন। তাঁর সুযোগ্য কন্যা বর্তমান প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা দ্বীনি শিক্ষার প্রসারে অত্যন্ত আন্তরিক। তাঁর সরকার সংবিধানে ‘বিসমিল্লাহির রাহমানির রাহিম’ পুনঃসংযোজন করেছে এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশনকে আরো শক্তিশালী করার লক্ষ্যে কাজ করছে।

    অনুষ্ঠানে রাজশাহী বিভাগের সাতটি জেলা, চুয়াডাঙ্গা ও কুষ্টিয়া জেলার ৭৪০ জন খতিব এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন কর্মকর্তা-কর্মচারীসহ প্রায় এক হাজার ৬৩০ জন উপস্থিত ছিলেন।

    অতিরিক্ত বিভাগীয় কমিশনার মোহাম্মদ মুনির হোসেনের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে ইসলামিক ফাউন্ডেশনের মহাপরিচালক সামীম মোহাম্মদ আফজাল এবং রাজশাহী জামে মসজিদের খতিব মাওলানা মো. মাকসুদুল্লাহ বক্তব্য রাখেন। 

    পরে প্রতিমন্ত্রী চারঘাট উপজেলার বনকিশোর ফুটবল মাঠে শেখ রাসেল স্মৃতি ফুটবল টুর্নামেন্টের ফাইনাল খেলার পুরস্কার বিতরণ করেন।  
#
নাফেয়ালা/আফরাজ/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৫/১৭৩২ ঘণ্টা


 
তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর : ৩৮৫৬

কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজে 
নবাগত ছাত্রছাত্রীদের পরিচিতিমূলক ক্লাস ১০ জানুয়ারি

কুষ্টিয়া, ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :
কুষ্টিয়া মেডিকেল কলেজে ২০১৫-১৬ শিক্ষাবর্ষে প্রথম বর্ষ এমবিবিএস কোর্সে ভর্তিকৃত নবাগত ছাত্রছাত্রীদের পরিচিতিমূলক ক্লাস আগামী বছরের ১০ জানুয়ারি রোববার সকাল ১০টায় কলেজের অস্থায়ী ক্যাম্পাস, ম্যাট্স কুষ্টিয়ার দুই নং লেকচার গ্যালারিতে অনুষ্ঠিত হবে। একই দিন থেকে তাদের ক্লাস রুটিন মোতাবেক শুরু হবে ।
নবাগত সকল ছাত্রছাত্রীকে তাদের অভিভাবকসহ যথাসময়ে উপস্থিত থাকার জন্য আমন্ত্রণ জানানো হয়েছে।
#

আফরাজ/জসীম/জয়নুল/২০১৫/১৭২০ঘণ্টা 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৩৮৫৩ 

৩১ ডিসেম্বর থেকে কক্সবাজারে মেগা বিচ কার্নিভ্যাল

ঢাকা ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :
    পর্যটন বর্ষ-২০১৬ কে সামনে রেখে  ৩১ ডিসেম্বর পর্যটন নগরী কক্সবাজারে শুরু হচ্ছে তিনদিনব্যাপী মেগা বিচ কার্নিভ্যাল। আনুষ্ঠানটি উদ্বোধন করবেন অর্থমন্ত্রী আবুল মাল আবদুল মুহিত গত ১৯ ডিসেম্বর ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের রাজু ভাস্কর্যপ্রাঙ্গণে এবং কক্সবাজারের লাবণী পয়েন্টের উন্মুক্ত মঞ্চে জমকালো অনুষ্ঠানের মধ্য দিয়ে শুরু হয় কার্নিভ্যালের ক্ষণগণনা। 
    কাউন্ট ডাউন ঘোষণা করে বেসামরিক বিমান পরিবহন ও পর্যটন মন্ত্রী রাশেদ খান মেনন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ২০১৬ সালকে পর্যটন বর্ষ হিসেবে ঘোষণা করেছেন। কক্সবাজার তথা বাংলাদেশকে পৃথিবীর সামনে তুলে ধরতে এ আয়োজন। পর্যটন বাংলাদেশের অমিত সম্ভাবনার দুয়ার খুলে দেবে। পৃথিবীর নানাপ্রান্ত থেকে পর্যটকরা বাংলাদেশে তাদের ঠিকানা খুঁজে নেবে। তিনি আরও বলেন, পর্যটনশিল্পের বিকাশে সরকার একটি সমন্বিত পরিকল্পনা প্রণয়ন করেছে  এর বাস্তবায়ন হলে ভিন্ন এক বাংলাদেশের ছবি ফুটে উঠবে। 
    ৩১ ডিসেম্বর-২০১৫ থেকে ২ জানুয়ারি-২০১৬ পর্যন্ত তিনদিনব্যাপী এ কার্নিভ্যালকে সামনে রেখে পৃথিবীর দীর্ঘ সমুদ্রসৈকত বর্ণিলভাবে সাজবে। প্রতিদিন সুর্যোদয় থেকে সুর্যাস্ত পর্যন্ত দেশের সেরাশিল্পীদের গান, স্থানীয় ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠির মনোমুগ্ধকর সাংস্কৃতিক আয়োজন, নৃত্যপরিবেশনা, আতশবাজিসহ নানা আয়োজন থাকবে। মেলার বিভিন্ন অনুষঙ্গের মধ্যে থাকছে রকমারি খাবারের প্রদর্শনী, লোকশিল্পের প্রসার, সারাদেশের পর্যটন আকর্ষণীয় স্থানসমূহকে তুলে ধরার আলাদা আয়োজন যেমন- ঘুড়িউৎসব, প্রদর্শনী, বিচ ক্রিকেট টুর্ণামেন্ট, সার্ফিং, বালুর ভাস্কর্য তৈরি, আলোকচিত্র প্রদর্শনীসহ ৬৯টি ইভেন্ট। সেই সাথে সমুদ্রসৈকতকে পরিচ্ছন্ন রাখার জন্য সচেতনামূলক বিভিন্ন আয়োজনও থাকছে। 
    এ উপলক্ষে প্রায় ১০ লাখ পর্যটকের সমাগম ঘটবে বলে আশা করা হচ্ছে। কক্সবাজারের ভাটার সময় যেন পর্যটকরা সাগরে নামতে না পারেন সেজন্যে লাইফগার্ড ও পুলিশকে নির্দেশনা দেয়া হয়েছে। দর্শনীয় স্থান ও বিপণি বিতানগুলোতে পুলিশিটহল জোরদার করা হয়েছে। এছাড়া চুরি-ছিনতাই এবং ইভটিজিং ঠেকাতে সাদাপোশাকে পুলিশ সতর্কাবস্থায় রয়েছে। 
    বিচ কার্নিভ্যালের আয়োজক বেসামরিক বিমান পরিবহণ ও পর্যটন মন্ত্রণালয় ও এর অধীন সংস্থা বাংলাদেশ ট্যুারিজম বোর্ড (বিটিবি), বাংলাদেশ পর্যটন কর্পোরেশন (বিপিসি) এবং কক্সবাজার জেলা প্রশাসন।
#
মাহবুবুর/শাহআলম/খাদীজা/লাভলী/২০১৫/১৪৩৫ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৩৮৫২

সাবেক সংসদ সদস্য ডা. কামরুন নেছা নীলু-এর নামাজে জানাজা আজ সংসদে অনুষ্ঠিত

ঢাকা ১৫ পৌষ (২৯ ডিসেম্বর) :
১৯৮৬ সালে তৃতীয় জাতীয় সংসদে সংরক্ষিত মহিলা আসন-২৩ শরীয়তপুর থেকে জাতীয় পার্টির মনোনীত সাবেক সংসদ সদস্য ডা. কামরুন নেছা নীলু-এর নামাজে জানাজা আজ জাতীয় সংসদের দক্ষিণ প্লাজায় অনুষ্ঠিত হয়। 
জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের প্রতিমন্ত্রী মো. মসিউর রহমান রাঙ্গা এমপি, শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রী মো. মুজিবুল হক (চুন্নু) এমপি, জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় চিফ হুইপ মো. তাজুল ইসলাম চৌধুরী এমপি, সংসদসদস্যবৃন্দ, জাতীয় সংসদের সিনিয়র সচিব মো. আশরাফুল মকবুল, সংসদসচিবালয়ের কর্মকর্তা/কর্মচারীবৃন্দসহ গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও অসংখ্য গুণগ্রাহী জানাজায় শরিক হন। 
জানাজাশেষে স্পিকার ড. শিরীন শারমিন চৌধুরীর পক্ষে চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি, জাতীয় সংসদের বিরোধীদলীয় নেতা বেগম রওশন এরশাদ এবং চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ এমপি মরহুমের কফিনে পুষ্পস্তবক অর্পণ করেন। 
এর আগে মরহুমের রাজনৈতিক সহকর্মীবৃন্দ এবং পরিবারের সদস্যবৃন্দ তার কর্মময় জীবনের বিভিন্ন দিক নিয়ে স্মৃতিচারণ করেন। পরে মরহুমের আত্মার মাগফিরাত কামনা করে মোনাজাত করা হয়।
উল্লেখ্য, ডা. কামরুন নেছা নীলু গত ২৫ ডিসেম্বর, ২০১৫ মৃত্যুবরণ করেন। মুত্যুকালে তিনি স্বামীসহ তিনকন্যাসন্তান রেখে গেছেন।

#
নূরুল/শাহআলম/খাদীজা/লাভলী/২০১৫/১৪০০ ঘণ্টা

Todays handout (4).doc Todays handout (4).doc

Share with :

Facebook Facebook