তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৮ মার্চ ২০২০

তথ্যবিবরণী 8/3/2020

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৮৭৫

নারীর অংশগ্রহণ ছাড়া টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়

                               - স্থানীয় সরকার মন্ত্রী

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, নারী সমাজকে উন্নয়নের মূলধারায় সম্পৃক্ত করতে হবে। এশিয়ার জাপান, চীন, সিংঙ্গাপুর, থাইল্যান্ড-সহ যে সব দেশ আজ উন্নত হয়েছে, সেখানে নারীরা আগে এগিয়ে এসেছে। নারীদের অংশগ্রহণ ছাড়া দেশে টেকসই উন্নয়ন সম্ভব নয়।

          আজ রাজধানীর আগারগাঁওয়ে স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তর কর্তৃক আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে আয়োজিত ‘শ্রেষ্ঠ আত্মনির্ভরশীল নারী সম্মাননা পুরস্কার ২০২০’ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, এলজিইডি কর্তৃক বাস্তবায়িত বিভিন্ন কার্যক্রমের ফলে গ্রাম ও শহরের অনেক প্রান্তিক নারীর ভাগ্য বদলে যাচ্ছে, তাদের জীবনে এসেছে আশার আলো। পরিবার ও সমাজে তারা আত্মনির্ভরশীল হয়ে নিজেদের অধিকার ও মর্যাদা প্রতিষ্ঠিত করেছেন। তিনি বলেন, এলজিইডি কেবলমাত্র উন্নয়ন প্রকল্পগুলোতেই নারীর কর্মসংস্থান সৃষ্টি করেনি বরং এ সংস্থার নির্মিত ঘূর্ণিঝড় আশ্রয় কেন্দ্রগুলোতে নারীদের জন্য পৃথক সুযোগ-সুবিধা সম্পন্ন ব্যবস্থা যেমন, সন্তানসম্ভবা ও নবজাতকদের জন্য পৃথক কক্ষ এবং নারীদের জন্য পৃথক টয়লেট ইত্যাদি নিশ্চিত করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, সরকার দেশের সামগ্রিক উন্নয়ন কর্মকাণ্ডে নারীদের সম্পৃক্ত করার মাধ্যমে প্রধানমন্ত্রী ঘোষিত রূপকল্প ২০২১ ও ২০৪১ বাস্তবায়ন করছে।

          স্থানীয় সরকার প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ মতিয়ার রহমানের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন স্থানীয় সরকার বিভাগের সিনিয়র সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ, এলজিইডির অতিরিক্ত প্রধান প্রকৌশলী মোঃ আহসান হাবিব এবং এলজিইডি জেন্ডার ও উন্নয়ন ফোরামের সদস্য সচিব সালমা শহীদ।

          আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে এলজিইডি-এর আয়োজনে ৯ জন সফল নারীকে পুরস্কৃত করা হয়।

#

হাছান/রাহাত/মোশারফ/জয়নুল/২০২০/২২৪০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর: ৮৭৪

 

নির্বাচনী আচরণ বিধির কারণে বিএনপি সুবিধা পাচ্ছে

                                       -- তথ্যমন্ত্রী

চট্টগ্রাম, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ):

তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, ‘আমাদের দুঃখ হয় আমরা যারা দল করি আমরা মন্ত্রী ও এমপি হওয়ার ফলে এখন আমাদের প্রার্থীর পক্ষে ভোট চাইতে পারব না। দুনিয়ার কোথাও এমন নিয়ম নেই। নির্বাচনী এই আচরণবিধির কারণে বিরোধী পক্ষ বিএনপি অনেক সুবিধা পাচ্ছে। এক্ষেত্রে আওয়ামী লীগ বৈষম্যের শিকার হচ্ছে।’

মন্ত্রী বলেন, ‘পার্শ্ববর্তী দেশ ভারত, সেখানে কেন্দ্রের মন্ত্রী হোক কিংবা রাজ্যের মন্ত্রী হোক তাঁরা ভোটের প্রচারণা করতে পারেন। এমপি, মন্ত্রীরাও সরকারি সুযোগ সুবিধা বাদ দিয়ে ভোটের প্রচারণায় নামতে পারেন। যেখান থেকে ভারতবর্ষ গণতন্ত্র শিখেছে সেই ইংল্যান্ডেও পারে।’

আজ চট্টগ্রাম নগরের কে সি দে রোডস্থ সিটি নির্বাচনে আওয়ামী লীগ মনোনীত প্রার্থী রেজাউল করিম চৌধুরীর নির্বাচনী কার্যালয়ে নগর আওয়ামী লীগের বর্ধিত সভায় বিশেষ অতিথির বক্তব্যে হাছান মাহ্‌মুদ এসব কথা বলেন।

সভায় প্রধান অতিথি ছিলেন আওয়ামী লীগের প্রেসিডিয়াম সদস্য ইঞ্জিনিয়ার মোশাররফ হোসেন এমপি। 

ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেন, 'আমি আশা করবো বাস্তবতার নিরিখে ও বিশ্ব প্রেক্ষাপটে অন্যান্য দেশকে অনুসরণ করে নির্বাচন কমিশন এই বিধানের পরিবর্তন করবে। ভারত, ইংল্যান্ড, কন্টিনেন্টাল ইউরোপ, ফ্রান্স ও জার্মানি-সহ বিভিন্ন দেশে সরকারি সুযোগ-সুবিধা বাদ দিয়ে এমপি ও মন্ত্রীরা নির্বাচনী প্রচারণায় অংশগ্রহণ করতে পারে। সবাই যাতে সমান সুযোগ পায় নির্বাচন কমিশন বিধি-বিধান পরিবর্তন করে সেটা নিশ্চিত করবেন।'

মন্ত্রী বলেন, বর্তমানে প্লেয়িং গ্রাউন্ডটা আমাদের জন্য লেভেল প্লেয়িং নয়। বিএনপির জন্য এটি সুবিধাজনক অবস্থান। তাদের অনেকে কয়েকবার মন্ত্রী ছিলেন, সমাজিক মর্যাদাও এমপি মন্ত্রী থেকে কম নয়, অনেক ক্ষেত্রে বেশি। তারা ভোট চাইতে পারবেন আর আমাদের নেতারা পারবেন না এটা বৈষম্যমূলক। এই বৈষম্যের অবসান হওয়া প্রয়োজন।’

তথ্যমন্ত্রী বলেন, 'ইভিএমে ভোট অত্যন্ত স্বচ্ছ ভোট। ঢাকা শহরে ইভিএমে ভোট হয়েছে। ইভিএম নিয়ে অনেক বিরূপ প্রচারণা চালিয়েছিল বিএনপি। বিএনপির এই বিরূপ প্রচারণার কারণে ভয়-ভীতির প্রেক্ষিতে অনেকে ভোট দিতে যায়নি। কিন্তু তারাও পরবর্তীতে অনুধাবন করেছে ইভিএমে অত্যন্ত স্বচ্ছ পদ্ধতিতে ভোট হয়। এখানে একজনের ভোট আরেকজনে দেওয়ার কোনো সুযোগ নাই। স্বয়ং সিইসি’র যখন ফিঙ্গার প্রিন্ট নিচ্ছে না তখন সিইসিকেও ভোট দেয়ার জন্য অনেকক্ষণ অপেক্ষা করতে হয়েছে।’

আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় সাংগঠনিক সম্পাদক (চট্টগ্রাম বিভাগ) আহমেদ হোসেন, শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল, আওয়ামী লীগের উপ প্রচার সম্পাদক আমিনুল ইসলাম, সিটি মেয়র ও নগর আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক আ জ ম নাছির উদ্দীন, চট্টগ্রাম দক্ষিণ জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি মোছলেম উদ্দিন আহমেদ এমপি-সহ সভায় আরো বক্তব্য রাখেন চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামী লীগ সভাপতি ও চট্টগ্রাম জেলা পরিষদ চেয়ারম্যান এম এ সালাম, সাধারণ সম্পাদক আতাউর রহমান খান, দক্ষিণের সাধারণ সম্পাদক মফিজুর রহমান, চট্টগ্রাম নগর আওয়ামী লীগের সহ সভাপতি খোরশেদ আলম সুজন, সহসভাপতি ও সিডিএ চেয়ারম্যান জহিরুল আলম দোভাষ, সাবেক সিডিএ চেয়ারম্যান ও নগর আওয়ামী লীগের কোষাধ্যক্ষ আবদুস সালাম প্রমুখ। 

#

আকরাম/রাহাত/মোশারফ/রেজাউল/২০২০/২১৩৩ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                     নম্বর : ৮৭৩

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় উন্নত রাষ্ট্রসমূহকে

পাশে থাকার আহ্বান জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রীর

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাব মোকাবিলায় সরকার যথাসাধ্য চেষ্টা করছে। জলবায়ু ঝুঁকি হ্রাসে বার্ষিক উন্নয়ন কর্মসূচি হতে গত পাঁচ বছরে প্রায় দুই বিলিয়ন মার্কিন ডলার ব্যয় করা হয়েছে। জলবায়ু সহিষ্ণুতা অর্জনে সরকারের নিজস্ব তহবিলে গঠিত জলবায়ু পরিবর্তন ট্রাস্ট ফান্ড হতে এ পর্যন্ত প্রায় চারশত পঞ্চাশ মিলিয়ন মার্কিন ডলার বা ৩ হাজার ৮ শত কোটি টাকা অভিযোজন ও প্রশমন কার্যক্রমে ব্যয় করা হয়েছে। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের সীমিত সম্পদ দিয়ে পরিপূর্ণভাবে জলবায়ু ঝুঁকি মোকাবিলা কষ্টসাধ্য। এজন্য বাংলাদেশ সরকার জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় উন্নত রাষ্ট্রসমূহকে পাশে চায়।

          মন্ত্রী আজ গুলশানের বেঙ্গল ব্লুবেরি হোটেলে কানাডার হাইকমিশন আয়োজিত জলবায়ুসহিষ্ণু অর্থনীতি বিষয়ক এক পলিসি ব্রেকফাস্ট ইভেন্টে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এসব কথা বলেন।

          জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ ক্লাইমেট চেঞ্জ স্ট্রাটেজি এন্ড একশন প্ল্যান হালনাগাদকরণ এবং আন্তর্জাতিক অঙ্গনে অভিযোজনের অগ্রাধিকার নিরসনে একটি কৌশলগত দলিল হিসেবে ন্যাশনাল এডাপটেশন প্ল্যান প্রণয়নের কাজ শুরু করা হয়েছে। তিনি বলেন, কপ-২৫ এ প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ক্লাইমেট ভালনারিবিলিটি ফোরামে (সিভিএফ)র সভাপতির দায়িত্ব গ্রহণে সম্মত হওয়ায় অতি শীঘ্র পরিবেশ অধিদপ্তরে সিভিএফ এবং ভালনারেবল-২০ গ্রুপের অফিস স্থাপন করা হবে। উক্ত অফিস থেকে জলবায়ু পরিবর্তন মোকাবিলায় আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের সাথে সমন্বয় সাধন করা হবে।

          বাংলাদেশে নিযুক্ত কানাডার হাইকমিশনার বেনোয়া প্রেফান্তে; পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয় সম্পর্কিত সংসদীয় স্থায়ী কমিটির সভাপতি সাবের হোসেন চৌধুরী, মন্ত্রণালয়ের সচিব জিয়াউল হাসান, অতিরিক্ত সচিব (পরিবেশ) মাহমুদ হাসান, অতিরিক্ত সচিব (উন্নয়ন) আহমদ শামীম আল রাজী-সহ কানাডিয়ান হাইকমিশন, সেন্টার ফর ইন্টারন্যাশনাল প্রাইভেট এন্টারপ্রাইজ এবং ইনস্টিটিউট অভ্ ইনফরমেটিক্স এন্ড ডেভেলপমেন্টর ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

#

দীপংকর/ফারহানা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২০৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর: ৮৭২

 

নারীর প্রতি সহিংসতা প্রতিরোধে ডাকসুর রয়েছে দায়িত্বশীল ভূমিকা

                                        -- মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ):

মহিলা ও শিশু বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা বলেছেন, বাংলাদেশের সকল উন্নয়ন ও অগ্রগতিতে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের আছে গৌরাবোজ্জ্বল ইতিহাস। তেমনি নারীর প্রতি সকল ধরনের সহিংসতা প্রতিরোধে ডাকসুর রয়েছে দায়িত্বশীল ভূমিকা। ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের অর্ধেক শিক্ষার্থী - ছাত্রীদের জন্য নারীবান্ধব ক্যাম্পাস তৈরিতে ডাকসু কাজ করবে বলে প্রতিমন্ত্রী আশাবাদ ব্যক্ত করেন। 

আজ ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের টিএসসিতে আন্তর্জাতিক নারী দিবস উপলক্ষে ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় কেন্দ্রীয় ছাত্র সংসদ (ডাকসু) আয়োজিত ‘স্যান্ডেলিনা উইমেন্স কার্নিভাল’ উপলক্ষে আন্তঃবিভাগ নারী বিতর্কের ফাইনাল রাউন্ডের সমাপনী ও পুরস্কার বিতরণ অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এসব কথা বলেন।

ফজিলাতুন নেসা ইন্দিরা এ সময় আরো বলেন, নারী উন্নয়নে বড় বাধা বাল্য বিয়ে। বাল্য বিয়ে নামক সামাজিক ব্যাধিকে সবাই মিলে সমাজ থেকে দূর করতে হবে।

ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়ের কোষাধ্যক্ষ ড. শিবলী রুবাইয়াতুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বক্তৃতা করেন ডাকসু জিএস গোলাম রাব্বানী, ডাকসু এজিএস মোঃ সাদ্দাম হোসেন ও ডাকসু সাহিত্য সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম শয়ন ।

#

 

আলমগীর/ফারহানা/মোশারফ/রেজাউল/২০২০/২০২৮ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৮৭১

সিঙ্গাপুর ওপেন জিমন্যাস্টিকস চ্যাম্পিয়নশিপ ২০১৯ এর পদকজয়ীদের সংবর্ধনা প্রদান

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল বলেছেন, ২০১৯ সালের ১ থেকে ৩ জুন সিঙ্গাপুরে অনুষ্ঠিত ১৬তম সিঙ্গাপুর ওপেন জিমন্যাস্টিকস টুর্নামেন্টে অনন্য কৃতিত্বের স¦াক্ষর রাখে বাংলাদেশের জিমন্যাস্টরা। জিমন্যাস্টদের উন্নত প্রশিক্ষণের জন্য সরকারের পক্ষ থেকে সর্বোচ্চ সহযোগিতা দেওয়া হবে।

          আজ ঢাকা ক্লাবের স্যামসন এইচ সেন্টারে আয়োজিত বাংলাদেশ জিমন্যাস্টিকস ফেডারেশন আয়োজিত পদকজয়ীদের সংবর্ধনা প্রদান ও পুরস্কার বিতরণী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় প্রতিমন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, আমাদের নানান সীমাবদ্ধতা আছে, এর ভেতর থেকেই আমাদের ক্রীড়াবিদরা দেশকে বিশ্বের দরবারে গৌরবোজ্জ¦ল করেন। তাদের সন্মান আমাদের কাছে অনেক বড়।

          অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ সচিব মাসুদ করিম, বাংলাদেশ জিমন্যাস্টিকস ফেডারেশানের সভাপতি শেখ বশির আহমেদ মামুন এবং সাধারণ সম্পাদক আহমেদুর রহমান বাবলু।

          উল্লেখ্য, প্রতিযোগিতার বিভিন্ন ইভেন্টে তারা ১৪টি স্বর্ণ, ৬টি রৌপ্য ও ৮টি ব্রোঞ্জ-সহ সর্বমোট ২৮টি পদক জয় করে।

#

আরিফ/ফারহানা/রফিকুল/জয়নুল/২০২০/১৯৪০ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ৮৭০

পার্বত্য চট্টগ্রামে আবাসিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে

                            - পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী

বান্দরবান, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          পার্বত্য চট্টগ্রাম বিষয়ক মন্ত্রী বীর বাহাদুর উশৈসিং বলেছেন, পার্বত্য চট্টগ্রামের সকল উপজেলায় পর্যায়ক্রমে আবাসিক বিদ্যালয় স্থাপন করা হবে। প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা পড়ালেখার মান বৃদ্ধি ও ঝরে পড়া রোধ-সহ শিক্ষার্থীদের বিদ্যালয়মুখী করতে পার্বত্য চট্টগ্রামে আবাসিক বিদ্যালয় স্থাপন করার নির্দেশনা দিয়েছেন।

          আজ বান্দরবানের নাইক্ষ্যংছড়িতে ছালেহ আহম্মদ উচ্চ বিদ্যালয়ের একাডেমিক ভবন ও খেলার মাঠে দর্শক গ্যালারি উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতাকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          মন্ত্রী বলেন, বর্তমান সরকারের সময়ে পার্বত্য চট্টগ্রামে অভূতপূর্ব উন্নয়ন সাধিত হয়েছে। বর্তমান সরকার রাঙ্গামাটিতে মেডিকেল কলেজ এবং বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিশ্ববিদ্যালয় স্থাপন করেছে।

          এ সময় অন্যদের মধ্যে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ শফিউল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ সুপার আলী হোসেন, পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের নির্বাহী প্রকৌশলী ইয়াছিন আরাফাত-সহ ঊর্ধ্বতন সরকারি কর্মকর্তাবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

          এর আগে মন্ত্রী পার্বত্য চট্টগ্রাম উন্নয়ন বোর্ডের বাস্তবায়নে ধুংড়ী হেডম্যানপাড়া বৌদ্ধ বিহার ও চেরাং ঘরের উদ্বোধন করেন।

#

নাছির/ফারহানা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/১৯২০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                             নম্বর :৮৬৯

করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সতর্কতা

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          করোনা ভাইরাস সম্পর্কে অহেতুক আতঙ্কিত না হয়ে বরং তা প্রতিরোধে সতর্কতা অবলম্বনের জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানানো হয়েছে।

          এ রোগের কোনো উপসর্গ যেমন জ্বর, গলাব্যাথা, শুকনো কাশি, শ্বাসকষ্ট, শ্বাসকষ্টের সাথে কাশি দেখা দিলে চিকিৎসকের পরামর্শ গ্রহণ করতে হবে। জনবহুল স্থানে চলাফেরার সময় মাস্ক ব্যবহার করতে হবে এবং পোষা প্রাণির সংস্পর্শ পরিহার করতে হবে। বাড়িঘর পরিষ্কার রাখতে হবে। বাইরে থেকে ঘরে ফিরে এবং খাবার আগে সাবান দিয়ে হাত পরিষ্কার করতে হবে। খাবার ভালোভাবে সিদ্ধ করে খেতে হবে।

          করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত বলে সন্দেহ হলে স্বাস্থ্য অধিদফতরের কন্ট্রোল রুমের হট লাইন ০১৯৩৭১১০০১১, ০১৯৩৭০০০৯১১, ০১৯২৭৭১১৭৮৪ ও ০১৯২৭৭১১৭৮৫ এ যোগাযোগের জন্য পরামর্শ দেয়া হয়েছে।

          করোনা ভাইরাস সম্পর্কে সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে বা অন্য কোনো ভাবে কোনো মিথ্যা বা ভুল তথ্য প্রচার নজরে আসলে তথ্য অধিদফতরের সংবাদকক্ষের ফোন নম্বর ৯৫১২২৪৬, ৯৫১৪৯৮৮, ০১৭১৫২৫৫৭৬৫, ০১৭১৬৮০০০০৮ এবং ইমেইল-piddhaka@gmail.com/piddhaka@yahoo.com অথবা ৯৯৯-এ যোগাযোগ করার জন্য সর্বসাধারণের প্রতি অনুরোধ জানানো হয়েছে।

#

ফারহানা/রাহাত/আব্বাস/২০২০/১৯০৫ ঘণ্টা   

 

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৮৬৮

ইলিশ সম্পদ উন্নয়নে ৪-১০ এপ্রিল জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ উদযাপন করা হবে

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          ইলিশ সম্পদ উন্নয়নে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের উদ্যোগে আগামী ৪-১০ এপ্রিল জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২০ উদ্যাপন করা হবে। এ উপলক্ষে বিস্তারিত কর্মসূচি গ্রহণ করেছে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়।

          আজ সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিমের সভাপতিত্বে ‘ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় টাস্কফোর্স’-এর সভায় জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২০ উদ্যাপনের কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে।

          সভায় মন্ত্রী বলেন, ‘জাটকা নিধনের সাথে জড়িতদের সকল কার্যক্রম বন্ধ করে দেয়া হবে। দেশ, জাতি ও আইনের শাসনের স্বার্থে জাটকা নিধনের সাথে সম্পৃক্ত নেপথ্যের প্রভাবশালীদের প্রতিহত করা হবে। আর ইলিশ আহরণ বন্ধকালীন জেলেদের জন্য অবশ্যই বিকল্প ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

          জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ ২০২০-এর ক্রোড়পত্র ৪ এপ্রিল জাতীয় দৈনিকে প্রকাশ, সকাল সাড়ে সাতটায় ঢাকায় মৎস্য ভবন থেকে জাতীয় প্রেস ক্লাব পর্যন্ত বর্ণাঢ্য র‌্যালি এবং দেশের ৬৪ জেলায় একই সময়ে স্থানীয় মৎস্যজীবী-সহ সংশ্লিষ্ট অংশীজনদের নিয়ে র‌্যালি অনুষ্ঠিত হবে। র‌্যালি শেষে মন্ত্রী ঢাকায় মৎস্য অধিদপ্তরে জাটকা সংরক্ষণ সপ্তাহ নিয়ে সংবাদ সম্মেলন করবেন।

          মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন সংশ্লিষ্ট দপ্তরসমূহের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, মন্ত্রিপরিষদ বিভাগ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়, জননিরাপত্তা বিভাগ, অর্থ বিভাগ, বাণিজ্য মন্ত্রণালয়, পানিসম্পদ মন্ত্রণালয়, নৌপরিবহন মন্ত্রণালয়, তথ্য মন্ত্রণালয়, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগ, পুলিশ হেডকোয়ার্টার্স, পরিকল্পনা কমিশন, বাংলাদেশ আনসার ও ভিডিপি, র‌্যাব, নৌ-পুলিশ, বাংলাদেশ কোস্টগার্ড-সহ ইলিশ সম্পদ উন্নয়ন সংক্রান্ত জাতীয় টাস্কফোর্স-এর প্রতিনিধিবৃন্দ সভায় উপস্থিত ছিলেন।

#

ইফতেখার/ফারহানা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/১৯১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর:  ৮৬৭

 

ব্লু-ইকোনমির বিকাশে বাংলাদেশ ও ভিয়েতনাম যুগপৎ কাজ করবে

বাংলাদেশে নিযুক্ত ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎকালে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

 

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ):

ব্লু-ইকোনমির বিকাশে বাংলাদেশ ও ভিয়েতনাম যুগপৎ কাজ করবে বলে জানিয়েছেন মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম।

আজ সচিবালয়ে তাঁর দপ্তরে বাংলাদেশে নিযুক্ত ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত Pham Viet Chien সাক্ষাৎ করতে এলে মন্ত্রী একথা জানান।

মন্ত্রী বলেন, ‘বাংলাদেশ ও ভিয়েতনামের মধ্যে সম্পর্ক অত্যন্ত চমৎকার।  বাংলাদেশ ও ভিয়েতনাম দু’টি দেশই দীর্ঘ সংগ্রাম করে স্বাধীনতা অর্জন করেছে। তাই দু’টি দেশের মধ্যে ঐতিহাসিক মিল রয়েছে। সামাজিক ও সাংস্কৃতিক ঐতিহ্যের জায়গাও দু’টি দেশের মধ্যে অনেক যোগসূত্র রয়েছে।’

ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত বলেন, ‘ভিয়েতনামের কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রণালয় এবং বাংলাদেশের মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরের মাধ্যমে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ খাতে বিভিন্ন ধরনের তথ্য ও অভিজ্ঞতা বিনিময়ে একসাথে কাজ করতে পারে। তথ্য বিনিময়ের মাধ্যমে দুটি দুশের সম্পর্ক আরো গভীর হতে পারে।’ এ বছর ভিয়েতনামের কৃষি ও পল্লী উন্নয়ন মন্ত্রীর বাংলাদেশ সফরের পরিকল্পনা রয়েছে বলেও রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীকে অবহিত করেন।

মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সচিব রওনক মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব কাজী ওয়াছি উদ্দিন, যুগ্মসচিব মোঃ তৌফিকুল আরিফ, প্রাণিসম্পদ অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ডাঃ আবদুল জব্বার শিকদার এবং বাংলাদেশ-ভিয়েতনাম চেম্বার অভ্ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রির সভাপতি এস এম রহমান এ সময় উপস্থিত ছিলেন।

আলোচনা শেষে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূতের হাতে মুজিববর্ষের স্মারক তুলে দেন এবং ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত মন্ত্রীর হাতে ভিয়েতনামের ঐতিহ্য সংম্বলিত একটি ক্রেস্ট তুলে দেন।

#

ইফতেখার/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮১৫ ঘণ্টা

 

তথ্যববিরণী                                                                                                      নম্বর: ৮৬৬

 

ভূমি রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া অটোমেশন করা হবে

                                         -- আইনমন্ত্রী

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ র্মাচ):

আইন, বিচার ও সংসদ বিষয়ক মন্ত্রী আনিসুল হক বলেছেন, ঢাকা ও চট্টগ্রাম-সহ সারা দেশের ভূমি রেজিস্ট্রেশন প্রক্রিয়া অটোমেশন করা হবে এবং ইতোমধ্যে এ সম্পর্কিত উন্নয়ন প্রকল্প প্রস্তাব (ডিপিপি) প্রস্তুতের কাজ চূড়ান্ত করা হয়েছে। তিনি বলেন, এই প্রক্রিয়ায় একই সাথে ভূমির  নামজারি, মালিকানা, রেকর্ড, খাজনা পরিশোধ, ভূমি জরিপের বিষয়সমূহ ভূমি নিবন্ধন কার্যক্রমের সাথে সমন্বয় করা হচ্ছে। এই পদক্ষেপ বাস্তবায়ন করা গেলে ব্যবসা সহজীকরণে সম্পত্তি নিবন্ধন সূচকের ইতিবাচক ও দৃশ্যমান অগ্রগতি অর্জিত হবে।

আজ ঢাকায় প্যানপ্যাসিফিক সোনারগাঁও হোটেলে বাংলাদেশ বিনিয়োগ উন্নয়ন কর্তৃপক্ষ (বিডা) আয়োজিত ব্যবসা সহজীকরণে সম্পত্তি নিবন্ধন সূচক বিষয়ক এক কর্মশালায় প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ বিষয়ক উপদেষ্টা সালমান এফ রহমান, এমপি এতে বিশেষ অতিথির বক্তৃতা করেন।

আনিসুল হক বলেন, ‘ব্যবসা কিংবা শিল্প দেশের একটি গুরুত্বপূর্ণ ক্ষেত্র। তিনি বলেন, বিনিয়োগের পরিবেশ নিশ্চিত করতে পারলেই দেশের উন্নয়নের ধারা অব্যাহত থাকবে। শিল্প এবং ব্যবসা সঠিক লক্ষ্যে যথাযথ গতিতে এগিয়ে চললে সাধারণ মানুষ এর দ্বারা উপকৃত হবেন। উন্নত বাংলাদেশ  বিনির্মাণের জন্য আমাদের সকলকে সম্মিলিতভাবে সহযোগিতার মাধ্যমে বিনিয়োগকারীদের সর্বোচ্চ সেবা দিতে হবে।’

মন্ত্রী বলেন, ২০১৯ সালের ব্যবসা সহজীকরণ বিষয়ক বিশ্বব্যাংকের প্রতিবেদন অনুযায়ী বিশ্বের  ১৯০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান ১৬৮তম, বিগত বছরে ছিল ১৭৬তম। এ অগ্রগতি সত্ত্বেও আমরা দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে শুধু আফগানিস্তান থেকে এগিয়ে আছি। আমাদেরকে আগামী ২০২১ সালের মধ্যে ব্যবসা সহজীকরণের সূচকে দুই অংকের অবস্থানে যেতে হবে। কাজেই এক্ষেত্রে আরো অনেক উন্নতি করতে হবে।

বিডা’র নির্বাহী চেয়ারম্যান মোঃ সিরাজুল ইসিলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে আইন ও বিচার বিভাগের সচিব মোঃ গোলাম সারওয়ার, লেজিসলেটিভ ও ড্রাফটিং বিভাগের সচিব নরেন দাস, নিবন্ধন অধিদপ্তরের মহাপরিদর্শক শহীদুল আলম ঝিনুক, ঢাকা মেট্টোপলিটান চেম্বার অভ্ কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রিজের সভাপতি নিহাদ কবীর প্রমুখ বক্তৃতা করেন।

#

রেজাউল করিম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮১০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ৮৬৫

আইসিসি’র কর্মশালায় বাণিজ্যমন্ত্রী

ক্রমবর্ধমান বিশ্ববাণিজ্যে বিধিবিধান সময়োপযোগী হওয়া প্রয়োজন

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ) :

          বাণিজ্যমন্ত্রী টিপু মুনশি বলেছেন, ক্রমবর্ধমান বিশ্ববাণিজ্যে বিধিবিধান সময়োপযোগী হওয়া প্রয়োজন। বাণিজ্য বিরোধ নিরসনে ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অভ্ কমার্স (আইসিসি) গুরুত্বপূর্ণ দায়িত্ব পালন করে যাচ্ছে। প্রতিযোগিতামূলক বিশ্ববাণিজ্যে নতুন নতুন সমস্যা দেখা দেয়। এজন্য প্রচলিত নিয়ম-কানুনগুলোরও পরিবর্তন প্রয়োজন হয়। ওয়ার্ল্ড বিজনেস অর্গানাইজেশনের সহায়তায় মাঝে মাঝে তাল মিলিয়ে নতুন রুলস প্রবর্তন করা হয়। এজন্য নিউ ইনকোটার্মস-২০২০ রুলস চালু হতে যাচ্ছে।

          মন্ত্রী আজ ঢাকায় হোটেল ইন্টারকন্টিনেন্টালে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অফ কমার্স (বিআইসিসি) আয়োজিত কর্মশালায় দ্বিতীয় সেশনে নিউ ইনকোটার্মস-২০২০ রুলস এর মোড়ক উন্মোচন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন।

          বাণিজ্যমন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ আন্তর্জাতিক বাণিজ্যে দ্রুত এগিয়ে যাচ্ছে। বাংলাদেশের উন্নয়ন এখন দৃশ্যমান। বিদেশি বিনিয়োগও বাড়ছে। গত বছর ৮ দশমিক ১৫ ভাগ জিডিপি অর্জিত হয়েছে। এ বছর জুলাই অক্টোবর সময়ে দেশে ৫ দশমিক শূন্য ৯ বিলিয়ন মার্কিন ডলার ফরেন ডাইরেক্ট ইনভেস্টমেন্ট এসেছে। গতবছর দেশের রপ্তানি আয় ছিল ৩৯ দশমিক ৩৩ বিলিয়ন মার্কিন ডলার। দিন দিন সালিশের মাধ্যমে বাণিজ্য বিরোধ সমাধানের গ্রহণযোগ্যতা বাড়ছে।

          পরে বাণিজ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের প্রশ্নের জবাবে বলেন, করোনা ভাইরাস(কোভিড-১৯) এর কারণে বাংলাদেশে বাণিজ্য ক্ষেত্রে এর প্রভাব গভীরভাবে পর্যবেক্ষণ করা হচ্ছে। বাংলাদেশ সরকার এ ক্ষেত্রে সর্বোচ্চ সতর্কতা অবলম্বন করছে।

          অনুষ্ঠানে বাংলাদেশ ইন্টারন্যাশনাল চেম্বার অভ্ কমার্সের প্রেসিডেন্ট মাহবুবুর রহমান, মিউচুয়াল ট্রাস্ট ব্যাংকের ব্যবস্থাপনা পরিচালক ও সিইও সৈয়দ মাহবুবুর রহমান এবং আইসিসি বাংলাদেশ ব্যাংকিং কমিশনের চেয়ারম্যান ও সিইও মুহাম্মদ এ রুমি আলী উপস্থিত ছিলেন।

#

বকসী/ফারহানা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/১৮১০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর: ৮৬৪

 

মুজিববর্ষ উপলক্ষে পরিবেশ মন্ত্রণালয়ে ডিজিটাল কিয়স্ক উদ্বোধন

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ):

পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন আজ সচিবালয়ের ১৪ তলায়  মন্ত্রণালয়ের অতিথি বিশ্রামাগারে মুজিববর্ষ উপলক্ষে ডিজিটাল কিয়স্কের উদ্বোধন করেছেন।

কিয়স্ক উদ্বোধনকালে মন্ত্রী বলেন, জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান পরিবেশ সংরক্ষণের গুরুত্ব উপলব্ধি করেছিলেন। প্রাকৃতিক ভারসাম্য বজায় রাখতে বঙ্গবন্ধু বৃক্ষ রোপণ, হাওর, নদী ও অন্যান্য জলাভূমির উন্নয়ন এবং উপকূলীয় বনভূমি সৃজনে বিভিন্ন কর্মসূচি বাস্তবায়ন করেছিলেন। জাতির পিতার জন্মশতবর্ষ উপলক্ষে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ে স্থাপিত এই কিয়স্কের মাধ্যমে আগত দর্শনার্থীরা পরিবেশ সংরক্ষণে জাতির পিতার বৃক্ষরোপণ-সহ পরিবেশ সংরক্ষণের অন্যান্য বিষয়ে জানতে পারবে।

মন্ত্রী বলেন, মন্ত্রণালয়ের উল্লেখযোগ্য কার্যক্রমের স্থির এবং ভিডিও চিত্রও এ কিয়স্কে মুজিববর্ষ ব্যাপী প্রদর্শিত হবে। বৃক্ষ রোপণ, জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণে জনসচেতনতা সৃষ্টিতে, ‘সুরক্ষিত গাছ নির্মল বায়ু, বৃদ্ধি পাবে মোদের আয়ু’ ; ‘সবাই মিলে লাগাই বৃক্ষ, মুজিব বর্ষে শতলক্ষ ’ এবং ‘জীববৈচিত্র্য সংরক্ষণ করি, ধরিত্রী রক্ষা করি’ ইত্যাদি স্লোগান অফিস চলাকালীন প্রদর্শন করা হবে। তিনি জানান, এ কিয়স্কের মাধ্যমে মুজিববর্ষ উপলক্ষে মন্ত্রণালয়ের বাস্তবায়িতব্য কার্যক্রম সম্পর্কে আগত ব্যক্তিবর্গ জানতে পারবে।

এ সময় অন্যান্যের মধ্যে পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রণালয়ের সচিব জিয়াউল হাসান এনডিসি-সহ মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।

#

দীপংকর/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৭৫৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                      নম্বর: ৮৬৩ 

 

২০ লাখ মানুষের জলাবদ্ধতাগত দুর্ভোগ কমাবে ডিএনডি প্রকল্প

                      -- পানিসম্পদ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ২৪ ফাল্গুন (৮ মার্চ):

পানি সম্পদ প্রতিমন্ত্রী জাহিদ ফারুক বলেছেন, ঢাকা-নারায়নঞ্জ-ডেমরা (ডিএনডি) এর গুরুত্বের কথা বিবেচনা করে প্রায় ৫৫৮ কোটি টাকার এই প্রকল্পটি ২০১৬

2020-03-08-22-49-2a833eaf51dc7dc035430cceaef1c240.docx 2020-03-08-22-49-2a833eaf51dc7dc035430cceaef1c240.docx

Share with :

Facebook Facebook