তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৩ এপ্রিল ২০১৫

তথ্যবিবরণী 13/04/2015

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৬১

পররাষ্ট্রমন্ত্রীর সাথে স্পেনের বিদায়ী রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  
পররাষ্ট্রমন্ত্রী আবুল হাসান মাহমুদ আলীর সাথে আজ ঢাকায় তাঁর মন্ত্রণালয়ে বাংলাদেশে স্পেনের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত লুইস তেয়াদা সাকোঁ (খঁরং ঞবলধফধ ঈযধপড়হ) সাক্ষাৎ করেন।    
    সাক্ষাৎকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও রাষ্ট্রদুত বাংলাদেশ ও স্পেনের মধ্যে পারস্পারিক স্বার্থসংশ্লিষ্ট দ্বিপাক্ষিক বিষয়াদি নিয়ে আলোচনা করেন। উভয়েই দু’দেশের মধ্যে বিদ্যমান চমৎকার বন্ধুত্বপূর্ণ সম্পর্ক আরো সুদৃঢ় হবে বলে আশা প্রকাশ করেন এবং এলক্ষ্যে একযোগে কাজ করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন।
    সাড়ে ৩ বছরেরও অধিককাল বাংলাদেশে দায়িত্ব পালনকালে সকল প্রকার  সহযোগিতার জন্য স্পেনের বিদায়ী রাষ্ট্রদূত পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও পররাষ্ট্র মন্ত্রণলয়ের প্রতি আন্তরিক ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি এদেশে তাঁর কর্মকাল অত্যন্ত আনন্দময় ও ফলপ্রসূ ছিল বলে অভিমত ব্যক্ত করেন।
#

খালেদা/সাইফুল্লাহ/মিজান/আলম/জসীম/জয়নুল/২০১৫/২১০০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ১০৬০

পররাষ্ট্রমন্ত্রী ও প্রতিমন্ত্রীর সাথে সফররত বিদেশি সাংবাদিকদের সাক্ষাৎ

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :

পররাষ্ট্রমন্ত্রী এ এইচ মাহমুদ আলীর সাথে আজ ঢাকায় তাঁর মন্ত্রণালয়ে সফররত বিদেশি সাংবাদিকগণ সাক্ষাৎ করেন। পররাষ্ট্র মন্ত্রণালয়ের বহিঃপ্রচার অনুবিভাগের ভিজিট বাংলাদেশ কর্মসূচির আওতায় আমেরিকার ওয়াল স্ট্রিট জার্নাল, ভারত, থাইল্যান্ড, মিশর ও দি নেদারল্যান্ডস্ এর বিভিন্ন গণমাধ্যমের ১১ জন সাংবাদিক ১২ হতে ১৭ এপ্রিল পর্যন্ত ঢাকা সফর করছেন।

    সাক্ষাৎকালে পররাষ্ট্রমন্ত্রী বিদেশি সাংবাদিকদের বাংলাদেশের ইতিহাস, সংস্কৃতি, বৈদেশিক সম্পর্ক, অর্থনীতি প্রভৃতি বিষয় সম্পর্কে অবহিত করেন। তিনি সাংবাদিকদের নিকট সন্ত্রাসবাদের বিরুদ্ধে বাংলাদেশের অবস্থান তুলে ধরেন।

এরপর সাংবাদিকগণ সাক্ষাৎ করেন পররাষ্ট্র প্রতিমন্ত্রী মোঃ শাহ্রিয়ার আলমের সাথে। এসময় বাংলাদেশের অর্থনৈতিক অগ্রগতি, অর্থনৈতিক কূটনীতি, বৈদেশিক বাণিজ্য, ভাষা, সংস্কৃতি, আন্তর্জতিক অঙ্গনে বাংলাদেশের উজ্জ্বল অবস্থান প্রভৃতি বিষয় নিয়ে আলোচনা হয়। প্রতিমন্ত্রী বিদেশি গণমাধ্যম প্রতিনিধিদের জানান, সহ¯্রাব্দ লক্ষ্যমাত্রা অর্জনে বাংলাদেশের অভাবনীয় সাফল্যের প্রেক্ষিতে ২০১৫ উত্তর টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা নির্ধারণে জাতিসংঘের মহাসচিব প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সক্রিয় সমর্থন চেয়েছেন।

এছাড়াও সফররত সাংবাদিকবৃন্দ তথ্যমন্ত্রী হাসানুল হক ইনু, প্রধানমন্ত্রীর রাজনৈতিক উপদেষ্টা এইচ টি ইমাম, পররাষ্ট্র বিষয়ক উপদেষ্টা গওহর রিজভী এবং তথ্য উপদেষ্টা ইকবাল সোবহান চৌধুরীর সাথে সাক্ষাৎ করেন।

তাঁরা পহেলা বৈশাখে রাজধানী ঢাকায় বিভিন্ন অনুষ্ঠানে যোগ দেবেন এবং বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান পরিদর্শন করবেন। এছাড়াও তাঁরা চট্টগ্রামের বিভিন্ন দর্শনীয় স্থান এবং রপ্তানি প্রক্রিয়াকরণ এলাকা সফর করবেন।

#

খালেদা/সাইফুল্লাহ/মোশারফ/রেজাউল/২০১৫/২০২৮ ঘণ্টা
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ১০৫৯

স্বাস্থ্যমন্ত্রীর সাথে সাক্ষাৎকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূত
তৃণমূল স্বাস্থ্যসেবায় বাংলাদেশ বিশ্বব্যাপী পথপ্রদর্শক

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :
ঢাকায় নবনিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া এস বি বার্নিকেট (গধৎপরধ ঝঃবঢ়যবহং ইষড়ড়স ইবৎহরপধঃ) ঢাকার কিডনি হাসপাতালে ৭০টি এবং চট্টগ্রাম মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে ৪০টি ডায়ালাইসিস মেশিন প্রদানের আগ্রহপ্রকাশ করেছেন।
আজ সচিবালয়ে স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী মোহাম্মদ নাসিমের সাথে সাক্ষাৎকালে মার্কিন রাষ্ট্রদূত এ আগ্রহের কথা ব্যক্ত করেন।
মার্কিন রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের গ্রামীণ স্বাস্থ্যসেবার দ্রুত উন্নয়নের প্রশংসা করে বলেন, তৃণমূলপর্যায়ে স্বাস্থ্যসেবা প্রসারে বাংলাদেশ আজ বিশ্বব্যাপী পথপ্রদর্শকের ভূমিকা পালন করছে।
স্বাস্থ্যসেবায় বাংলাদেশ যেসব পদক্ষেপ নিয়েছে তা উন্নয়নশীল বিশ্বের কাছে মডেল হিসেবে দাঁড়িয়েছে উল্লেখ করে মার্কিন রাষ্ট্রদূত বলেন,  শিশু ও গর্ভকালীন মাতৃমৃত্যুর হার কমিয়ে আনার ক্ষেত্রে বাংলাদেশ এশিয়ার অন্যান্য দেশের তুলনায় এগিয়ে রয়েছে। এক্ষেত্রে তিনি সিলেটসহ যেসব এলাকায় জনসংখ্যা বৃদ্ধির হার বেশি সেখানে গবেষণা পরিচালনার জন্য সহায়তার আশ্বাস প্রদান করেন।
রাষ্ট্রদূত বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে গভীর সন্তোষপ্রকাশ করে বলেন, যে সবক্ষেত্রে এখনো উন্নতির সুযোগ রয়েছে সেসবক্ষেত্রে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র এবং বাংলাদেশ যৌথভাবে পাবলিক প্রাইভেট পার্টনারশিপের ভিত্তিতে কাজ করতে পারে।
স্বাস্থ্যমন্ত্রী এ সময় জানান, যুক্তরাষ্ট্র ও বাংলাদেশের মধ্যকার সম্পর্ক দিন দিন জোরদার হচ্ছে। বিশেষকরে বাংলাদেশের বিভিন্নখাতে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের সহায়তা এ দেশের অগ্রযাত্রার পথকে মসৃণ করে তুলেছে। এই দুই বন্ধুপ্রতিম দেশের সম্পর্ক আরো বেগবান করার জন্য বাংলাদেশ সব সময় সহযোগিতার হাত বাড়িয়ে রাখবে। মন্ত্রী আগামীতে বাংলাদেশের স্বাস্থ্যখাতের উন্নয়নে যুক্তরাষ্ট্র সরকারের অব্যাহত সহযোগিতা কামনা করেন।
#

পরীক্ষিৎ/সাইফুল্লাহ/আলম/রফিকুল/রেজাউল/২০১৫/২০১৪ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৫৭

ইস্টার্ন রিফাইনারির দ্বিতীয় ইউনিট চালুর লক্ষে জমির লিজচুক্তি স্বাক্ষর

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  
দেশের জ্বালানিনিরাপত্তা জোরদার করতে ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেডের (ইআরএল) দ্বিতীয় ইউনিট চালু করবে জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়। চট্টগ্রামের পতেঙ্গায় অবস্থিত শিল্প মন্ত্রণালয়ের আওতাধীন প্রতিষ্ঠান জেনারেল ইলেকট্রিক ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেড (জিইএমকো) এর ৩০ একর জমির ওপর এ ইউনিট চালু করা হবে। এ লক্ষ্যে আজ ঢাকায় শিল্পমন্ত্রণালয়ে জিইএমকো এবং ইআরএল এর মধ্যে জমির লিজচুক্তি
স্বাক্ষরিত হয়।
জিইএমকো এর পক্ষে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী মোঃ ফখরুল ইসলাম এবং ইআরএল এর পক্ষে প্রতিষ্ঠানের ব্যবস্থাপনা পরিচালক প্রকৌশলী জি এম এ আফজাল চুক্তিতে স্বাক্ষর করেন। চুক্তিস্বাক্ষর অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী আমির হোসেন আমু, বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ, শিল্পসচিব মোঃ মোশাররফ হোসেন ভূঁইয়া, জ্বালানি সচিব মোঃ আবুবকর ছিদ্দিক, বিএসইসি’র চেয়ারম্যান ইমতিয়াজ হোসেন চৌধুরীসহ উভয় মন্ত্রণালয় ও প্রতিষ্ঠানের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
অনুষ্ঠানে শিল্পমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা রাষ্ট্রায়ত্ত শিল্পপ্রতিষ্ঠানে উৎপাদিত পণ্য অগ্রাধিকারভিত্তিতে ব্যবহারের জন্য সরকারি দপ্তর/প্রতিষ্ঠানগুলোকে নির্দেশনা দিয়েছেন। জিইএমকো উৎপাদিত ট্রান্সফরমার অত্যন্ত গুণগতমানের। বিপিডিবি, ডিপিডিসি, ডেসকো, ওজোপাডিকো ও পল্লি বিদ্যুতায়ন বোর্ড সরাসরি ক্রয়পদ্ধতিতে এগুলো নিয়মিতভাবে কিনতে পারে। এর মাধ্যমে রাষ্ট্রায়ত্ত এ শিল্পপ্রতিষ্ঠান লাভজনক হবে। তিনি এটি নিশ্চিত করতে বিদ্যুৎপ্রতিমন্ত্রীর দৃষ্টিআকর্ষণ করেন। জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ জিইএমকো উৎপাদিত ইলেকট্রিক টান্সফরমার সরাসরি ক্রয় করার জন্য শিল্পমন্ত্রীর দেয়া প্রস্তাবের প্রতি ঐকমত্য পোষণ করেন। তিনি বলেন, জ্বালানি ও খনিজসম্পদ বিভাগ এ লক্ষ্যে জিইএমকো’র সাথে দীর্ঘমেয়াদি চুক্তি করতে আগ্রহী। তিনি জিইএমকো’র উৎপাদিত টান্সফরমারের মূল্য বাজারের অন্যান্য টান্সফরমারের সাথে প্রতিযোগিতামূলক করার পরামর্শ দেন।  
উল্লেখ্য, চুক্তি অনুযায়ী ইস্টার্ন রিফাইনারি লিমিটেড (ইআরএল) লিজমানি হিসেবে জেনারেল ইলেকট্রিক ম্যানুফ্যাকচারিং কোম্পানি লিমিটেডকে (জিইএমকো) ২শ’ কোটি টাকা দেবে। ৪০ বছরের জন্য এ চুক্তি কার্যকর থাকবে। এ চুক্তির ফলে প্রাপ্তঅর্থ ব্যবহার করে রাষ্ট্রায়ত্ত প্রতিষ্ঠান জিইএমকো’র আধুনিকায়ন সম্ভব হবে। এতে প্রতিষ্ঠানটির লাভজনক শিল্পে পরিণত হওয়ার সুযোগ তৈরি হবে। এর পাশাপাশি ইআরএল’র দ্বিতীয় ইউনিট চালুর মাধ্যমে দেশে জ্বালানিনিরাপত্তা জোরদার হবে বলে আশা করা হচ্ছে।
#

জলিল/সাইফুল্লাহ/মিজান/মোশারফ/জয়নুল/২০১৫/১৯৪৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ১০৫৬
বাণিজ্যমন্ত্রীর সাথে মার্কিন রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ
তৈরিপোশাক খাতে গৃহীত পদক্ষেপে ইউএসটিআর এর সন্তোষ প্রকাশ
ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  
    বাণিজ্যমন্ত্রী তোফায়েল আহমেদ বলেছেন, অপ্রত্যাশিত রানাপ্লাজা দুর্ঘটনার পর তৈরিপোশাক খাতে বাংলাদেশ সরকারের গৃহীত পদক্ষেপ এবং অর্জিত সাফল্যে ইউনাইটেড স্টেট ট্রেড রিপ্রেজেনটেটিভ (ইউএসটিআর) সন্তোষ প্রকাশ করেছেন। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রসহ ক্রেতাগোষ্ঠীর দেওয়া ১৬ দফা শর্তপূরণের অগ্রগতিতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র সন্তুষ্ট।
    মন্ত্রী আজ ঢাকায় বাংলাদেশ সচিবালয়ে তাঁর কার্যালয়ে ঢাকায় নিযুক্ত মার্কিন রাষ্ট্রদূত মার্সিয়া এস বি বার্নিকেট (গধৎপরধ ঝ. ই. ইবৎহরপধঃ)-এর সঙ্গে মতবিনিময়ের পর সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে একথা বলেন।
    মন্ত্রী বলেন, মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র বাংলাদেশের সাথে বাণিজ্যবৃদ্ধিতে আগ্রহী। মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের বাজারে বাংলাদেশি তৈরিপণ্যের রপ্তানি বৃদ্ধি পাচ্ছে। এক্ষেত্রে চলমান সমস্যাগুলো সমাধানের বিষয়ে উভয়দেশ প্রয়োজনীয় পদক্ষেপ গ্রহণ করতে সম্মত। মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের রপ্তানিবাণিজ্য বেড়েই চলছে। জিডিপির প্রবৃদ্ধি ৬ ভাগের বেশি থাকবে।
    তোফায়েল আহমেদ বলেন, বাংলাদেশ সরকার তৈরিপোশাক খাতের শ্রমিকদের কর্মবান্ধব ও নিরাপদ কাজের পরিবেশ সৃষ্টি করেছে। শুল্কমুক্ত ফায়ার সেফটি ডোর আমদানির সুযোগ দেওয়া হয়েছে। কারখানার বিল্ডিংসেফটি, ফায়ারসেফটি নিশ্চিত করা হয়েছে। সরকার সফলতার সাথে ক্রেতাগোষ্ঠীর দেওয়া একশনপ্ল্যান বাস্তবায়ন করেছে। ক্রেতাদের সংগঠন একোর্ড এবং এলায়েন্স এ পর্যন্ত প্রায় আড়াইহাজার কারখানাবিল্ডিং পরিদর্শন করেছে। এরমধ্যে ২৯টি কারখানা ভবন ব্যবহার অযোগ্য ঘোষিত হয়েছে, সেগুলো তাৎক্ষণিকভাবে বন্ধ করে দেওয়া হয়েছে। আনুপাতিক হারে এর সংখ্যা শতকরা দু‘ভাগের কম। আন্তর্জাতিক ভাবে শতকরা দু‘ভাগের বেশি গ্রহণযোগ্য।
    মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশের তৈরিপোশাক কারখানার পরিবেশ ও শ্রম অধিকার নিয়ে ইউএস এইড এবং ইউকে এইড এর অর্থায়নে ডেমোক্রেসি ইন্টারন্যাশনাল একটি সমীক্ষা পরিচালনা করে। এতে দেখা গেছে, তৈরিপোশাক কারখানার শ্রমিকরা বর্তমান কাজের পরিবেশে ও প্রাপ্ত মজুরিতে সন্তুষ্ট এবং তারা নিজেদের কারখানার শ্রমিকদের মধ্যহতে তাদের প্রতিনিধি নির্বাচন করতে আগ্রহী।
    তোফায়েল আহমেদ বলেন, অপ্রত্যাশিত রানাপ্লাজা দুর্ঘটনার পর বাংলাদেশের তৈরিপোশাক শিল্প নিয়ে দেশে-বিদেশে অনেক ষড়যন্ত্র ও অপপ্রচার চালানো হয়েছে। যারা অপপ্রচার চালিয়েছেন, তারা কেউ কোনভাবেই বাংলাদেশের কোন তৈরিপোশাক কারখানার সাথে সংশ্লিষ্ট নন। যে কোন অভিযোগের বিষয়ে সংশ্লিষ্ট কারখানা পরিদর্শন করলেই এর প্রকৃত অবস্থা জানা যাবে।
    বাণিজ্য মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব হেদায়েতুল্লাহ আল মামুন এবং অতিরিক্ত সচিব (রপ্তানি) মোঃ শওকত আলী ওয়ারেছী এসময় উপস্থিত ছিলেন।
    পরে মন্ত্রী ঢাকায় নিযুক্ত রাশিয়ান ফেডারেশনের রাষ্ট্রদূত আলেকজেন্ডার এ নিকোলেভ (অষবীধহফবৎ অ ঘরশড়ষধবা) এবং রাশিয়ান ফেডারেশনে নিযুক্ত বাংলাদেশের রাষ্ট্রদূত ড. এস এম সাইফুল হকের সঙ্গে মতবিনিময় করেন। এসময় দ্বিপাক্ষিক বাণিজ্য ও বিনিয়োগবৃদ্ধি বিষয়ে  আলোচনা করা হয়।
#
বকসী/সাইফুল্লাহ/মিজান/জসীম/জয়নুল/২০১৫/১৮৫৫ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১০৫৫

পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর
কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য ২৯ চৈত্র ও ২ বৈশাখ ঐচ্ছিক ছুটি ঘোষণা

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :

    সরকার, ‘বৈসাবি’ বা ‘বৈসুক’, ‘সাংগ্রাই’, ‘বিজু’, ‘ফুল বিজু’, ‘গজ্যাপজ্যা দিন’, ‘বৈসুমা’, ‘হারিবৈসু’, ‘বিসিকাতাল’ প্রভৃতি সামাজিক উৎসব উৎসাহ উদ্দীপনার সঙ্গে পালনের সুবিধার্থে পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর অন্তর্ভুক্ত কর্মকর্তা কর্মচারীদের জন্য বাংলা বর্ষপঞ্জি অনুযায়ী ২৯ চৈত্র ও ২ বৈশাখ ঐচ্ছিক ছুটি ঘোষণা করেছে।

    পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার বাইরে কর্মরত উক্ত এলাকার ক্ষুদ্র নৃগোষ্ঠীর কর্মকর্তা কর্মচারীগণও এই ঐচ্ছিক ছুটি ভোগ করতে পারবেন।

    উল্লেখ্য, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের ১০ নভেম্বর ২০১৪ এর এক প্রজ্ঞাপনে পহেলা বৈশাখ নির্বাহী আদেশে সরকারি ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের স্পেশাল অ্যাফেয়ার্স বিভাগের ২ এপ্রিল ১৯৯৪ এর এক পরিপত্রে ৩০ চৈত্র পার্বত্য চট্টগ্রাম এলাকার জন্য বিশেষ স্থানীয় ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

#

সাইফুল্লাহ/আলম/রফিকুল/রেজাউল/২০১৪/১৮৫৪ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ১০৫৪

সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের কারণে স্থগিতকৃত
এইচএসসি পরীক্ষা ২, ৪ ও ১৬ মে অনুষ্ঠিত হবে

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :

    সিটি কর্পোরেশন নির্বাচনের কারণে এইচএসসি এবং আলিম/ভোকেশনাল/সমমান পরীক্ষা ২০১৫-এর ২৬, ২৭ ও ২৮ এপ্রিলের স্থগিতকৃত পরীক্ষা যথাক্রমে ২, ৪ ও ১৬ মে অনুষ্ঠিত হবে।

    ৮টি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড, বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড ও বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড-এর ২৬ এপ্রিলের সকাল ১০টা ও বিকেল ২টার পরীক্ষা ২ মে শনিবার যথাক্রমে সকাল ১০টা ও বিকেল ২টায় অনুষ্ঠিত হবে।
 
    বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ডের ২৭ এপ্রিলের পরীক্ষা ৪ মে সোমবার সকাল ১০টায় অনুষ্ঠিত হবে।

    ৮টি মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিক শিক্ষাবোর্ড, বাংলাদেশ মাদরাসা শিক্ষাবোর্ড ও বাংলাদেশ কারিগরি শিক্ষাবোর্ড-এর ২৮ এপ্রিলের সকাল ১০টা ও বিকেল ২টার পরীক্ষা ১৬ মে শনিবার যথাক্রমে সকাল ১০টা ও বিকেল ২টায় অনুষ্ঠিত হবে।

#

সুবোধ/সাইফুল্লাহ/আলম/জসীম/রেজাউল/২০১৫/১৮৩৫ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                           নম্বর : ১০৫৩

নতুন ব্যবস্থায় জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের পরীক্ষার ফল প্রকাশ


ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :

 


    জাতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের অধীনে অনুষ্ঠিত ২০১৪ সালের ঈঝঊ ১ম বর্ষ ১ম সেমিস্টার এবং ২০১৩ সালের ১ম বর্ষ ২য় সেমিস্টার পরীক্ষার ফল আজ নতুন ব্যবস্থাধীনে প্রকাশ করা হয়েছে। এ পদ্ধতিতে কেন্দ্র হতে পরীক্ষার্থীদের হাজিরা এবং পরীক্ষার উত্তরপত্র মূল্যায়ন শেষে পরীক্ষার্থীদের নম্বর অনলাইনে সরাসরি বিশ্ববিদ্যালয় সার্ভারে প্রেরণ করা হয়। সফ্টওয়ার এর মাধ্যমে এ ফলাফল প্রস্তুত করা হয়।
    দেশের ৭টি জেলা শহরে অনুষ্ঠিত এ পরীক্ষায় ৯১৯ জন পরীক্ষার্থী অংশগ্রহণ করে। ভবিষ্যতে বিশ্ববিদ্যালয়ের সকল পরীক্ষার ফল পর্যায়ক্রমে এ পদ্ধতিতে প্রকাশ করা হবে। বিশ্ববিদ্যালয়ের সেশনজট নিরসন এবং সম্পূর্ণ আইটি নির্ভর বিশ্ববিদ্যালয় হিসেবে রূপান্তরিত করার ক্ষেত্রে অনলাইন পদ্ধতিতে পরীক্ষার ফল প্রকাশ একটি উল্লেখযোগ্য পদক্ষেপ। প্রকাশিত ফলাফল বিশ্ববিদ্যালয়ের ওয়েবসাইট িি.িহঁ.বফঁ.নফ এবং িি.িহঁনফ.রহভড় তে পাওয়া যাবে।
#


ফয়জুল/মোহাম্মদ আলী/শুকলা/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৫/১৫৩০ ঘণ্টা  
 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৫২   


সহ¯্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে টেকসই রূপ দিতে হবে
                                                - স্পিকার

ওয়াশিংটন ডিসি, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  

    জাতীয় সংসদের স্পিকার এবং সিপিএ নির্বাহী কমিটির চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, দারিদ্র্যমোচন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, জেন্ডার সমতা, নারীর ক্ষমতায়নসহ সমগ্র পৃথিবীর টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে পার্লামেন্টারি নেটওয়ার্ক, বিশ্বব্যাংক, আইএমএফসহ পৃথিবীর সকল দেশের সংসদসদস্যদের একযোগে কাজ করতে হবে। বৈশ্বিক উন্নয়নের সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সহ¯্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পর তাকে টেকসই রূপ দিতে হবে।
গতকাল মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনস্থ ওয়ার্ল্ড ব্যাংক ভবনের প্রেসটন অডিটোরিয়ামে চধৎষরধসবহঃধৎু ঘবঃড়িৎশ ড়হ ঃযব ডড়ৎষফ ইধহশ ্ ওগঋ আয়োজিত ‘এষড়নধষ চধৎষরধসবহঃধৎু ঈড়হভবৎবহপব : এবহফবৎ ঊয়ঁধষরঃু ্ ডড়সবহ'ং জরমযঃং রহ ঃযব ঢ়ড়ংঃ ২০১৫’ শীর্ষক আলোচনা অনুষ্ঠানে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।  
স্পিকার বলেন, জনগণের ক্ষমতায়নের মূল ভূমিকা সংসদসদস্যরাই পালন করে। সংবিধানের চেতনাকে সমুন্নত রেখে সংসদকে সকল সমস্যা সমাধানের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করতে হবে। বিশ্বজুড়ে হতদরিদ্রদের
মধ্যে নারী অন্যতম। নারীর দুঃখ দুর্দশামোচনে সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতিমালায় পরিবর্তন এনে জেন্ডার সংবেদনশীলতাকে প্রাধান্য দিতে হবে। শ্রমবাজারে নারীদের উপযুক্ত সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। খাদ্য, স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক কর্মকা-ে নারীদের জন্য সমতাভিত্তিক সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে।          
তিনি আরও বলেন, বিশ্বায়নের এই যুগে জেন্ডারসমতা, নারী ক্ষমতায়নসহ টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করে গণতন্ত্রকে বিকশিত করতে যে সকল চ্যালেঞ্জ রয়েছে সেগুলি উত্তরণে সংসদসদস্যসহ সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে। বিকশিত গণতন্ত্রকে টেকসই রূপদানে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে উন্নয়নকে অভীষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
স্পিকার বলেন, শোষণহীন, বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার কথা শুধু নীতিমালার মধ্যে থাকলেই চলবে না। জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেট তৈরির মাধ্যমে সমগ্রবিশ্বে জেন্ডারসমতা সৃষ্টি করতে হবে। তিনি বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফ ঘোষিত দ্বৈত লক্ষ্য ‘দারিদ্র্যনিরসন ও উন্নয়নে অংশগ্রহণ’ সেøাগান বাস্তবায়নে নারীকে প্রধান চালিকাশক্তি হিসেবে চিহ্নিত করার আহ্বান জানান।
সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী ১০০ টি দেশের সংসদসদস্যদের মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ
আ স ম ফিরোজ, মুহিবুর রহমান মানিক এবং সানজিদা খানম উপস্থিত ছিলেন।   

#

মঞ্জুর/মিজান/মোহাম্মদ আলী/শুকলা/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৫/১৭৫০ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৫১

বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে প্রধানমন্ত্রীর বাণী   

ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  

    প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
    “বাংলা নববর্ষের এই শুভক্ষণে আমি দেশবাসী ও প্রবাসী বাঙালিসহ সবাইকে জানাই আন্তরিক শুভেচ্ছা ও শুভ নববর্ষ।  
    বাংলা নববর্ষ আবহমান বাঙালি সংস্কৃতির এক বর্ণাঢ্য উৎসব ও অনন্য উৎস বিন্দু। বাঙালির সার্বজনীন উৎসব নববর্ষকে তাই আমরা আবাহন করি প্রাণের স্পন্দনে, গানে-কবিতায়, আবেগের উত্তাপে।
    নববর্ষ মানেই নতুন আশায় উদ্দীপ্ত হওয়ার দিন। আমাদের লেখক, কবি, শিল্পীদের ছন্দ, বর্ণ, তুলি ও সুরে বাংলা নববর্ষ প্রতিবছর নতুন রূপে হাজির হয়। পহেলা বৈশাখের পূর্বে চৈত্রসংক্রান্তি থেকে দেশের নানাস্থানে শুরু হয় বৈশাখি মেলা ও আড়ংসহ নানা আয়োজন, যা বিনোদনের পাশাপাশি দেশের অর্থনীতিতে আনে নতুন গতি।
    বাংলা নববর্ষ আমাদের জাতীয়তাবোধ ও চেতনাকে শানিত করে। বর্ষবরণের উৎসবে এ চেতনাকে নস্যাৎ করার জন্য স্বাধীনতার আগে ও পরে বহু ষড়যন্ত্র হয়েছে। আঘাত করা হয়েছে বার বার। বোমা মেরে মানুষ হত্যা করা হয়েছে। ধর্মান্ধ, সাম্প্রদায়িক শক্তির কোন অপচেষ্টাই সফল হয়নি। বাঙালি জাতি নববর্ষকে ধারণ করেছে তার জীবনযাত্রা ও সংস্কৃতির অনুষঙ্গ হিসাবে।
    আমি আশা করি, পহেলা বৈশাখে বাঙালি সংস্কৃতির এ চর্চা আমাদের জাতিসত্ত্বাকে আরও বিকশিত করবে। সাম্প্রদায়িকতা, ধর্মান্ধতা, জঙ্গিবাদের বিরুদ্ধে প্রতিরোধ গড়ে তোলার শক্তি যোগাবে। রাজনীতির নামে আগুনে পুড়িয়ে নিরীহ মানুষ হত্যা ও দেশের সম্পদ ধ্বংসকারী অপশক্তির বিরুদ্ধে আমাদেরকে আরও ঐক্যবদ্ধ করবে।   
    দেশব্যাপী বৈশাখি মেলা, চৈত্রসংক্রান্তির পালা-পার্বন, নববর্ষের প্রতিটি মিছিল-শোভাযাত্রা পরিণত হোক মৌলবাদ, সাম্প্রদায়িকতা, অন্যায়-অবিচার, শোষণ-বৈষম্য এবং ক্ষুধা-দারিদ্র্যের বিরুদ্ধে সংগ্রামের হাতিয়ারে। ১৪২২ সন সকল জরা ও গ্লানি মুছে দিয়ে বাঙালির জীবনে বয়ে আনুক সুখ, সমৃদ্ধি ও অনাবিল আনন্দ- এই প্রত্যাশা করছি।
    জয় বাংলা, জয় বঙ্গবন্ধু
              বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।”
#
নুরএলাহি/মোহাম্মদ আলী/শুকলা/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৫/১১২০ ঘণ্টা  
    
 


 
 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৫০
বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে রাষ্ট্রপতির বাণী
ঢাকা, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :   
 
    রাষ্ট্রপতি মোঃ আবদুল হামিদ বাংলা নববর্ষ উপলক্ষে নিম্নোক্ত বাণী প্রদান করেছেন :
    “আজ পহেলা বৈশাখ, ১৪২২ বঙ্গাব্দ। শুভ নববর্ষ। নববর্ষের এই আনন্দঘন দিনে আমি দেশবাসীকে জানাই বাংলা নববর্ষের শুভেচ্ছা।
    চৈত্রের অবসানে নতুনের বার্তা নিয়ে আমাদের জীবনে বৈশাখের আগমনি সুর বেজে উঠে। সে সুর নতুনকে বরণ করার, পুরাতনকে পেছনে ফেলে নব উদ্যমে আগামীকে আবাহন করার। বৈশাখ শুধু ঋতুচক্রমনের ধারাবাহিকতা নয় বরং আমাদের ঐতিহ্যচেতনারই নাম। বাংলা সনের উদ্ভব ও বিকাশ প্রক্রিয়া লক্ষ্য করলে আমরা দেখবো অসাম্প্রদায়িক মোগল সম্রাট আকবর ফসলি সন হিসেবে বাংলা সন গণনার সূত্রপাত করেন যা কালক্রমে বৃহত্তর বাঙালির অস্তিত্বসূচক উৎসবে রূপান্তরিত হয়েছে। বাংলা সন গণনার সঙ্গে যেমন ফসল ও মৃত্তিকার ভাবনা জড়িত তেমনি বাংলা নববর্ষ উৎসবও মূলত তৃণমূললগ্ন এক জনউৎসবের প্রতীক।
    শুধু সাংস্কৃতিক ক্ষেত্রে নয়, অর্থনৈতিক ও সামাজিক ক্ষেত্রেও বাংলা নববর্ষ উৎসবের কোন তুলনা নেই। সারাদেশের বৈশাখি মেলাগুলোতে ক্ষুদ্র ও কুটির শিল্পজাত পণ্যের যে বিপুল বিকিকিনি ঘটে তা জাতীয় অর্থনীতিকে বেগবান করার পাশাপাশি মানুষের মাঝে মৈত্রী, সম্প্রীতি স্থাপনে বিশেষ ভূমিকা পালন করে। অতীতের সব গ্লানি ও বিভেদ ভুলে বাংলা নববর্ষ জাতীয় জীবনের সর্বক্ষেত্রে আমাদের ঐক্য ও সংহতি আরও সুদৃঢ় করবে এবং বয়ে আনবে অফুরন্ত আনন্দের বার্তা, বাংলা নববর্ষে এটাই সকলের প্রত্যাশা।
    বাংলা নববর্ষ-১৪২২ সবার জন্য শুভ ও কল্যাণকর হোক।
    খোদা হাফেজ, বাংলাদেশ চিরজীবী হোক।  
#
আজাদ/মোহাম্মদ আলী/শুকলা/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৫/১১২০ ঘণ্টা     
 
 

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর : ১০৫২   


সহ¯্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রাকে টেকসই রূপ দিতে হবে
                                                - স্পিকার

ওয়াশিংটন ডিসি, ৩০ চৈত্র (১৩ এপ্রিল) :  

    বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের স্পিকার এবং সিপিএ নির্বাহী কমিটি’র চেয়ারপার্সন ড. শিরীন শারমিন চৌধুরী বলেছেন, দারিদ্র্যমোচন, কর্মসংস্থান সৃষ্টি, জেন্ডার সমতা, নারীর ক্ষমতায়নসহ সমগ্র পৃথিবীর টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করতে পার্লামেন্টারি নেটওয়ার্ক, বিশ্বব্যাংক, আইএমএফসহ পৃথিবীর সকল দেশের সংসদসদস্যদের একযোগে কাজ করতে হবে। বৈশ্বিক উন্নয়নের সকল চ্যালেঞ্জ মোকাবিলায় সহ¯্রাব্দের উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জনের পর তাকে টেকসই রূপ দিতে হবে।
আজ মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের ওয়াশিংটনস্থ ওয়ার্ল্ড ব্যাংক ভবনের প্রেসটন অডিটরিয়ামে চধৎষরধসবহঃধৎু ঘবঃড়িৎশ ড়হ ঃযব ডড়ৎষফ ইধহশ ্ ওগঋ আয়োজিত ‘এষড়নধষ চধৎষরধসবহঃধৎু ঈড়হভবৎবহপব : এবহফবৎ ঊয়ঁধষরঃু ্ ডড়সবহ'ং জরমযঃং রহ ঃযব ঢ়ড়ংঃ ২০১৫’ শীর্ষক বিষয়ে প্রধান আলোচকের বক্তব্যে তিনি একথা বলেন।  
তিনি বলেন, জনগণের ক্ষমতায়নের মূল ভূমিকা সংসদসদস্যরাই পালন করে। সংবিধানের চেতনাকে সমুন্নত রেখে সংসদকে সকল সমস্যা সমাধানের কেন্দ্রবিন্দুতে পরিণত করতে হবে। বিশ্বজুড়ে হত দরিদ্রদের
মধ্যে নারী অন্যতম। নারীর দুঃখ দুর্দশামোচনে সামষ্টিক অর্থনৈতিক নীতিমালায় পরিবর্তন এনে জেন্ডার সংবেদনশীলতাকে প্রাধান্য দিতে হবে। শ্রমবাজারে নারীদের উপযুক্ত সুবিধা নিশ্চিত করতে হবে। খাদ্য, স্বাস্থ্য ও অর্থনৈতিক কর্মকা-ে নারীদের জন্য সমতাভিত্তিক সুযোগ সৃষ্টি করতে হবে।          
তিনি আরও বলেন, বিশ্বায়নের এই যুগে জেন্ডার সমতা, নারী ক্ষমতায়নসহ টেকসই উন্নয়ন নিশ্চিত করে গণতন্ত্রকে বিকশিত করতে যে সকল চ্যালেঞ্জ রয়েছে সেগুলি উত্তরণে সংসদসদস্যসহ সকলকে একযোগে কাজ করতে হবে। বিকশিত গণতন্ত্রকে টেকসই রূপদানে গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ার মধ্য দিয়ে উন্নয়নকে অভীষ্ট লক্ষ্যে এগিয়ে নিয়ে যেতে হবে।
স্পিকার বলেন, শোষণহীন, বৈষম্যহীন সমাজ প্রতিষ্ঠার কথা শুধু নীতিমালার মধ্যে থাকলেই চলবে না। জেন্ডার সংবেদনশীল বাজেট তৈরির মাধ্যমে সমগ্রবিশ্বে জেন্ডার সমতা সৃষ্টি করতে হবে। তিনি বিশ্বব্যাংক ও আইএমএফ ঘোষিত দ্বৈত লক্ষ্য ‘দারিদ্র্যনিরসন ও উন্নয়নে অংশগ্রহণ’ শ্লোগান বাস্তবায়নে নারীকে প্রধান চালিকাশক্তি হিসেবে চিহ্নিত করার আহ্বান জানান।
সম্মেলনে অংশগ্রহণকারী ১০০ টি দেশের সংসদসদস্যদের মধ্যে বাংলাদেশ জাতীয় সংসদের চিফ হুইপ আ স ম ফিরোজ, মুহিবুর রহমান মানিক এবং সানজিদা খানম উপস্থিত ছিলেন।   
#

মঞ্জুর/মোহাম্মদ আলী/শুকলা/রেজ্জাকুল/আসমা/২০১৫/১২৩০ ঘণ্টা         

 

Todays handout (7).doc Todays handout (7).doc

Share with :

Facebook Facebook