তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তথ্যবিবরণী ১০ সেপ্টেম্বর ২০১৯

তথ্যবিবরণী                                                                                                                             নম্বর : ৩৪৪৮
 
গত দশকে উন্নয়নশীল বিশ্বের মধ্যে বাংলাদেশের প্রবৃদ্ধি সর্বোচ্চ 
              --- তথ্যমন্ত্রী
 
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, গত সাড়ে দশ বছর ধরে পৃথিবীর সমস্ত উন্নয়নশীল দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অর্থনীতির প্রবৃদ্ধি সবচেয়ে এগিয়ে। গত অর্থবছরে ৮ দশমিক ১৩ শতাংশ প্রবৃদ্ধি অর্জনের মাধ্যমে বাংলাদেশ আগের ৭ শতাংশের ঘর পেরিয়ে নতুন মাইলফলক অর্জন করেছে, যা এ অর্থবছরে আরো বৃদ্ধি পাবে বলে আশা করা হচ্ছে। সমসাময়িক বিশ্বে এটি বিরল ও বিস্ময়কর অগ্রগতি।
 
আজ রাজধানীর পুরানা পল্টনের জামান টাওয়ারে রাঙ্গুনিয়া সমিতি, ঢাকা’র কার্যালয় উদ্বোধন উপলক্ষে মিলাদ ও দোয়া মাহফিলে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী একথা বলেন।
 
মন্ত্রী বলেন, দক্ষিণ এশিয়ার দেশগুলোর মধ্যেও উন্নয়নের দিক থেকে বাংলাদেশ অনেক আগেই পাকিস্তানকে ছাড়িয়ে গেছে, কিছুদিনের মধ্যে মানবিক, সামাজিক ও অর্থনৈতিক অনেক সূচকে ভারতকেও ছাড়িয়ে যাবে। স্বল্পোন্নত দেশের কাতার থেকে বাংলাদেশ আজ মধ্যম আয়ের কাতারে। ‘কিন্তু আওয়ামী লীগ সরকারের লক্ষ্য শুধু উন্নত দেশ গঠন করা নয়, উন্নত জাতিও গঠন করা’ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, জাতির পিতার স্বপ্নের সোনার বাংলা এবং বঙ্গবন্ধুকন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার স্বপ্নের ডিজিটাল বাংলাদেশ গড়তে অর্থনৈতিক সমৃদ্ধিই যথেষ্ট নয়, প্রতিটি মানুষকে দেশপ্রেম, মানবিক মূল্যবোধ, মেধা ও মমত্ববোধেও সমৃদ্ধ হতে হবে, তবেই উন্নত দেশের পাশাপাশি আমরা উন্নত জাতি হিসেবে গড়ে উঠতে পারবো।
 
চট্টগ্রামের রাঙ্গুনিয়া উপজেলায় যে উন্নয়ন হয়েছে তার জন্য রাঙ্গুনিয়াবাসীর পক্ষে সমিতির সভাপতি ওবায়দুল কাদের এ সময় রাঙ্গুনিয়ার সন্তান তথ্যমন্ত্রীর প্রতি কৃতজ্ঞতা প্রকাশ করেন। রাঙ্গুনিয়া সমিতি, ঢাকা’র সদস্যদের উপস্থিতিতে তথ্যমন্ত্রী সমিতির নতুন কার্যালয়ের ফলক উন্মোচন করেন ও দোয়ায় অংশ নেন।
#
আকরাম/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/২১১০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                                 নম্বর : ৩৪৪৭
 
মক্কায় গুরুতর অসুস্থ হাজিদের খোঁজখবর নিলেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী
 
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
চলতি বছর হজ পালন করতে এসে যে সব হাজি গুরুতর অসুস্থ হয়ে মক্কার বিভিন্ন হাসপাতালে চিকিৎসাধীন আছেন তাঁদের খোঁজখবর নিতে গতকাল মক্কার বিভিন্ন হাসপাতাল সরেজমিন পরিদর্শন করেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী আলহাজ এডভোকেট শেখ মোঃ আব্দুল্লাহ। এ সময় তিনি রোগীদের উন্নত চিকিৎসা নিশ্চিত করতে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার নির্দেশের কথা জানান।
সুস্থ হওয়ার পর রোগীরা যাতে সহজে দেশে ফিরতে পারেন সে ব্যবস্থা করতে মক্কায় বাংলাদেশের হজ কাউন্সিলর মোঃ মাকসুদুর রহমানকে ধর্ম প্রতিমন্ত্রী এ সময় নির্দেশ প্রদান করেন।
এর আগে সোমবারে হারাম শরিফে আন্তর্জাতিক কেরাত প্রতিযোগিতার অনুষ্ঠানে যোগ দেন ধর্ম প্রতিমন্ত্রী শেখ মোহাম্মদ আব্দুল্লাহ।
৪১তম কিং আব্দুল আজিজ আন্তর্জাতিক কোরান তেলাওয়াত প্রতিযোগিতায় সম্মানিত অতিথি হিসেবে রাজকীয় সৌদি সরকারের আমন্ত্রণে ৬ দিনের সফরে ৮ সেপ্টেম্বর মক্কা পৌঁছান ধর্ম প্রতিমন্ত্রী।
#
আনোয়ার/মাহমুদ/রফিকুল/জয়নুল/২০১৯/২০৫০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                                      নম্বর : ৩৪৪৬
 
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় এবং আওতাধীন সংস্থায় লাইসেন্সড সফট্ওয়্যার ব্যবহার করা হবে
                                                                                         --- গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী
 
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয় ও এর আওতাধীন দপ্তর ও সংস্থায় লাইসেন্সড (আইনসম্মত প্রক্রিয়ায় ও আইনানুগ উপায়ে প্রাপ্ত) সফট্ওয়্যার ব্যবহার করা হবে। 
আজ রাজধানীর একটি হোটেলে বেসরকারি প্রতিষ্ঠান আইটেক আনলিমিটেডের উদ্যোগে স্থাপত্য অধিদপ্তরের কর্মকর্তাদের ‘অ্যাডভান্সড ট্রেনিং অন লাইসেন্সড অটোক্যাড’ বিষয়ক প্রশিক্ষণের সনদপত্র প্রদান অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা বলেন।
আইটেক আনলিমিটেডের প্রধান নির্বাহী কর্মকর্তা কে এম এইচ শহীদুল হকের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ শহীদ উল্লা খন্দকার এবং আমন্ত্রিত অতিথি হিসেবে বক্তব্য প্রদান করেন স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রধান স্থপতি কাজী গোলাম নাসির।
স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত স্থপতিদের উদ্দেশে মন্ত্রী বলেন, ‘সৃজনশীলতা হচ্ছে মানুষের সুকুমার বৃত্তি বিকাশের জায়গা। নান্দনিকতা ও শৈলী বিকাশের একটা ক্ষেত্র আপনাদের শিক্ষা ও কর্মজীবনে রয়েছে। আপনাদের মানসিকতাকে আরো ইতিবাচক করে তুলতে হবে, রুদ্ধতা ও সীমাবদ্ধতার জায়গায় থাকা যাবে না। মনে রাখবেন সৃষ্টির ভেতরে যে আনন্দ আছে অনুকরণের ভেতরে সে আনন্দ নেই। নিজের কীর্তিকে সৃষ্টি করার মধ্য থেকে জীবন উল্লাসে মেতে উঠতে হবে’।
মন্ত্রী আরো বলেন, ‘নিজেদের স্বকীয়তা রক্ষা করে অনেক কিছু সৃষ্টি করতে হবে। বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান নিজের কর্মস্পৃহা, অদম্য গতি, আন্তরিকতা আর প্রচেষ্টা দিয়ে শৃঙ্খলিত একটি জাতিকে পরাধীনতার শৃঙ্খল থেকে মুক্ত করে স্বাধীন-সার্বভৌম বাংলাদেশ উপহার দিয়েছেন। স্থপতিদের কাছে আহ্বান থাকবে, সৃষ্টির জন্য নিজেকে উৎসর্গ করুন, নিজেকে নিবেদন করুন। তাহলে আপনাদের আত্মার ক্ষুধা নিবারণ হবে’।
অনুষ্ঠানে অন্যান্যের মধ্যে গৃহায়ন ও গণপূর্ত মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ ইয়াকুব আলী পাটওয়ারী, গণপূর্ত অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী মোঃ সাহাদাত হোসেন, স্থাপত্য অধিদপ্তরের বিভিন্ন পর্যায়ের স্থপতিবৃন্দ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন। অনুষ্ঠান শেষে স্থাপত্য অধিদপ্তরের প্রশিক্ষণপ্রাপ্ত ১৮জন স্থপতিকে সনদপত্র প্রদান করা হয়।
#
ইফতেখার/মাহমুদ/সঞ্জীব/রফিক/জয়নুল/২০১৯/১৯৪০ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ৩৪৪৫
 
চিকিৎসা সেবায় আরো দায়িত্বশীল হওয়ার আহ্বান পরিকল্পনা মন্ত্রীর
 
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) : 
চিকিৎসা সেবার সাথে সংশ্লিষ্টদের আরো দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করার আহ্বান জানিয়েছেন পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান।
আজ ঢাকায় অষ্টম জয়েন্ট মনিটরিং মিশন ২০১৯ উপলক্ষে আয়োজিত ঝঃধশবযড়ষফবৎ’ং গববঃরহম ঃড় জবারবি ঃযব চৎড়মৎবংং ঞড়ধিৎফং ঊহফ ঞই রহ ইধহমষধফবংয বিষয়ক সেমিনারে প্রধান অতিথির বক্তব্যে মন্ত্রী এ আহ্বান জানান।
মন্ত্রী বলেন, ‘আমি গ্রামের মানুষ, হাওড়ে বেড়ে উঠেছি। প্রতি সপ্তাহে আমি গ্রামে যাই। একটি বিষয়ে আমি খুব কষ্ট পাই, দুঃখ পাই। গ্রাম-ইউনিয়ন-উপজেলা পর্যায়ে ডাক্তার থাকে না। শুধু ডাক্তার নয় তাদের সহকারীরাও থাকে না। অথচ সরকার উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সগুলো চমৎকারভাবে নির্মাণ করেছে। এগুলোর পরিবেশও ভালো। অথচ গ্রামের মানুষ চিকিৎসা পাচ্ছেন না। এ বিষয়টাতে আরো নজর দিতে হবে, আরো দায়িত্বশীলতার সাথে কাজ করতে হবে।’ তিনি আরো বলেন, ‘চিকিৎসা সেবার কাজটা জীবন-মরণের প্রশ্ন। জীবন একবার চলে গেলে আর শত চেষ্টা করেও ফিরে আসবে না। তাই অনুরোধ করছি, নিজের দায়িত্বটা পালন করুন।’
স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক অধ্যাপক ডা. আবুল কালাম আজাদের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য দেন স্বাস্থ্য সেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলাম, স্বাস্থ্য শিক্ষা বিভাগের সচিব শেখ ইউসুফ হারুন এবং ওয়ার্ল্ড হেলথ অর্গানাইজেশনের গ্লোবাল টিবি প্রোগ্রামের পরিচালক ড. তেরেজা কাসাইবা (উৎ. ঞবৎবুধ কধংধবাধ) .
#
শাহেদ/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৯/১৮৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ৩৪৪৪

জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি মোকাবিলায় বিশ্বনেতাদের এগিয়ে আসার আহ্বান পরিবেশমন্ত্রীর

ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :   

          বিশ্বব্যাপী জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে সবচেয়ে ঝুঁকিপূর্ণ দেশের তালিকায় রয়েছে বাংলাদেশ। তাই বাংলাদেশ-সহ বিশ্বের সকল দেশের জলবায়ু ঝুঁকি কমাতে বিশ্বনেতাদের একসাথে এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়েছেন পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন। ভারতের নয়াদিল্লীতে চলমান UNCCD COP-14 সম্মেলনে আজ বাংলাদেশের পক্ষে বক্তব্য প্রদানকালে তিনি এ আহ্বান জানান। সম্মেলনে তিনি বাংলাদেশ প্রতিনিধিদলের নেতৃত্ব প্রদান করছেন। গতকাল ৯ সেপ্টেম্বর ভারতের প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদী COP-14- এর হাই লেভেল সেগমেন্ট উদ্বোধন করেন।

          মন্ত্রী বলেন, বাংলাদেশ একটি নদীমাতৃক দেশ। এ দেশের কৃষি সম্পূর্ণ নদীর পানির ওপর নির্ভরশীল। কিন্তু উজানের পানি প্রবাহ সংকুচিত হবার ফলে এ দেশের কৃষিব্যবস্থা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ দেশের ৫৭টি আন্তঃসীমান্ত নদীতে পানিপ্রবাহ সচল রাখার জন্য উজানের পানির ওপর নির্ভর করতে হয়। দেশের উত্তর-পশ্চিমাঞ্চল এখন মরুময়তার হুমকিতে পড়েছে। জনসংখ্যার ঘনত্বের কারণে এ দেশের সীমিত ভূমিতে একাধিক ফসল ফলাতে হয়, কিন্তু জলবায়ু পরিবর্তনের বিরূপ প্রভাবের কারণে সেটা ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে। এ সকল সমস্যার একটি গ্রহণযোগ্য সমাধানের জন্য জলবায়ু পরিবর্তনের ঝুঁকি কমানোর কোনো বিকল্প নেই। এক্ষেত্রে সংশ্লিষ্টদেরকে আন্তরিকতার সাথে উদ্যোগ গ্রহণ করতে হবে।

          চলতি কনভেনশনে জলবায়ু পরিবর্তনের প্রভাব মোকাবিলার জন্য ২০১৮-২০৩০ সালের মধ্যে প্রায় ৩০টি সিদ্ধান্তের বিষয়ে সম্মতির মাধ্যমে বিশ্ব নেতৃবৃন্দের একমত হওয়ার কথা রয়েছে। এগুলোর মধ্যে অন্যতম হলো মরুময়তা ও ভূমি অবক্ষয় দ্বারা ক্ষতিগ্রস্ত জনগোষ্ঠীর জীবনের উন্নতি করা, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাস্তুচ্যুত মানুষের উন্নয়ন করা, দুর্যোগ ও খরার প্রভাব প্রশমিত করা।

#

মোস্তফা কামাল/মাহমুদ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৯/১৮০২ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                         নম্বর : ৩৪৪৩
 
চট্টগ্রাম বিভাগীয় সুইমিংপুলের উদ্বোধন করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী
 
চট্টগ্রাম, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয়ের সার্বিক ব্যবস্থাপনায় জাতীয় ক্রীড়া পরিষদ নির্মিত চট্টগ্রাম বিভাগীয় সুইমিংপুলের উদ্বোধন করেছেন যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রী মোঃ জাহিদ আহসান রাসেল।
আজ উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে প্রতিমন্ত্রী বলেন, চট্টগ্রামবাসীর জন্য আজ একটি স্মরণীয় দিন। চট্টগ্রামের সাধারণ জনগণের একটি দীর্ঘ দিনের দাবি ছিল আধুনিক সুযোগ সুবিধা সংবলিত একটি সুইমিংপুল নির্মাণের। আজকের এই সুইমিংপুল উদ্বোধনের মধ্য দিয়ে সেই দীর্ঘ প্রতীক্ষিত স্বপ্ন বাস্তবতায় পাখা মেলেছে। 
প্রতিমন্ত্রী আরো বলেন, সুইমিং শুধু খেলা বা ব্যায়ামের জন্যই নয়, জীবনের নিরাপত্তা বিধানের জন্যও সাঁতার শেখাটা জরুরি। তাই প্রধানমন্ত্রীর নির্দেশনায় ইতোমধ্যে ২২টি সুইমিংপুল নির্মাণ করা হয়েছে। পর্যায়ক্রমে প্রতিটি জেলাতেই সুইমিংপুল নির্মাণ করা হবে। তিনি সুইমিংপুলসমূহের সঠিক ব্যবহার, রক্ষণাবেক্ষণ ও সুষ্ঠু ব্যবস্থাপনার আহ্বান জানান। এছাড়া তিনি চট্টগ্রাম এম এ আজিজ স্টেডিয়ামের ফ্লাড লাইট ও জিমনেসিয়ামের প্রয়োজনীয় সংস্কারের প্রতিশ্রুতি প্রদান করেন।
বিশেষ অতিথির বক্তব্যে চট্টগ্রাম সিটি করপোরেশনের মেয়র যুব ও ক্রীড়া প্রতিমন্ত্রীকে চট্টগ্রামবাসীকে একটি দৃষ্টিনন্দন সুইমিংপুল উপহার দেবার জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জ্ঞাপন করেন। তিনি বলেন, চট্টগ্রামবাসীর দীর্ঘ দিনের প্রত্যাশা পূরণ হয়েছে।
উল্লেখ্য, এ প্রকল্প বাস্তবায়নে ব্যয় হয়েছে ১২ কোটি ৬৫ লাখ টাকা।
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন যুব ও ক্রীড়া সচিব ড. জাফর উদ্দীন, সভাপতিত্ব করেন চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসক মোহাম্মদ ইলিয়াস হোসেন। অনুষ্ঠানে আরো বক্তব্য প্রদান করেন রাউজান উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান এহসানুল হায়দার চৌধুরী বাবুল, জাতীয় ক্রীড়া পরিষদের পরিচালক শাহ আলম, জেলা ক্রীড়া সংস্থার সহ-সভাপতি মোজাম্মেল হক। এ সময় যুব ও ক্রীড়া মন্ত্রণালয় এবং বিভাগীয় ও জেলা ক্রীড়া সংস্থার কর্মকর্তারা উপস্থিত ছিলেন।
 
#
আরিফ/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৯/১৮০০ঘণ্টা 
 
তথ্যবিবরণী                                                                                                                      নম্বর : ৩৪৪২
 
আবহাওয়ার বিশেষ বার্তা
সমুদ্র বন্দরের জন্য সতর্ক সংকেত প্রত্যাহার
 
ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :
বাংলাদেশের উপকূলীয় এলাকা, উত্তর বঙ্গোপসাগর এবং সমুদ্র বন্দরসমূহের উপর দিয়ে ঝড়ো হাওয়া বয়ে যাওয়ার সম্ভাবনা নেই। চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে সতর্ক সংকেত নামিয়ে ফেলতে বলা হয়েছে। উত্তর বঙ্গোপসাগরে অবস্থানরত মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারসমূহকে আজ বিকাল পর্যন্ত উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে।
ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন সেন্টার থেকে পাওয়া আজ দুপুর ২টার প্রতিবেদনে এসব তথ্য পাওয়া গেছে।
আজ ১০ সেপ্টেম্বর সন্ধ্যা ৬টা পর্যন্ত দেশের অভ্যন্তরীণ নদী বন্দরের জন্য আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী রাজশাহী, পাবনা, কুষ্টিয়া, ঢাকা, ফরিদপুর, মাদারিপুর, খুলনা, যশোর, বরিশাল, পটুয়াখালী, নোয়াখালী, কুমিল্লা, চট্টগ্রাম, কক্সবাজার এবং সিলেট অঞ্চলসমূহের উপর দিয়ে দক্ষিণ অথবা দক্ষিণ-পূর্ব দিক থেকে ঘণ্টায় ৪৫-৬০ কিলোমিটার বেগে বৃষ্টি বা বজ্র-বৃষ্টি-সহ অস্থায়ীভাবে দমকা বা ঝড়ো হাওয়া বয়ে যেতে পারে। এসব এলাকার নদী বন্দরসমূহকে ১ নম্বর সতর্ক সংকেত দেখাতে বলা হয়েছে।
আজ সকাল ৯ টা থেকে পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাস অনুযায়ী বরিশাল, চট্টগ্রাম, সিলেট ও রংপুর বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; ঢাকা ও খুলনা বিভগের অনেক জায়গায় এবং রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়া-সহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্র-সহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সাথে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।
ব্রহ্মপুত্র-যমুনা, উত্তর-পূর্বাঞ্চল এবং দক্ষিণ-পূর্বাঞ্চলের নদ-নদীসমূহের পানি সমতল বৃদ্ধি পাচ্ছে, অপরদিকে গঙ্গা-পদ্মা নদীসমূহের পানি সমতল হ্রাস পাচ্ছে। এই পরিস্থিতি আগামী ২৪ ঘণ্টা পর্যন্ত অব্যাহত থাকতে পারে।
#
এনডিআরসিসি/মাহমুদ/সঞ্জীব/জয়নুল/২০১৯/১৭৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ৩৪৪১

ডেঙ্গুর প্রকোপ কমছে

ঢাকা, ২৬ ভাদ্র (১০ সেপ্টেম্বর) :   

          স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের হেলথ ইমার্জেন্সি অপারেশন সেন্টার ও কন্ট্রোল রুমের তথ্য অনুযায়ী গত ২৪ ঘণ্টায় সারা দেশে নতুন ৭৫৩ জন ডেঙ্গু রোগী হাসপাতালে ভর্তি হয়েছেন। সেপ্টেম্বর মাসের শুরু থেকেই হাসপাতালগুলোতে নতুন ডেঙ্গুরোগী ভর্তির সংখ্যা লক্ষ্যণীয়ভাবে কমে এসেছে।

          প্রতিবেদনের তথ্য অনুযায়ী গত জানুয়ারি থেকে আজ পর্যন্ত ডেঙ্গু রোগের চিকিৎসা শেষে ছাড়পত্র নিয়ে চলে গেছেন ৭৪ হাজার ৭ শত ১৪ জন। বর্তমানে সারা দেশের হাসপাতালগুলোতে ডেঙ্গুরোগে আক্রান্ত ভর্তিকৃত রোগী আছেন ৩ হাজার ৭২ জন। এ যাবত ৬০ জনের মৃত্যু ডেঙ্গুজনিত বলে নিশ্চিত করা হয়েছে। 

#

স্বাস্থ্য অধিদপ্তর/মাহমুদ/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৯/১৬৫৬ ঘণ্টা 

Todays handout (7).docx Todays handout (7).docx

Share with :

Facebook Facebook