তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২১st ডিসেম্বর ২০১৮

তথ্যবিবরণী 21/12/2018

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর : ৩৪০৮  
 
বঙ্গবন্ধু ও বঙ্গমাতা গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল 
টুর্নামেন্টের ঢাকা বিভাগীয় ফাইনাল খেলা অনুষ্ঠিত
 
ঢাকা, ৭ পৌষ (২১ ডিসেম্বর) : 
 
বঙ্গবন্ধু গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৮ এর ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ের ফাইনাল খেলায় ফরিদপুর জেলা গাজীপুর জেলাকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে। এ খেলায় ফরিদপুরের ভাঙ্গা উপজেলার চুমুরদী সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় গাজীপুর জেলার ৭৮নং লস্করচালা সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়কে ৬-০ গোলে পরাজিত করে।
 
অপর খেলায় বঙ্গমাতা বেগম ফজিলাতুন্নেসা মুজিব গোল্ডকাপ প্রাথমিক বিদ্যালয় ফুটবল টুর্নামেন্ট ২০১৮ এর ঢাকা বিভাগীয় পর্যায়ের ফাইনাল খেলায় ফরিদপুর জেলা সদরের হাটগোবিন্দপুর সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয় ২-০ গোলে টাঙ্গাইল জেলার মমরেজ গলগন্ডা সরকারি বিদ্যালয়কে পরাজিত করে চ্যাম্পিয়ন হয়েছে।
 
খেলা দু’টি আজ রাজধানীর কমলাপুরে বীরশ্রেষ্ঠ শহীদ সিপাহী মোহাম্মদ মোস্তফা কামাল স্টেডিয়ামে অনুষ্ঠিত হয়। 
 
প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের সচিব মোঃ আকরাম-আল-হোসেন এ প্রতিযোগিতায় প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে চ্যাম্পিয়ন ও রানার্সআপ দলের মধ্যে পুরস্কার বিতরণ করেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন প্রাথমিক শিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. আবু হেনা মোস্তফা কামাল এনডিসি।
 
#
 
রবীন্দ্র/নাইচ/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২২৩০ ঘন্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                 নম্বর :  ৩৪০৭

সরকার গৃহীত রূপকল্পসমূহ আমাদেরকে পথ দেখায়
       -- জাতিসংঘে রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন

নিউইয়র্ক, ২১ ডিসেম্বর :

“শেখ হাসিনার সরকার সর্বদাই জনগণ ও মানবাধিকারকে বাংলাদেশের উন্নয়ন দর্শনের কেন্দ্রবিন্দুতে স্থাপন করে দেশের প্রান্তিক জনগোষ্ঠীর উন্নয়নে সুনির্দিষ্টভাবে কাজ করে যাচ্ছে। সরকারের দীর্ঘমেয়াদি উন্নয়ন লক্ষ্য রূপকল্প-২০২১ ও রূপকল্প-২০৪১ আমাদেরকে এমন একটি সমাজ প্রতিষ্ঠার পথ দেখায় যে সমাজ থাকবে ভয় এবং অভাব থেকে মুক্ত”। জাতিসংঘ সাধারণ পরিষদে ‘বৈশ্বিকভাবে স্বীকৃত মানবাধিকার ও মৌলিক অধিকারের সুরক্ষা ও অগ্রগতি সাধনের লক্ষ্যে ব্যক্তি, গোষ্ঠী এবং সমাজের অঙ্গসমূহের অধিকার ও দায়িত্বের প্রতি বৈশ্বিক ঘোষণাপত্র গ্রহণের ২০তম বার্ষিকী’ উপলক্ষে গত ১৯ ডিসেম্বর প্রদত্ত বক্তব্যে একথা বলেন জাতিসংঘে নিযুক্ত বাংলাদেশের স্থায়ী প্রতিনিধি রাষ্ট্রদূত মাসুদ বিন মোমেন।

রাষ্ট্রদূত মাসুদ বলেন, “অনেক চ্যালেঞ্জ মোকাবিলা করা সত্ত্বেও বহুপক্ষবাদ এখনও আমাদের সর্বোচ্চ প্রত্যাশার জায়গা বিশেষ করে এক্ষেত্রে যখন মানবাধিকার সমুন্নত রাখার প্রশ্ন আসে। আর জাতিসংঘ হচ্ছে বহুপক্ষবাদ ও মানবাধিকারকে এগিয়ে নেওয়ার সর্বোত্তম মঞ্চ”। বহুপক্ষবাদ ও মানবাধিকারের প্রতি পূর্ণ আস্থা এবং আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়ের প্রতি প্রতিশ্রুতি থাকার কারণেই বাংলাদেশ দশ লাখেরও বেশি জোরপূর্বক বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের মানবিক আশ্রয় দিয়েছে মর্মে উল্লেখ করেন রাষ্ট্রদূত মাসুদ। তিনি বলেন, “আন্তর্জাতিক সম্প্রদায়কে অবশ্যই বাস্তুচ্যুত রোহিঙ্গাদের নিরাপদ, স্বপ্রণোদিত, নিরাপত্তাপূর্ণ ও মর্যাদাশীল স্বদেশ প্রত্যাবর্তন বাস্তবায়নে এগিয়ে আসতে হবে”।

মানবাধিকারের বৈশ্বিক ঘোষণার ৭০তম বার্ষিকী ও ভিয়েনা ঘোষণার ২৫তম বার্ষিকী উদযাপন উপলক্ষে অনুষ্ঠিত এই উচ্চ পর্যায়ের সভায় অংশ নিয়ে রাষ্ট্রদূত মাসুদ আরো বলেন, “জাতিসংঘ মানবাধিকার কাউন্সিলের নবনির্বাচিত সদস্য হিসেবে বাংলাদেশ সবসময়ই মানবাধিকার সুরক্ষায় সহযোগিতাপূর্ণ ও ক্রিয়াশীল ভূমিকা রাখতে প্রতিশ্রুতিবদ্ধ”।

#

মাহমুদ/মোশারফ/সেলিমুজ্জামান/২০১৮/২০৩০ ঘণ্টা

 

তথ্যবিবরণী                                                                                          নম্বর : ৩৪০৬   
 
নারী ও সংখ্যালঘুদের ভোটাধিকার নিশ্চিত করতে হবে
                                        ---কবিতা খানম
 
খুলনা, ৭ পৌষ (২১ ডিসেম্বর) : 
 
নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানম বলেছেন, বাংলাদেশের জনসংখ্যার অর্ধেক নারী। জনপ্রতিনিধি নির্বাচনে তাদের ভূমিকা অগ্রগণ্য। তাই আসন্ন সংসদ নির্বাচনে তাদের নিরাপদ অংশগ্রহণ নিশ্চিত করতে হবে। তিনি আজ খুলনার একটি হোটেলে একাদশ জাতীয় সংসদ নির্বাচন উপলক্ষে নির্বাচনে নারীর নিরাপদ অংশগ্রহণ ও সুরক্ষা নিশ্চিত করার লক্ষ্যে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক এক কর্মসূচিতে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় এসব কথা বলেন। বাংলাদেশ  নির্বাচন কমিশন, ইউএনডিপি ও ইউএনউইমেন যৌথভাবে এ অনুষ্ঠানের আয়োজন করে।
 
কবিতা খানম বলেন, আমরা অনেকেই  নারীদের নিরাপত্তা নিয়ে প্রতিনিয়ত সভা-সেমিনার করে যাচ্ছি; নারীর সমান অধিকারের কথা বলে বক্তৃতা দিচ্ছি। আবার আমরাই নারীদের ক্ষমতায়নের পথে বাধা সৃষ্টি করছি। অথচ আমরা যদি নারীদের প্রতিদিনের নিরাপত্তা নিশ্চিত করতে পারতাম তাহলে নির্বাচনের সময় তাদের নিরাপদ অংশগ্রহণ নিয়ে আলাদাভাবে ভাবতে হতো না। নারীরা তাদের যোগ্যতা বলেই এগিয়ে যাচ্ছে উল্লেখ করে তিনি বলেন, নিজেদের অধিকার প্রতিষ্ঠার জন্য নারীদেরকেই সাহসী হতে হবে এবং এ সাহসকে সকলের মধ্যে ছড়িয়ে দিতে হবে। তিনি সংসার, সমাজ ও দেশের গুরুত্বপূর্ণ সিদ্ধান্ত গ্রহণে নারীর মতামতকে মূল্যায়ন করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।
 
অনুষ্ঠানে বিশেষ অতিথি ছিলেন খুলনার বিভাগীয় কমিশনার লোকমান হোসেন মিয়া, খুলনা রেঞ্জ ডিআইজি মোঃ দিদার আহমেদ, পুলিশ কমিশনার (ভারপ্রাপ্ত) সরদার রকিবুল ইসলাম, খুলনা জেলা প্রশাসক ও রিটার্নিং অফিসার মোহাম্মদ হেলাল হোসেন, পুলিশ সুপার এসএম শফিউল্লাহ, ইউএনডিপি’র পরামর্শক এটসুকু হিরাকাওয়া, খুলনা বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষক অধ্যাপক হোসনে আরা এবং জেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা নার্গিস ফাতেমা জামিন। অনুষ্ঠানে সভাপতিত্বে করেন আঞ্চলিক নির্বাচন কর্মকর্তা মোঃ মজিবুর রহমান।
 
এর আগে নির্বাচন কমিশনার কবিতা খানমের নেতৃত্বে সচেতনতা বৃদ্ধিমূলক একটি র‌্যালি নগরীর বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ করে। র‌্যালিতে বিভিন্ন শ্রেণি-পেশার মানুষ অংশগ্রহণ করে। 
#
 
মঈন/মাহমুদ/পারভেজ/আব্বাস/২০১৮/১৭৩৭ ঘন্টা
Todays handout (2).docx Todays handout (2).docx

Share with :

Facebook Facebook