তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ২২nd জুন ২০২০

তথ্যবিবরণী ২২ জুন, ২০২০

তথ্যবিবরণী                                                                                            নম্বর: ২২৪৮

আরো ৫ জেলার রেড জোনে সাধারণ ছুটি ঘোষণা

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

 

          করোনা ভাইরাসে অধিক সংক্রমিত দেশের ৫ জেলার কয়েকটি এলাকাকে রেড জোন ঘোষণা করেছে সরকার। রেড জোন এলাকায় ২৩ জুন থেকে বিভিন্ন মেয়াদে সাধারণ ছুটি ঘোষণা হয়েছে। সাপ্তাহিক ছুটিসমূহ এই সাধারণ ছুটির মধ্যে অন্তর্ভুক্ত থাকবে। আজ জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয় এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করে।

          প্রজ্ঞাপন অনুযায়ী অধিক সংক্রমিত জেলাগুলো হলো−ফরিদপুর, মানিকগঞ্জ, ব্রাহ্মণবাড়িয়া, নরসিংদী ও কুষ্টিয়া। এই ৫ জেলার বিভিন্ন অঞ্চলকে রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে।

          এসব জেলার মধ্যে ফরিদপুরের ভাংগা পৌরসভার সকল ওয়ার্ড এলাকা সকল ওয়ার্ডে ১৬ জুন রেড জোন ঘোষণা করা হয়। এই তারিখ থেকে পরবর্তী ২১ দিন রেড জোন বহাল থাকবে। এখানে ২৩ জুন থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

          মানিকগঞ্জ জেলার  মানিকগঞ্জ পৌরসভার উত্তর সেওতা গংগারধর পট্টি ও পশ্চিম দাশ পাড়া এলাকা; সাটুরিয়া উপজেলাধীন সাটুরিয়া ইউনিয়ন ও ধানকোড়া ইউনিয়ন; সিংগাইর উপজেলাধীন সিংগাইর পৌরসভা ও জয়মণ্ডপ ইউনিয়নকে ১৩ জুন রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। এই তারিখ থেকে পরবর্তী ২১ দিন রেড জোন বহাল থাকবে। উক্ত এলাকা ২৩ জুন থেকে ৪ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি থাকবে।

          ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের পাইকপাড়া ও কালাইশ্রীপাড়া; ৫ নং ওয়ার্ডের মধ্যপাড়া এবং ৮ নং ওয়ার্ডের কাজীপাড়া; নবীনগর উপজেলাধীন নবীনগর পৌরসভার ২নং ওয়ার্ডের হাসপাতাল পাড়া ও পশ্চিমপাড়া; ৩নং ওয়ার্ডের টিএন্ডটি পাড়া; ৪নং ওয়ার্ডের হাসপাতাল পাড়া ও কলেজ পাড়া এবং ৮নং ওয়ার্ডের ভোলাচং দাসপাড়া; কসবা উপজেলাধীন কসবা পৌরসভার ৪নং ওয়ার্ডের আড়াইবাড়ি; ৫নং ওয়ার্ডের শীতল পাড়া এবং ৭নং ওয়ার্ডের সাহা পাড়া এলাকাকে ১৩ জুন রেড জোন এলাকা ঘোষণা করা হয়। এই তারিখ থেকে পরবর্তী ২১ দিন রেড জোন বহাল থাকবে। এ এলাকায় ২৩ জুন থেকে ৪ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

          নরসিংদী জেলার মাদবধী পৌরসভার ৪ ও ৫ নং ওয়ার্ড (উত্তর বীরামপুর ও দক্ষিণ বীরামপুর) এলাকাকে ১১ জুন রেড জোন এলাকা ঘোষণা করা হয়। এই তারিখ থেকে পরবর্তী ২১ দিন রেড জোন বহাল থাকবে। এ এলাকায় ২৩ জুন থেকে ২ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

          কুষ্টিয়া জেলার কুষ্টিয়া পৌরসভার ১, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮, ১৫, ১৮ ও ২০নং ওয়ার্ড এলাকা; ভেড়ামারা উপজেলাধীন বাহির চর ও চাঁদগ্রাম ইউনিয়ন; ভেড়ামারা উপজেলাধীন ভেড়ামারা পৌরসভার ১, ২, ৩, ৪, ৫, ৬, ৭, ৮ ও ৯নং ওয়ার্ডকে ১৬ জুন রেড জোন ঘোষণা করা হয়েছে। পরবর্তী ২১ দিন মেয়াদ নির্ধারণ করে ওই এলাকায় ২৩ জুন থেকে ৭ জুলাই পর্যন্ত সাধারণ ছুটি ঘোষণা করা হয়েছে।

#

সাইফুল/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/২১৪৫ ঘণ্টা 

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ২২৪৭

জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভা

আগামীকাল থেকে পবিত্র যিলকদ মাস গণনা শুরু

 

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

বাংলাদেশের আকাশে আজ ১৪৪১ হিজরি সনের পবিত্র যিলকদ মাসের চাঁদ দেখা গিয়েছে। ফলে আগামীকাল ২৩ জুন মঙ্গলবার থেকে পবিত্র যিলকদ মাস গণনা শুরু হবে।

আজ সন্ধ্যায় ইসলামিক ফাউন্ডেশন বায়তুল মুকাররমস্থ সভাকক্ষে জাতীয় চাঁদ দেখা কমিটির সভায় এ সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। এতে সভাপতিত্ব করেন ধর্ম বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মু: আ: হামিদ জমাদ্দার।

সভায় তথ্য মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব মোঃ মিজান-উল-আলম, ওয়াকফ প্রশাসক (ভারপ্রাপ্ত) এস এম হুমায়ুন কবির সরকার, তথ্য অধিদফতরের সিনিয়র উপ-প্রধান তথ্য অফিসার (প্রেস) মো. শাহেনুর মিয়া, ঢাকা জেলার এডিসি (সাধারণ) মোঃ শহিদুজ্জামান, বাংলাদেশ টেলিভিশনের পরিচালক (প্রশাসন) মুহা. নেছার উদ্দিন জুয়েল, বাংলাদেশ মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠানের পিএসও আবু মোহাম্মদ, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তরের আবহাওয়াবিদ ড. মোঃ আবদুল মান্নান, সরকারি আলিয়া মাদ্রাসার অধ্যক্ষ মো: আলমগীর রহমান, বায়তুল মুকাররম জাতীয় মসজিদের সিনিয়র পেশ ইমাম হাফেজ মাওলানা মুহাম্মদ মিজানুর রহমান, চকবাজার শাহী জামে মসজিদের খতীব মাওলানা শেখ নাঈম রেজওয়ান ও লালবাগ শাহী জামে মসজিদের খতিব মুফতি মুহাম্মদ নেয়ামতুল্লাহ প্রমুখ উপস্থিত ছিলেন।

সভায় জানানো হয় ১৪৪১ হিজরি সালের পবিত্র যিলকদ মাসের চাঁদ দেখা সম্পর্কে সকল জেলা প্রশাসন, ইসলামিক ফাউন্ডেশন-এর প্রধান কার্যালয়, বিভাগীয় ও জেলা কার্যালয়সমূহ, বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর এবং মহাকাশ গবেষণা ও দূর অনুধাবন প্রতিষ্ঠান হতে প্রাপ্ত তথ্যানুযায়ি ২৩ জুন মঙ্গলবার থেকে ১৪৪১ হিজরি সালের পবিত্র যিলকদ মাস গণনা শুরু হবে।

#

 

শায়লা/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/২০২৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ২২৪৬

জাতিসংঘ পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড ২০২০ দিবস আগামীকাল

বাংলাদেশের জাতিসংঘ পুরস্কার অর্জন

 

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

আগামীকাল ২৩ জুন বাংলাদেশ সময় সন্ধ্যা ৭টায় (যুক্তরাষ্ট্র ইএসটি সময় সকাল ৯টা) জাতিসংঘ ভার্চুয়াল অনুষ্ঠানের মধ্যে দিয়ে 'ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস দিবস’ উদ্‌যাপন করা হবে। এবারের প্রতিপাদ্য ‘On the frontlines: Honouring public servants in the COVID-19 pandemic response’। প্রতিবছর জাতিসংঘ ‘ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড’ প্রদান করে ৭টি ক্যাটেগরিতে।

ভূমি মন্ত্রণালয়ের ই-মিউটেশন কার্যক্রমটি দেশে-বিদেশে প্রশংসিত হওয়ায় কাজের স্বীকৃতি হিসেবে বাংলাদেশ প্রথমবারের মতো ‘Developing Transparent and Accountable Public Institutions’ ক্যাটেগরিতে জাতিসংঘের মর্যাদাপূর্ণ ‘জাতিসংঘ পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড-২০২০’ অর্জন করেছে।

উল্লেখ্য ২০০৩ সাল থেকে প্রতিবছর ২৩ জুন আনুষ্ঠানিকতার সঙ্গে জাতিসংঘ 'ইউনাইটেড নেশনস পাবলিক সার্ভিস দিবস’ উদ্‌যাপন করে।

বিশ্বব্যাপী কোভিড-১৯ মহামারী-এর প্রাদুর্ভাবের প্রেক্ষাপটে জাতিসংঘ এ বছর ‘পাবলিক সার্ভিস অ্যাওয়ার্ড’ বিতরণ অনুষ্ঠান স্থগিত করেছে। তাই এবার ভার্চুয়াল অনুষ্ঠান অনুষ্ঠিত হবে।

#

 

নাহিয়ান/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৯১৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ২২৪৫

শিক্ষা মন্ত্রণালয়াধীন সকল বৃত্তি কার্যক্রম ডিজিটালাইজড করা হয়েছে

                                                    -- শিক্ষামন্ত্রী

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

          শিক্ষামন্ত্রী ডা. দীপু মনি বলেছেন, শিক্ষা মন্ত্রণালয়ের অধীন সকল বৃত্তি কার্যক্রম  ডিজিটালাইজড করা হয়েছে। আগে ম্যানুয়াল পদ্ধতিতে বৃত্তি দেয়া হত এবং শিক্ষার্থীদের  টাকা পেতে অনেক ঝামেলা হত। অনলাইনে বৃত্তি কার্যক্রম পরিচালনা করার ফলে জিটুপি পদ্ধতিতে বৃত্তির টাকা সরাসরি শিক্ষার্থীর মোবাইল নম্বরে  পৌঁছে  যাবে। ফলে  শিক্ষার্থীরা দ্রুততম সময়ের মধ্যে তাদের টাকা পেয়ে যাবে এবং সরকারের সময় ও অর্থের সাশ্রয় হবে।

          মন্ত্রী আজ এক ভার্চুয়াল সভার মাধ্যমে ২০১৯-২০ অর্থবছরের জানুয়ারি থেকে জুন পর্যন্ত সময়ের উপবৃত্তির টাকা বিতরণ কার্যক্রমের উদ্বোধনের সময় প্রধান অতিথির বক্তব্যে একথা বলেন। ভার্চুয়াল সভায় আরও যুক্ত ছিলেন শিক্ষা উপমন্ত্রী মহিবুল হাসান চৌধুরী, মাধ্যমিক উচ্চশিক্ষা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক ড. সৈয়দ মোঃ গোলাম ফারুক-সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাবৃন্দ।

          মন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রীর আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ জয়ের নির্দেশনায় ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে যে অগ্রগতি সাধিত হয়েছে তার ফলস্বরূপ আমরা  দ্রুততম সময়ের মধ্যে শিক্ষার্থীদের  কাছে জিটুপি পদ্ধতিতে বৃত্তির অর্থ পৌঁছে দিতে পারছি । এজন্য মন্ত্রী প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ও সজীব ওয়াজেদ জয়ের প্রতি বিশেষ কৃতজ্ঞতা জানান।

          শিক্ষার্থী নির্বাচন করার পরে শিক্ষার্থীর আবেদন দাখিল, প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক অনুমোদন, প্রতিষ্ঠান প্রধান কর্তৃক UNO এর নিকট তালিকা দাখিল, USEO কর্তৃক অনুমোদনের পর তা স্কিম পরিচালকের নিকট দাখিল ও অনুমোদন, স্কিম পরিচালক কর্তৃক বিল দাখিল, মন্ত্রণালয়ের হিসাব রক্ষণ অফিস কর্তৃক বিল পাসের পর বিতরণের জন্য বাংলাদেশ ব্যাংকে প্রেরণ, বাংলাদেশ ব্যাংক কর্তৃক সংশ্লিষ্ঠ মোবাইল সার্ভিস প্রোভাইডারদের মাধ্যমে শিক্ষার্থীর মোবাইলে পৌঁছে দেয়া এই পুরো কাজটি অনলাইনে করা হবে।

          উল্লেখ্য, আজ  ৪৯২টি উপজেলার প্রায় ২৭ হজার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানের ১৯ লাখ ৯২ হাজার ৭৮০ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ৩২৮ কোটি ১৪ লাখ ১ হাজার ৯০০ টাকা জিটুপি (G2P) পদ্ধতিতে (অর্থাৎ বাংলাদেশ ব্যাংক থেকে উপবৃত্তি অর্থ সরাসরি প্রত্যেক শিক্ষার্থীর নির্ধারিত মোবাইল একাউন্টে পৌঁছে যাবে) প্রেরণ  করা হয়েছে। আগামী ২৪ জুনের মধ্যে শিক্ষার্থীদের মোবাইল নম্বরে তাদের উপবৃত্তির টাকা পৌঁছে যাবে।

          একই সময়ে মন্ত্রী জি2পি পদ্ধতিতে ২০১৯ সালের পিইসি এবং জেএসসি পরীক্ষায় উত্তীর্ণ শিক্ষার্থীদের মধ্যে বৃত্তি প্রাপ্ত ৮৩ হাজার ৯৬৪ জন শিক্ষার্থীর মাঝে ১৭ কোটি ৩২ লাখ ৭৬ হাজার ৩৮৫ টাকা প্রদানের কার্যক্রমের উদ্বোধন করেন। প্রতি অর্থবছরে বিভিন্ন ক্যাটেগরিতে এক লাখ ৮৭ হাজার ৩৮৪ জনকে ১৮৭ কোটি টাকার বৃত্তি প্রদান করা হয়। বৃত্তি প্রাপ্ত অন্যান্য শিক্ষার্থীদের বরাদ্দকৃত অর্থ পর্যায়ক্রমে অনলাইনে প্রেরণ করা হবে।

          অনলাইনে বৃত্তি প্রদানের এ সেবাটি মুজিববর্ষে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানকে উৎসর্গ করা হয়েছে।

#

 

খায়ের/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৯০৫ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                        নম্বর : ২২৪৪

প্রোগ্রামিং হবে ভবিষ্যতের ভাষা

               -- আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

            তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, প্রোগ্রামিং হবে ভবিষ্যতের ভাষা। কেন না এটি যন্ত্রের সঙ্গে মানুষ এমনকি যন্ত্রের সঙ্গে যন্ত্রের যোগাযোগের মাধ্যমও বটে। তিনি অন্যান্য বিষয়ের সঙ্গে প্রতিটি শিশু-কিশোরকে প্রোগ্রামিং শেখাতে সংশ্লিষ্টদের প্রতি আহ্বান জানান।

            প্রতিমন্ত্রী আজ অনলাইন প্ল্যাটফর্মে আইসিটি বিভাগের উদ্যোগে জাতীয় হাইস্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা-২০২০ এর উদ্বোধনী অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে এই আহ্বান জানান। 

            প্রতিমন্ত্রী বলেন, ৪র্থ শিল্প বিপ্লবের সম্পূ্র্ণটা হবে মেধা নির্ভর। আর্টিফিশিয়াল ইন্টেলিজেন্স (এআই), রোবটিকস, ব্লকচেইন, বিগ  ডাটার ন্যায় নতুন  নতুন প্রযুক্তি পৃথিবীকে দ্রুত বদলে দিচ্ছে। এ জন্য প্রোগ্রামিং শেখার বিকল্প নেই।  তিনি বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের বাংলা ভাষায় প্রোগ্রামিং শিক্ষার অনলাইন প্ল্যাটফর্ম ই-শিক্ষা.নেট ব্যবহারে সকলের প্রতি আহ্বান জানান। 

            প্রতিমন্ত্রী বর্তমান পৃথিবী পরিচালনায় প্রোগ্রামারদের ভূমিকার কথা উল্লেখ করে বলেন ‘ভবিষ্যতে তারাই বিশ্বকে নেতৃত্ব দেবে।   আর এ জন্য শিগগির স্কুল পর্যায়ে আরো সাড়ে ৫ হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব স্থাপন করা হবে বলে জানান জুনাইদ আহমেদ পলক। তিনি বলেন, ষষ্ঠ শ্রেণি থেকে দ্বাদশ কম্পিউটার শিক্ষা বাধ্যতামূলক হয়েছে। শৈশব ও কৈশর থেকেই যেন শিক্ষার্থীরা প্রোগ্রামিং জানতে পারে এ জন্য ইতোমধ্যেই আট হাজার শেখ রাসেল ডিজিটাল কম্পিউটার ল্যাব গড়ে তোলা সম্ভব হয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

            বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের নির্বাহী পরিচালক পার্থপ্রতিম দেবের সভাপতিত্বে অন্যান্যের মধ্যে বক্তব্য রাখেন আইসিটি বিভাগের সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলম,   অধ্যাপক জাফর ইকবাল,    কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপক সোহেল রহমান, ঢাকা বিশ্ববিদ্যলয়ের কম্পিউটার বিজ্ঞান বিভাগের অধ্যাপিকা লাফিফা জামাল।

            পরে প্রতিমন্ত্রী আনুষ্ঠানিভাবে অনলাইন প্রোগ্রামিং এর উদ্বোধন করেন।

            উল্লেখ্য, ‘জানুক সবাই দেখাও তুমি’-এই স্লোগানকে সামনে রেখে শিক্ষার্থীদের আইসিটি ও  প্রোগ্রামিংয়ের প্রতি আগ্রহী করে তোলা ও তাদের প্রোগ্রামিং দক্ষতা যাচাই করার জন্য তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগ এবং বাংলাদেশ কম্পিউটার কাউন্সিলের উদ্যোগে আজ থেকে স্কুল প্রোগ্রামিং প্রতিযোগিতা শুরু হয়েছে ।

            কোভিড-১৯-এর বর্তমান পরিস্থিতিতে প্রতিযোগিতাটি এবার আয়োজিত হচ্ছে অনলাইনে।

            এই কার্যক্রমের অংশ হিসেবে শিক্ষার্থীদের জন্য প্রশিক্ষণ, অনলাইন ও অনসাইট প্রোগ্রামিং ও কুইজ প্রতিযোগিতা এবং প্রোগ্রামিং ক্যাম্পসহ আরও নানান আয়োজন করা হয়ে থাকে।
প্রতিযোগিতায় অংশ নেওয়ার জন্য প্রথমেই http://online.nhspc.org ঠিকানায় গিয়ে রেজিস্ট্রেশন করতে হবে। রেজিস্ট্রেশন চলবে আগামী ২৪ জুন রাত ১২টা পর্যন্ত। 

#

শহিদুল/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮৪৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                            নম্বর : ২২৪৩

টিআরপি নির্ধারণ পদ্ধতিতে শৃঙ্খলা আনা হবে

                                  -- তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

            তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্‌মুদ বলেছেন, ‘অনুমোদনহীন টিআরপি সরকারের কাছে গ্রহণযোগ্য নয়, এক্ষেত্রে একটি শৃঙ্খলা অবশ্যই আনতে হবে।’

            আজ সচিবালয়ে তথ্য মন্ত্রণালয়ের সভাকক্ষে সাংবাদিকদের সাথে মতবিনিময়কালে এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী একথা বলেন।

            মন্ত্রী বলেন, ‘এখন কে কাকে টিআরপি দেয়, সেটি আমাদের জানা নেই। টিআরপি যারা করছে তারা কোথা থেকে অনুমতি নিয়েছে, কে তাদেরকে লাইসেন্স দিয়েছে -সেটি অনেকের প্রশ্ন। কারণ বাংলাদেশে টিআরপি নির্ধারণের জন্য সরকার অনুমোদিত কোনো প্রতিষ্ঠান নেই।’

            ‘আগে যেমন ক্যাবল নেটওয়ার্কে টিভি চ্যানেলের সিরিয়াল সামনের দিকে রাখার জন্য, এমনকি টিভি চ্যানেল যাতে বিভিন্ন এলাকায় দেখা যায়, সেজন্যও  নানা ধরণের অশুভ প্রতিযোগিতা ছিল, অনৈতিকতার আশ্রয় নেয়া হতো, সেটি আমরা বন্ধ করেছি’ উল্লেখ করে ড. হাছান বলেন, ‘তেমনি আমরা জানতে পেরেছি, যে অনুমোদনহীন প্রতিষ্ঠান বা প্রতিষ্ঠানগুলো টিআরপি নির্ধারণ করে, সেখানেও অশুভ, অসুস্থ প্রতিযোগিতা হয়, যা কোনোভাবেই কাম্য নয়।’

            ভারত, শ্রীলংকা এবং ইউরোপের দেশগুলোতে টিআরপি কিভাবে নির্ধারণ হয় সরকার তা পরীক্ষা-নিরীক্ষা করছে, জানান তথ্যমন্ত্রী। তিনি বলেন,  সবচেয়ে বড় টেলিভিশন শিল্পের দেশ ভারতে সরকারি এবং বেসরকারি প্রতিষ্ঠানের সমন্বয়ে একটি সংস্থা আছে সেই সংস্থা টিআরপি ঠিক করে দেয়। 

            তথ্যমন্ত্রী আরো জানান, ‘এবিষয়ে এটকো (এসোসিয়েশন অভ্ টেলিভিশন চ্যানেল ওনার্স), ব্রডকাস্ট জার্নালিস্ট সেন্টার এবং অন্যান্য অংশীজন যারা আছে, তাদের সাথে আলোচনা করে আমরা এখানে অবশ্যই খুব সহসা একটি শৃঙ্খলা নিয়ে আসবো। কোনো অনুমোদনহীন প্রতিষ্ঠান কোন টেলিভিশন কে কত বেশি দেখে, সেটি বলার বৈধ কোনো এখতিয়ার রাখে না।’ 

            অনুমোদনহীন টিআরপি নির্ধারণকারী প্রতিষ্ঠানের বিরুদ্ধে কি ব্যবস্থা নেয়া হবে জানতে চাইলে মন্ত্রী বলেন, ‘আমরা এখানে একটি শৃঙ্খলা নিয়ে আসবো এবং যারা অনুমোদন ছাড়া যারা এ কাজটি করে আসছে তাদের কাছে ব্যাখ্যা চাওয়া হবে।’ 

            এ সময় অবৈধ ও অনৈতিক ওয়েবসিরিজ বিষয়ে মন্তব্য চাইলে তথ্যমন্ত্রী সাংবাদিকদের বলেন, ওয়েবসিরিজ, সিনেমা বা যেকোনো কিছু নির্মাণ ও প্রচার করার ক্ষেত্রে আমাদের সংস্কৃতি ও মূল্যবোধের দিকে অবশ্যই খেয়াল রাখতে হয়। আমাদের একটি কৃষ্টি এবং সংস্কৃতি আছে, আমাদের সমাজের একটি মূল্যবোধ আছে। এটি অনেক সময় অনেকে মাথায় রাখেন না। 

            বিশ্বের সাথে প্রতিযোগিতা করতে হবে এই দোহাই দিয়ে আমাদের কৃষ্টি সংস্কৃতিকে অবজ্ঞা করে কোনো কিছু করা কখনোই সমীচীন নয়, আইনানুযায়ীও সেটি দণ্ডনীয় অপরাধ, বলেন ড. হাছান। বাংলাদেশে ২০১২ সালে প্রণীত এ সংক্রান্ত আইনানুযায়ী এ ধরণের অশ্লীলতা প্রচারের জন্য সর্বোচ্চ শাস্তি ১০ বছর কারাদণ্ড, উল্লেখ করেন তিনি। 

            যেসমস্ত সার্ভিস প্রোভাইডার এ ধরণের ওয়েজসিরিজ প্রচার করার সুযোগ করে দিয়েছে, তাদের এ কাজের জন্য আদৌ কোনো লাইসেন্স আছে কি না, তা আমরা খতিয়ে দেখছি, জানিয়ে তথ্যমন্ত্রী বলেন, যদি লাইসেন্স না থাকে তাহলে এই অবৈধ কাজের জন্য অবশ্যই আইনানুযায়ী ব্যবস্থা নেয়া হবে। আর লাইসেন্স থাকলেও তাদের ডোমেইন ব্যবহার করে এ ধরণের অশ্লীল জিনিস প্রচার করাও দণ্ডনীয় অপরাধ। সে বিষয়েও আইনগত ব্যবস্থা গ্রহণের প্রক্রিয়া চলছে। 

#

আকরাম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮২০ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ২২৪২

চামড়া সংশ্লিষ্ট ব্যবসায়ীদের জন্য আর্থিক সুবিধা নিশ্চিত করা হবে

                                                         -- শিল্পমন্ত্রী

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

          চামড়া শিল্পের বিশাল সম্ভাবনা কাজে লাগাতে আসন্ন ঈদুল আজহায় চামড়া ব্যবস্থাপনার সাথে জড়িত ব্যবসায়ীদের জন্য প্রয়োজনীয় আর্থিক সুবিধা নিশ্চিত করা হবে বলে জানিয়েছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন। তিনি বলেন, করোনা পরিস্থিতি বিবেচনা করে চামড়া শিল্পের সাথে জড়িত ব্যবসায়ীদের লাভের কথা বিবেচনা করে কাঁচা চামড়া ও লবণযুক্ত চামড়ার মূল্য নির্ধারণ করা হবে। এতে ব্যবসায়ীরা পর্যাপ্ত পরিমাণে চামড়া ক্রয় ও সংরক্ষণ করার সক্ষমতা অর্জন করবেন।

          আজ চামড়া শিল্প উন্নয়নের লক্ষ্যে গঠিত টাস্কফোর্সের দ্বিতীয় সভায় সভাপতিত্বকালে শিল্প মন্ত্রী এসব কথা বলেন।

          ভার্চুয়ালি অনুষ্ঠিত এ সভায় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান; পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মোঃ শাহাব উদ্দিন; শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার; শিল্প সচিব কে এম আলী আজম; প্রধানমন্ত্রীর কার্যালয়ের সচিব মোঃ তোফাজ্জল হোসেন মিয়া; বাণিজ্য সচিব ড. মোঃ জাফর উদ্দীন; জননিরাপত্তা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব মোঃ শাহেদ আলী; আর্থিক প্রতিষ্ঠান বিভাগের অতিরিক্ত সচিব অরিজিৎ চৌধুরী; অর্থ বিভাগের অতিরিক্ত সচিব রমেশ বিশ্বাস; বাংলাদেশ ট্যানার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মোঃ শাহিন আহমেদ; বাংলাদেশ ফিনিসড লেদার; লেদার গুডস এন্ড ফুটওয়্যার এক্সপোর্টার্স এসোসিয়েশনের সভাপতি মহিউদ্দিন আহমেদ মাহিন; মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় ও শিল্প মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তা-সহ ব্যবসায়ী সংগঠনের প্রতিনিধিরা অংশ নেন।

          সভায় জানানো হয়, আসন্ন ঈদুল আজহা উপলক্ষে জেলা ও উপজেলা প্রশাসন সহায়তায় মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয় এবং ইসলামিক ফাউন্ডেশন উদ্যোগে মসজিদের ইমাম, মৌসুমী চামড়া ব্যবসায়ী, চামড়া ছড়ানোর সাথে জড়িতদের চামড়া ছড়ানো ও সংরক্ষণের বিষয়ে প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে।

          সভায় তথ্য মন্ত্রণালয় ও লেদার বিজনেস প্রমোশন কাউন্সিলের মাধ্যমে ঈদুল আজহার কয়েকদিন পূর্ব হতে টেলিভিশনে জনসচেতনতামূলক বিজ্ঞাপন প্রচারসহ বিভিন্ন সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে প্রচারণা কার্যক্রম চালানোর সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়।

          সভায় প্রধানমন্ত্রীর বেসরকারি শিল্প ও বিনিয়োগ উপদেষ্টা সালমান ফজলুর রহমান ট্যানারি শিল্পের জন্য বাজেট সহায়তা নিশ্চিত করতে অর্থ বিভাগের সাথে যোগাযোগের পরামর্শ দেন।

          শিল্প প্রতিমন্ত্রী আসন্ন ঈদুল আজহায় চামড়া সংরক্ষণে দেশের কওমি মাদ্রাসাগুলোকে কাজে লাগানোর প্রস্তাব করেন। তিনি বলেন, কওমি মাদ্রাসাগুলো বহুদিন ধরে চামড়া প্রক্রিয়াজাতকরণের সাথে জড়িত এবং এ থেকে অর্জিত আয় দিয়ে ওইসব প্রতিষ্ঠান পরিচালিত হচ্ছে। কোরবানি উপলক্ষে কওমি মাদ্রাসাগুলোকে আর্থিক সহযোগিতা দিলে তারা আসন্ন কোরবানির ঈদে চামড়া ব্যবস্থাপনায় গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। শিল্প প্রতিমন্ত্রী হাজারীবাগে অবস্থিত ট্যানারি মালিকদের জমিতে 'রেড জোন' ঘোষণা দ্রুত প্রত্যাহারের জন্য রাজউকের প্রতি আহ্বান জানান। তিনি সাভারে চামড়া শিল্পনগরীতে সিইটিপির কাজ দ্রুত সমাপ্ত করতে বিসিককে নির্দেশনা প্রদান করেন।

#

মাসুম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮১৬ ঘণ্টা

 

 

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ২২৪১

বিভাগীয় পর্যায়ে কোভিড-১৯ স্বেচ্ছাসেবী প্রশিক্ষণ কর্মশালার উদ্বোধন করলেন তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

          তথ্যমন্ত্রী ড. হাছান মাহ্‌মুদ আজ ভিডিও কনফারেন্সের মাধ্যমে সচিবালয়ে নিজ দপ্তর থেকে বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটি আয়োজিত কোভিড-১৯ বিষয়ে বিভাগীয় পর্যায়ে স্বেচ্ছাসেবীদের অনলাইনে প্রশিক্ষণ কর্মশালা উদ্বোধন করেন।  

          আওয়ামী লীগের বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক সম্পাদক ও ইঞ্জিনিয়ার্স ইনস্টিটিউশনের সাবেক সভাপতি ইঞ্জিনিয়ার মো. আব্দুর সবুরের সঞ্চালনায় এতে সভাপতিত্ব করেন উপ-কমিটির সভাপতি অধ্যাপক ড. হোসেন মনসুর। খুলনা সিটি কর্পোরেশন মেয়র তালুকদার আব্দুল খালেক ও চট্টগ্রাম সিটি কর্পোরেশন মেয়র আ জ ম নাছির উদ্দিন বিশেষ অতিথি হিসেবে এবং আমন্ত্রিত অতিথিবর্গ, বিশেষজ্ঞবৃন্দ, বিজ্ঞান ও প্রযুক্তি বিষয়ক উপ-কমিটির বিভিন্ন পর্যায়ের নেতৃবৃন্দ-সহ সকল বিভাগের প্রশিক্ষণার্থীরা এতে অংশ নেন।

          ড. হাছান বলেন, ‘প্রধানমন্ত্রী ও বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি করোনা পরিস্থিতি মোকাবিলায় দলীয় নেতাকর্মীদের জনগণের পাশে থাকার জন্য নির্দেশ দিয়েছিলেন। আপনারা দেখেছেন আমাদের দলের বহুনেতা আজকে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত। আওয়ামী লীগের কেন্দ্রীয় কমিটির ৮১ সদস্যের মধ্যে বরেণ্য নেতা মোহাম্মদ নাসিম, শেখ আবদুল্লাহ ও বদর উদ্দিন আহমদ কামরান -তিনজন ইতোমধ্যে করোনা ভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে মৃত্যুবরণ করেছেন। তাঁরা প্রত্যেকেই জনগণের পাশে থেকে কাজ করছিলেন। উপদেষ্টামণ্ডলীর সদস্য হাজী মকবুল হোসেনও জনগণের সাথে কাজ করতে গিয়ে করোনায় আক্রান্ত হয়ে দুঃখজনকভাবে মৃত্যুবরণ করেছেন।

          এ সময় ২৩ জুন আওয়ামী লীগের প্রতিষ্ঠাবার্ষিকীর কথা স্মরণ করে তথ্যমন্ত্রী বলেন, ‘আওয়ামী লীগ জনগণের মধ্য থেকে গড়ে ওঠা একটি দল। দুর্যোগ-দুর্বিপাকে সর্বদা আমাদের দল মানুষের পাশে ছিল, আছে এবং থাকবে। আমাদের নেত্রী জননেত্রী শেখ হাসিনা মৃত্যুঞ্জয়ী নেত্রী। তিনি সব সময় মৃত্যুকে হাতের মুঠোয় নিয়ে জনগণের সেবা করে গেছেন, সেবা করে যাচ্ছেন, জনগণের অধিকার আদায়ের সংগ্রাম নেতৃত্ব দিয়েছেন এবং বাংলাদেশকে নেতৃত্ব দিয়ে আজ বিশ্বের বুকে মর্যাদার আসনে আসীন করেছেন।’

#

আকরাম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৮০৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ২২৪০

কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস) সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

          ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন সেন্টার (এনডিআরসিসি) থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য ৬৪ জেলায় ইতোমধ্যে ২ লাখ ১১ হাজার ১৭ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া শিশু খাদ্য-সহ অন্যান্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য ১২২ কোটি ৯৭ লাখ ৭২ হাজার ২৬৪ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বরাদ্দকৃত এ সাহায্য দেশের সকল জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিতরণ করা হচ্ছে ।

 ‌         স্বাস্থ্য অধিদপ্তর এবং রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী আজ দেশে নতুন করে আরো ৩ হাজার ৪৮০ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ১ লাখ ১৫ হাজার ৭৮৬ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৩৮ জন-সহ এ পর্যন্ত ১ হাজার ৫০২ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৫ হাজার ৫৫৫ জনের নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে। করোনা ভাইরাস আক্রান্তদের মধ্যে এখন পর্যন্ত সুস্থ হয়েছেন ৪৬ হাজার ৭৫৫ জন ।

          এখন পর্যন্ত সর্বমোট ২৫ লাখ ২৮ হাজার ২৪৫টি পিপিই সংগ্রহ করা হয়েছে। এর মধ্যে মোট বিতরণ করা হয়েছে ২৩ লাখ  ৪৮ হাজার ২১৪টি এবং মজুত আছে ১ লাখ ৮০ হাজার ৩১টি।

          সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ৬২৯টি প্রতিষ্ঠান এবং এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের সেবা প্রদান করা যাবে ৩১ হাজার ৯৯১ জনকে।

#

 

তাসমীন/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০২০/১৭২৪ ঘন্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                               নম্বর: ২২৩৯

ফেইক নিউজ মোকাবিলায় ‘ফ্যাক্ট চেকিং সাইট’ তৈরি করবে সরকার

                                                                                                                                                          -তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী

 

ঢাকা, ৮ আষাঢ় (২২ জুন) :

তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি বিভাগের উদ্যোগে গতকাল রাতে বিভাগের অফিসিয়াল ফেসবুক পেইজ থেকে ‘ফেইক নিউজ নিয়ন্ত্রণ’ বিষয়ক একটি অনলাইন সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

উক্ত সেমিনারে প্রধান অতিথি ছিলেন তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক। বিশেষ অতিথি ছিলেন একই বিভাগের সিনিয়র সচিব এনএম জিয়াউল আলম।

সেমিনারে প্রতিমন্ত্রী জানিয়েছেন, ফেইক নিউজ মোকাবিলায় তথ্য ও যোগযোগ প্রযুক্তি বিভাগ নানা ধরনের উদ্যোগ গ্রহণ করেছে। সচেতনতা মূলক কার্যক্রম এর সমাজের ডিজিটাল লিটারেসি বাড়াতে প্রকল্প গ্রহণসহ ডিজিটাল সিকিউরিটি এ্যাক্টের আওতায় ডিজিটাল সিকিউরিটি এজেন্সিকে কার্যকর করার পাশাপাশি প্রযুক্তিগত ও আইনগত সহয়তার জন্য ডিজিটাল সিকিউরিটি হেল্পলাইন তৈরি ও ভুয়া সংবাদ নিয়ন্ত্রণের জন্য ‘ফ্যাক্ট চেকিং সাইট’ তৈরি করার উদ্যোগ গ্রহণ করবে সরকার।

সারা পৃথিবী এই মুহূর্তে করোনা মহামারীর মতো আরেকটি মহামারীতে ভুগছে। সংবাদ বিকাশের সর্বস্তরে ফেক নিউজ বা ভুয়া সংবাদের অস্তিত্ব থাকলেও ডিজিটাল যুগে তা মারাত্মক আকার ধারণ করেছে। এর ফলে সামাজিক, রাজনৈতিক ও মনস্তাত্ত্বিকভাবে ভীষণ ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে মানুষ। এরই পরিপ্রেক্ষিতে ফেইক নিউজ কিভাবে নিয়ন্ত্রণ করে প্রযুক্তিকে মানুষের কল্যাণে ব্যবহার করা যায়, তারই পরিকল্পনা নির্ধারণ করতে এই সেমিনার অনুষ্ঠিত হয়।

কর্মশালায় কি-নোট-পেপার উপস্থাপন করেন আমেরিকার ফোর্ডহাম বিশ

2020-06-22-22-09-2cd5504b11b030470acdd0ad658a94ba.docx 2020-06-22-22-09-2cd5504b11b030470acdd0ad658a94ba.docx

Share with :

Facebook Facebook