তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ৭ জুলাই ২০১৯

তথ্যবিবরণী - 7/7/2019

তথ্যবিবরণী                                                                                    নম্বর : ২৪৬২
 
১৬ জুলাই থেকে সাশ্রয়ী মূল্যে এডিএসএল ও জিপন ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ
 
ঢাকা, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :
সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহার নিশ্চিত করতে বিটিসিএল এর এডিএসএল (অউঝখ) এবং জিপন (এচঙঘ) এর  ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথের দাম অর্ধেকেরও বেশি কমানো হয়েছে। বিটিসিএল ল্যান্ড ফোনে এডিএসএল ও জিপন ব্যবহারকারী গ্রাহকগণ ১৬ জুলাই থেকে এ সুবিধা পাবেন। 
ঢাকায় বিটিসিএল কার্যালয়ে আয়োজিত এক বৈঠকে আজ এই সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী মোস্তাফা জব্বার বৈঠকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন। ডাক ও টেলিযোগাযোগ বিভাগের সচিব অশোক কুমার বিশ^াসের সভাপতিত্বে বিটিসিএল- এর ব্যবস্থাপনা পরিচালক ইকবাল মাহমুদসহ বিটিসিএল এর পদস্থ কর্মকর্তারা বৈঠকে উপস্থিত ছিলেন।
ডাক ও টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বৈঠকে বিটিসিএল এর সম্পদ, নেটওয়ার্ক এবং বিদ্যমান মানব সম্পদ যথাযথ প্রশিক্ষণের মাধ্যমে প্রতিষ্ঠানটিকে সেরা প্রতিষ্ঠানে রূপান্তরের জন্য লাগসই কর্মপরিকল্পনা গ্রহণ ও বাস্তবায়নের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ প্রদান করেন। তিনি বলেন, বিটিসিএলকে প্রশংসনীয় প্রতিষ্ঠানে পরিণত করা সম্ভব। মন্ত্রী এডিএসএল এবং জিপন ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথ সার্ভিসকে আরো জনপ্রিয় করতে এর নেটওয়ার্ক সম্প্রসারণে প্রয়োজনীয় উদ্যোগ গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্টদের নির্দেশ দেন। 
বৈঠকে ইন্টারনেট ব্যান্ডউইডথের মূল্যহ্রাস বিষয়ে টেলিযোগাযোগ মন্ত্রী বলেন, দেশের মানুষ যাতে সাশ্রয়ী মূল্যে ইন্টারনেট ব্যবহার করতে পারেন সেই লক্ষ্যে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকার এর আগে ২০০৯ সালের আগস্ট মাসে প্রতি এমবিপিএস ইন্টারনেটের মূল্য ২৭ হাজার টাকা থেকে কমিয়ে ১৮ হাজার টাকায় নির্ধারণ করা হয়। পরবর্তীতে কয়েক ধাপে মূল্য হ্রাস করে সর্বশেষ এ বছরের ২৭ জুন এক এমবিপিএএস ব্যান্ডউইডথের সর্বনি¤œ চার্জ ৩৬০ টাকা থেকে ১৮০ টাকায় নির্ধারণ করা হয়েছে।
#
 
শেফায়েত/ফারহানা/রাহাত/সঞ্জীব/রেজাউল/২০১৯/১৯২৫ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ২৪৬১
ঢাকা মহানগরীতে মশক নিধনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে
                                           ---স্থানীয় সরকার মন্ত্রী
ঢাকা, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :  
 
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, ঢাকা মহানগরীতে মশক নিধনে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে এবং পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে রয়েছে। ঢাকা উত্তর ও দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনসহ অন্যান্য দপ্তর ও সংস্থা তাদের কার্যক্রম জোরদার করেছে। এ নিয়ে আতঙ্কিত হওয়ার কিছু নেই। মশক নিধনে প্রয়োজনীয় জনবল নিয়োগ করা হচ্ছে। বিশ^ স্বাস্থ্য সংস্থার অনুমোদিত ওষুধ কেনা হচ্ছে। সভায় কীটনাশক ক্রয়ের পূর্বে এর যথাযথ মান যাচাই এবং মশক নিধন কার্যক্রমের নিবিড় তদারকি করতে মন্ত্রী সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা প্রদান করেন। মশার ওষুধ প্রয়োগে কারো অবহেলা পেলে তার বিরুদ্ধে ব্যবস্থা নেয়া হবে বলে তিনি জানান।  
আজ সচিবালয়ে স্থানীয় সরকার বিভাগের সম্মেলন কক্ষে ঢাকা মহানগরীর মশক নিধন কার্যক্রম বিষয়ক পর্যালোচনা সভায় সভাপতিত্বকালে মন্ত্রী এসব কথা বলেন। সভায় অন্যদের মধ্যে বক্তব্য রাখেন ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়র সাঈদ খোকন, ঢাকা উত্তর সিটি কর্পোরেশনের মেয়র মোঃ আতিকুল ইসলাম, স্থানীয় সরকার বিভাগের সচিব হেলালুদ্দীন আহমদ প্রমুখ। 
সভায় ঢাকা উত্তর ও ঢাকা দক্ষিণ সিটি কর্পোরেশনের মেয়রদ্বয় মশা নিধনে ও ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পেতে তাদের সামগ্রিক কার্যক্রম তুলে ধরেন এবং ডেঙ্গুর প্রকোপ ধীরে ধীরে কমে আসবে বলে আশা প্রকাশ করেন। ডেঙ্গুসহ মশাবাহিত অন্যান্য রোগ থেকে রক্ষা পেতে জনসাধারণের মধ্যে সচেতনতা বৃদ্ধি করা জরুরি বলেও তারা মত প্রদান করেন। 
এ সময় সাংবাদিকদের এক প্রশ্নের জবাবে মন্ত্রী জানান, ঢাকা ওয়াসার পানি নিয়ে হাইকোর্টে যে রিপোর্ট জমা দেওয়া হয়েছে তাতে অধিকাংশ জায়গার পানিতেই তেমন কোনো সমস্যা নেই। অল্প কিছু জায়গায় যে সমস্যা রয়েছে তা দ্রুত সমাধানের জন্য ঢাকা ওয়াসা ও সংশ্লিষ্টদের নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে। 
 
#
মাহমুদুল/ফারহানা/ইসরাত/সঞ্জীব/আব্বাস/২০১৯/১৯১৬ ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                  নম্বর : ২৪৬০

 

শিল্প কারখানা স্থাপনে সরকার সব ধরনের সহায়তা করবে

                                                     --শিল্পমন্ত্রী

 

চট্টগ্রাম, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :

            শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন বলেছেন, সরকারি কিংবা বেসরকারি যেকোনো পর্যায়ের শিল্প কারখানা স্থাপনে সরকার সব ধরনের সহায়তা করবে।

            শিল্পমন্ত্রী আজ চট্টগ্রামের আনোয়ারায় কর্ণফুলী ফার্টিলাইজার কোম্পানি লিমিটেড (কাফকো) পরিদর্শনকালে  প্রতিষ্ঠানটির ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাদের সাথে মতবিনিময় সভায় এসব কথা বলেন। কাফকোর চিফ অপারেশন্স অফিসার আজিজুর রহমান চৌধুরী এতে সভাপতিত্ব করেন। 

            সভায় কাফকোকে একটি এনার্জি এফিসিয়েন্ট সার কারখানা হিসেবে উল্লেখ করে শিল্পমন্ত্রী এ কারখানায় নিরবচ্ছিন্ন গ্যাস সরবরাহের আশ্বাস দেন।  

            কাফকোর চিফ অপারেশন্স অফিসার আগামীতে কাফকোর প্রাঙ্গণে নতুন একটি এনপিকেএস সার কারখানা নির্মাণের পরিকল্পনার কথা জানান। এ সময় তিনি পূর্বের  মূল্যে কাফকোকে গ্যাস সরবরাহের বিষয়ে শিল্পমন্ত্রীর নিকট অনুরোধ জানান।

#

 

মাসুম/ফারহানা/রফিকুল/রেজাউল/২০১৯/১৯০০  ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                 নম্বর : ২৪৫৯
 
বহুপাক্ষিক অংশীদারিত্ব টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ত্বরান্বিত করবে
                                                       ---স্থানীয় সরকার মন্ত্রী
ঢাকা, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :  
 
স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মোঃ তাজুল ইসলাম বলেছেন, পারস্পরিক জ্ঞান ও অভিজ্ঞতা বিনিময়, প্রযুক্তিগত ও আর্থিক সহযোগিতার মাধ্যমে বহুপাক্ষিক অংশীদারিত্ব নিশ্চিত করা গেলে টেকসই উন্নয়ন লক্ষ্যমাত্রা অর্জন ত্বরান্বিত হবে।
 
  আজ এশিয়া-প্রশান্ত মহাসাগরীয় সমন্বিত পল্লী উন্নয়ন কেন্দ্র (সিরডাপ) এর ৪০ বছর পূর্তি উপলক্ষে আয়োজিত দু’দিনব্যাপী অনুষ্ঠানমালার উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তৃতায় মন্ত্রী এসব কথা বলেন। 
 
অনুষ্ঠানে স্বাগত বক্তৃতা করেন সিরডাপের মহাপরিচালক ঞবারঃধ এ. ইড়ংবরধিয়ধ ঞধমরহধাঁষধঁ। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশে ফিলিপাইনের রাষ্ট্রদূত ঠরপবহঃব ঠরাবহপরড় ঞ. ইধহফরষষড় এবং পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় বিভাগের সচিব কামালউদ্দিন তালুকদার।
 
মন্ত্রী বলেন, এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের পল্লীর জনগণের দারিদ্র্য বিমোচন ও ভাগ্যোন্নয়নে বিগত ৪০ বছর ধরে সিরডাপের ভূমিকা উল্লেখ করার মতো। এর সদস্য ১৫টি দেশ বিভিন্নভাবে এ সংস্থার মাধ্যমে উপকৃত হচ্ছে। এশিয়া ও প্রশান্ত মহাসাগরীয় অঞ্চলের দেশসমূহ এবং বিশ^ খাদ্য সংস্থা (ঋঅঙ) এর উদ্যোগে প্রতিষ্ঠিত এ সংস্থাটি উন্নয়নশীল দেশসমূহে পল্লি উন্নয়নে আগামী দিনগুলোতে আরো কার্যকর ভূমিকা রাখতে সক্ষম হবে। 
 
এরপর মন্ত্রী সিরডাপের ই-লাইব্রেরি ও পল্লি উন্নয়ন মেলার উদ্বোধন করেন এবং মেলায় অংশগ্রহণকারী স্টলসমূহ ঘুরে দেখেন।
 
#
মাহমুদুল/ফারহানা/রফিকুল/আব্বাস/২০১৯/১৮৪৫ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                     নম্বর : ২৪৫৮
 
লবণাক্ততার ক্ষতিকর প্রভাব নারী ও শিশুর জীবনকে আক্রান্ত করছে
                                              ---সচিব কামরুন নাহার
 
ঢাকা, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :  
মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের সচিব কামরুন নাহার বলেছেন, জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে লবণাক্ততার ক্ষতিকর প্রভাব সরাসরি নারী ও শিশুর জীবনকে আক্রান্ত করছে। লবণাক্ততা উপকূলীয় এলাকার মানুষের অভিযোজন ক্ষমতা কমিয়ে দিচ্ছে ফলে তাদের জীবন অরক্ষিত হয়ে পড়ছে।
 
 ঢাকার ইস্কাটনে বাংলাদেশ ইনস্টিটিউট অভ্ ইন্টারন্যাশনাল এন্ড স্ট্রাটেজিক স্টাডিজ (বিজ) মিলনায়তনে উপকূলীয় জনগোষ্ঠীর বিশেষত নারীদের জলবায়ু পরিবর্তনজনিত লবণাক্ততা মোকাবিলায় অভিযোজন সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ প্রকল্পের ইন্সেপশন ওয়ার্কশপে প্রধান অতিথির বক্তব্যে সচিব কামরুন নাহার এসব কথা বলেন। 
 
কামরুন নাহার বলেন, বিশ্বের অনেক দেশ জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষতিকর প্রভাবের শিকার। উন্নত দেশসমূহ প্রচুর পরিমাণে কার্বন নিঃসরণ করছে। এর ফলে প্রতিনিয়তই পৃথিবীর উষ্ণতা বাড়ছে। জলবায়ু পরিবর্তনের ক্ষেত্রে আমরা নির্দোষ কিন্তু আবার আমরাই ভয়ঙ্কর ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। আমরা ধীরে ধীরে প্রাকৃতিক ভারসাম্যহীন অবস্থার দিকে যাচ্ছি। 
 
জলবায়ু পরিবর্তনের কারণে বাংলাদেশের চরম বিপন্নতার বিভিন্ন তথ্য তুলে ধরে সচিব বলেন, বাংলাদেশের ৬০ শতাংশ ভূমি সমুদ্রপ্রৃষ্ঠ হতে মাত্র ৫ মিটার উচ্চতায় অবস্থিত। সমুদ্রপৃষ্ঠের উচ্চতা বৃদ্ধি আমাদের জন্য বড় ঝুঁকি। তিনি আরো বলেন, সরকার জলবায়ু পরিবর্তন থেকে সৃষ্ট ঝুঁকি মোকাবিলায় অগ্রাধিকার কর্মসূচি হাতে নিয়েছে।  
 
কর্মশালায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন ইউএনডিপি বাংলাদেশের আবাসিক প্রতিনিধি সুদীপ্ত মুখ্যার্জী। সভাপতিত্ব করেন মহিলা ও শিশু বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব শেখ রফিকুল ইসলাম বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন জনস্বাস্থ্য প্রকৌশল অধিদপ্তরের প্রধান প্রকৌশলী সাইফুর রহমান, মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের মহাপরিচালক বদরুন নেছা এবং বন, পরিবেশ ও জলবায়ু পরিবর্তন বিষয়ক মন্ত্রণালয়ের অতিরিক্ত সচিব  ড. এস এম মঞ্জুরুল হান্নান খান। কর্মশালায় বিভিন্ন মন্ত্রণালয় , বিভাগ ও দপ্তরের প্রতিনিধি অংশগ্রহণ করেন।
#
আলমগীর/ফারহানা/রফিকুল/আব্বাস/২০১৯/১৮১০ ঘণ্টা
তথ্যবিবরণী                                                                                      নম্বর : ২৪৫৭
 
সংস্কৃতি প্রতিমন্ত্রীর সাথে ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূতের সাক্ষাৎ
 
ঢাকা, ২৩ আষাঢ় (৭ জুলাই) :
বাংলাদেশে নিযুক্ত ভিয়েতনামের রাষ্ট্রদূত ট্রান ভ্যান খোয়া (ঞৎধহ ঠধহ কযড়ধ) রোববার সংস্কৃতি বিষয়ক প্রতিমন্ত্রী কে এম খালিদের সাথে তাঁর সচিবালয়স্থ অফিসে সাক্ষাৎ করেন।
সাক্ষাতকালে বন্ধুপ্রতিম দু’দেশের মধ্যে শিল্প-সাহিত্য-সংস্কৃতি ক্ষেত্রে সহযোগিতা বৃদ্ধির পাশাপাশি পারস্পরিক সাংস্কৃতিক বিনিময় জোরদারকরণ বিষয়ে আলোচনা হয়।
রাষ্ট্রদূত জানান, ভিয়েতনামের জাতির জনক হো চি মিনের ওপর নির্মিত একটি ‘ড্যান্স থিয়েটার’ বাংলাদেশ শিল্পকলা একাডেমিতে পরিবেশিত হবে। এটি পরিচালনা করেছেন বাংলাদেশের তুরঙ্গমী রেপার্টরি ড্যান্স থিয়েটারের পরিচালক পূজা সেনগুপ্ত। তিনি এ অনুষ্ঠানে প্রতিমন্ত্রীকে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থাকার অনুরোধ করেন। তিনি আরো জানান, ভিয়েতনামে প্রতি তিন বছর অন্তর একটি আন্তর্জাতিক নৃত্য উৎসব অনুষ্ঠিত হয়। ২০১৭ সালে এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের একটি নৃত্যদলসহ ১৭টি দেশের নৃত্যশিল্পীরা অংশগ্রহণ করেছিল। তিনি আগামীতে এ প্রতিযোগিতায় বাংলাদেশের অংশগ্রহণের ব্যাপারে প্রতিমন্ত্রীর সহযোগিতা কামনা করেন।
প্রতিমন্ত্রী এ ব্যাপারে রাষ্ট্রদূতকে সর্বাত্মক সহযোগিতার আশ্বাস দেন। তিনি দু’দেশের সাংস্কৃতিক বিনিময় জোরদারকরণের জন্য ভিয়েতনামের একটি সাংস্কৃতিক দলকে দ্রুততম সময়ের মধ্যে বাংলাদেশে প্রেরণে সহায়তা করার জন্য রাষ্ট্রদূতকে অনুরোধ করেন।
 
#
 
ফয়সল/অনসূয়া/পরীক্ষিৎ/নাছির/রবি/শামীম/২০১৯/১৫৩৮  ঘণ্টা 
 
Todays handout (6).docx Todays handout (6).docx

Share with :

Facebook Facebook