তথ্য অধিদফতর (পিআইডি) গণপ্রজাতন্ত্রী বাংলাদেশ সরকার
মেনু নির্বাচন করুন
Text size A A A
Color C C C C
সর্ব-শেষ হাল-নাগাদ: ১৮ মে ২০২০

তথ্যবিবরণী ১৭ মে ২০২০

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ১৭৮৬

জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান ও বীর মুক্তিযোদ্ধা

অধ্যাপক মমতাজ বেগমের মৃত্যুতে শিল্পমন্ত্রী ও তথ্য প্রতিমন্ত্রীর শোক

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          মহান মুক্তিযুদ্ধের অন্যতম সংগঠক, সাবেক সংসদ সদস্য , বাংলাদেশ মহিলা আওয়ামী লীগের প্রাক্তন সাধারণ সম্পাদক ও জাতীয় মহিলা সংস্থার চেয়ারম্যান অধ্যাপক মমতাজ বেগমের মৃত্যুতে গভীর শোক প্রকাশ করেছেন শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন।

          আজ এক শোকবাণীতে শিল্পমন্ত্রী বলেন, এই মহীয়সী নারী বাংলাদেশের স্বাধীনতা যুদ্ধের পটভূমি তৈরি এবং মুক্তিযুদ্ধকালীন অস্থায়ী মুজিবনগর সরকারের ভিতরে থেকে বাঙালি জাতির স্বাধীনতা অর্জনের পথ সুগম করতে অসামান্য অবদান রেখেছেন। স্বাধীনতা পরবর্তী জাতি গঠন, নারীর ক্ষমতায়ন এবং আর্থসামাজিক অগ্রগতিতে নারীর অংশগ্রহণ জোরদারে তাঁর অসাধারণ ভূমিকা ছিল। বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধের ইতিহাস এবং নারী অধিকার প্রতিষ্ঠায় তাঁর অবদানের কথা বাঙালি জাতি চিরকাল গভীর শ্রদ্ধা ও কৃতজ্ঞতার সাথে স্মরণ রাখবে।

          শিল্পমন্ত্রী মুরাদ হাসান মরহুমার রুহের মাগফিরাত এবং শোকসন্তপ্ত পরিবারের সদস্যদের প্রতি গভীর সমবেদনা জানান।

          পৃথক শোকবার্তায় তথ্য প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ মুরাদ হাসান মরহুমার মৃত্যুতে গভীর শোক ও দুঃখ প্রকাশ করেন।

#

জলিল/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২২০০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ১৭৮৫

বিদ্যুৎ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে আইইডিসিআরকে ২৫ হাজার কিট হস্তান্তর

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ের রোগতত্ত¦ , রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা ইনস্টিটিউট (আইইডিসিআর)কে ২৫ হাজার করোনা ভাইরাস সনাক্তের কিট গত ১৪ মে হস্তান্তর করা হয়েছে। আইইডিসিআর-এর সিনিয়র সায়েন্টিফিক অফিসার ডাঃ শারমিন সুলতানা এ কিটগুলো গ্রহণ করেছেন।

          বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ প্রতিমন্ত্রী নসরুল হামিদ বলেন, গত মার্চ মাস থেকে এ পর্যন্ত ফ্রন্ট লাইনে যারা সেবা দিচ্ছেন এমন সদস্য ডাক্তার, নার্স, পুলিশকে সারা দেশে ৪০ হাজার পার্সোনাল প্রটেকশন ইকুইপমেন্ট (পিপিই) দেয়া হয়েছে। স্বাস্থ্য মন্ত্রণালয়ও বাংলাদেশের জনগণকে এ ধরনের আরো সহযোগিতা করার জন্য আমাদের প্রচেষ্টা অব্যাহত থাকবে।

#

আসলাম/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২১৫৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ১৭৮৪

অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে

                                                    - আইসিটি প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          তথ্য ও যোগাযোগ প্রযুক্তি প্রতিমন্ত্রী জুনাইদ আহমেদ পলক বলেছেন, করোনা পরিস্থিতি পরবর্তী পৃথিবী আইটি ফ্রিল্যান্সারদের প্রয়োজনীয়তা গুরুত্বপূর্ণ হয়ে উঠছে। তিনি বলেন, করোনার কারণে আমাদের প্রশিক্ষণ কার্যক্রম বাধাগ্রস্ত হাওয়ায়, অনলাইন ক্লাসই আমাদের ভবিষ্যৎ। আর করোনা অনলাইন শিক্ষায় নতুন দিগন্ত উন্মোচন করেছে। বিরাজমান অবস্থায় অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রম চালুর মাধ্যমে শহর-গ্রামের বৈষম্য দূর হবে বলে উল্লেখ করেন তিনি।

          প্রতিমন্ত্রী আজ জুম অনলাইন প্লাটফর্মে আইসিটি বিভাগের অধীন লার্নিং এন্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রজেক্ট এর অনলাইন প্রশিক্ষণ কার্যক্রমের উদ্বোধন উপলক্ষে প্রধান অতিথির বক্তৃতা করছিলেন। ফ্রিল্যান্সিংই ভবিষ্যৎ উল্লেখ করে পলক বলেন, দেশের ৭০ শতাংশ তরুণের আত্মকর্মসংস্থান নিশ্চিত করতে অনলাইনে প্রশিক্ষণ কার্যক্রম শুরু করলো আইসিটি বিভাগের লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্প।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার দিকনির্দেশনা এবং আইসিটি বিষয়ক উপদেষ্টা সজীব ওয়াজেদ এর পরামর্শে বাস্তবধর্মী বিভিন্ন কার্যক্রম বাস্তবায়নের ফলে ডিজিটাল বাংলাদেশ বিনির্মাণে দেশ অনেক দূর এগিয়ে গেছে। দেশজুড়ে ইউনিয়ন পর্যায়ে উচ্চগতির ইন্টারনেট এবং পেমেন্ট গেটওয়ে অবকাঠামো তৈরির ফলেই এখন আমরা ঘরে বসেই দক্ষ মানবসম্পদ তৈরির মতো ফ্রিল্যান্সার প্রশিক্ষণের কার্যক্রম অনলাইনে শুরু করা সম্ভব হয়েছে।

          প্রযুক্তি জ্ঞানকে উন্মুক্ত করেছে উল্লেখ করে প্রতিমন্ত্রী বলেন, লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং প্রকল্পের অধীনে এসএসসি ও এইচএসসি পাশের পরও তরুণদের প্রশিক্ষণ প্রদান করে তাদের আত্মকর্মসংস্থান করে দিতেই এই উদ্যোগ করোনাতেও চলমান রাখা গেছে।

          উল্লেখ্য, অনলাইনেই প্রশিক্ষণ নিতে ১ লাখ ৮৫ হাজার শিক্ষার্থী নিবন্ধন করে। তবে পিসি ও উচ্চগতির নিরবচ্ছিন্ন ইন্টারনেট সংযোগ রয়েছে এমন ১৫টি ভাগে ভাগ করে দেশের ৪৯২ লোকেশনে ৪০ হাজার প্রশিক্ষণার্থীকে পর্যাযক্রমে প্রশিক্ষণ দেয়া হবে। এজন্য ৩৯টি আইটি প্রতিষ্ঠানকে নিয়োগ দেয়া হয়েছে। ১৫টি জেলায় ওয়েব, গ্রাফিক্স ও ডিজিটাল মার্কেটিং ৩ টি কোর্সের ওপর ২০০ ঘণ্টার এই প্রশিক্ষণ প্রদান করা হচ্ছে।

          আইসিটি সিনিয়র সচিব এন এম জিয়াউল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে লার্নিং অ্যান্ড আর্নিং ডেভেলপমেন্ট প্রকল্পের প্রকল্প পরিচালক মোঃ আখতার মামুন ছাড়াও প্রশিক্ষণ উপকরণ পরিকল্পনাকারী শফিউল আলম বক্তব্য রাখেন।

#

শহিদুল/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২১৫০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ১৭৮৩

ত্রাণে অনিয়ম ও স্বজনপ্রীতির অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ওয়ার্ড কাউন্সিলর বরখাস্ত

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          মানবিক সহায়তা কার্যক্রম (ওএমএস) তালিকায় সচ্ছল পরিবারের সদস্য ও নিজের আত্মীয়-স্বজন-সহ ১৫ জনের নাম অন্তর্ভুক্ত করে স্বজন প্রীতি ও সরকারের ভাবমূর্তি ক্ষুণ্ন করার অভিযোগে ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার ১০ নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর মোঃ মাকবুল হোসাইনকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করেছে স্থানীয় সরকার, পল্লী উন্নয়ন ও সমবায় মন্ত্রণালয়। স্থানীয় সরকার বিভাগ হতে আজ এ সংক্রান্ত প্রজ্ঞাপন জারি করা হয়।

          এ নিয়মে মোট ৫৬ জন জনপ্রতিনিধিকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হলো। তাদের মধ্যে ২০ জন ইউপি চেয়ারম্যান, ৩৩ জন ইউপি সদস্য, ১ জন জেলা পরিষদ সদস্য এবং ২ জন পৌরসভার কাউন্সিলর।

          আজ সাময়িকভাবে বরখাস্তকৃত ব্রাহ্মণবাড়িয়া পৌরসভার কাউন্সিলর মোঃ মাকবুল হোসাইনের বিরুদ্ধে করোনা ভাইরাস (কোভিড ১৯) সংক্রমণের কারণে উদ্ভূত পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়া দরিদ্র/নিম্নআয়ের মানুষের মধ্যে বিশেষ ওএমএস কার্যক্রম এর আওতায় ১০ টাকা কেজি দরে চাল বিতরণে অনিয়ম করে একটি সচ্ছল পরিবারের সদস্য ও আত্মীয়-স্বজন-সহ ১৫ ব্যক্তির নাম ওএমএস তালিকায় অন্তর্ভুক্ত করার অভিযোগ প্রমাণিত হয়েছে।

          তার এরূপ অপরাধমূলক কার্যক্রম পৌরপরিষদসহ জনস্বার্থের পরিপন্থী বিবেচনায় স্থানীয় সরকার (পৌরসভা) আইন, ২০০৯ এর ধারা ৩১(১) অনুযায়ী তাকে কাউন্সিলর পদ থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয়।

          একইসময় কারণ দর্শানো নোটিশে কেন চূড়ান্তভাবে তার পদ থেকে অপসারণ করা হবে না তার জবাব পত্র প্রাপ্তির ১০ কার্যদিবসের মধ্যে সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসকের মাধ্যমে স্থানীয় সরকার বিভাগে প্রেরণের জন্য অনুরোধ করা হয়।

#

হাসান/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২১৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ১৭৮২

যুবসমাজের প্রতি স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব পালনের আহ্বান শিল্প প্রতিমন্ত্রীর

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          করোনার সংক্রমণ প্রতিরোধে জীবাণুনাশক ছিটিয়ে পরিষ্কার-পরিচ্ছন্ন রাখতে যুবসমাজের প্রতি স্বেচ্ছাসেবকের দায়িত্ব পালনের আহ্বান জানিয়েছেন শিল্প প্রতিমন্ত্রী কামাল আহমেদ মজুমদার। তিনি বলেন, পরিষ্কার পরিচ্ছন্নতা শুধু করোনা ভাইরাসের সংক্রমণ হতে রক্ষা করবে না, বরং এটি ডেঙ্গুর বিস্তার প্রতিরোধে কার্যকর ভূমিকা রাখবে।

          শিল্প প্রতিমন্ত্রী আজ রাজধানীর মিরপুর ১১ নম্বর এলাকায় নিজ উদ্যোগে জীবাণুনাশক পানি ছিটানো কার্যক্রম পরিচালনাকালে একথা বলেন।

          করোনা পরিস্থিতি হতে উত্তরণে জনসচেতনতার কোন বিকল্প নেই উল্লেখ করে মন্ত্রী বলেন, সকলকে দায়িত্বশীল আচরণ করতে হবে। প্রতিমন্ত্রী এ সময় স্বাস্থ্যবিধি ও সামাজিক দূরত্ব পরিপূর্ণভাবে অনুসরণ করার জন্য সকলের প্রতি আহ্বান জানান।

          মন্ত্রী আরো বলেন, প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের সংক্রমণ প্রতিরোধে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা ৩১ দফা নির্দেশনা প্রদান করেছেন। এসকল নির্দেশনার আলোকে সরকার কাজ করছে। ৩১ দফা নির্দেশনা অনুসরণ করে সকলে যার যার দায়িত্ব পালন করলে করোনা পরিস্থিতি হতে দ্রুত উত্তরণ পাওয়া যাবে বলে শিল্প প্রতিমন্ত্রী আশা প্রকাশ করেন।

          স্থানীয় গণ্যমান্য ব্যক্তিবর্গ ও রাজনৈতিক নেতৃবৃন্দ এই জীবাণুনাশক পানি ছিটানো কার্যক্রমে অংশগ্রহণ করেন।

          পরে শিল্প প্রতিমন্ত্রী মিরপুরের পশ্চিম সেনপাড়ায় বাইতুল আতিক জামে মসজিদ প্রাঙ্গণে ইফতার বিতরণ করেন।

#

মাসুম/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২১০০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                                      নম্বর : ১৭৮১

ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান সম্পর্কিত বিশেষ প্রতিবেদন সমুদ্রবন্দরসমূহে ৪ নম¦র স্থানীয় হুঁশিয়ারী সংকেত

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

            দক্ষিণ-পূর্ব বঙ্গোপসাগর ও তৎসংলগ্ন দক্ষিণ-পশ্চিম বঙ্গোপসাগর এলাকায় অবস্থানরত ঘূর্ণিঝড় ’আম্পান’ কার্যত একই এলাকায় (১১৮০ উত্তর অক্ষাংশ এবং ৮৬০০ পূর্ব দ্রাঘিমাংশ) স্থির থেকে প্রবল ঘূর্ণিঝড়ে পরিণত হয়েছে। এটি আজ বিকাল ৩ টায় চট্টগ্রাম সমুদ্রবন্দর থেকে ১৩২৫ কিঃ মিঃ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিমে, কক্সবাজার সমুদ্রবন্দর থেকে ১২৬০ কিঃ মিঃ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিমে, মংলা সমুদ্রবন্দর থেকে ১২৫০ কিঃ মিঃ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিমে এবং পায়রা সমুদ্র বন্দর থেকে ১২৩০ কিঃ মিঃ দক্ষিণ/দক্ষিণ-পশ্চিমে অবস্থান করছিল। এটি আরও ঘণীভূত হয়ে উত্তর/ উত্তর-পশ্চিম দিকে অগ্রসর হতে পারে।

            ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন সেন্টার (এনডিআরসিসি) থেকে প্রেরিত এ তথ্য জানা যায়।

            প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের ৬৪ কিঃ মিঃ এর মধ্যে বাতাসের একটানা সর্বোচ্চ গতিবেগ ঘণ্টায় ৮৯ কিঃ মিঃ যা দমকা অথবা ঝড়ো হাওয়ার আকারে ১১৭ কিঃ মিঃ পর্যন্ত বৃদ্ধি পাচ্ছে। প্রবল ঘূর্ণিঝড় কেন্দ্রের নিকটবর্তী এলাকায় সাগর খুবই বিক্ষুব্ধ রয়েছে।

            চট্টগ্রাম, কক্সবাজার, মংলা ও পায়রা সমুদ্র বন্দরসমূহকে ০৪ (চার) নম্বর (পুনঃ) ০৪ (চার) নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারী সংকেত দেখিয়ে যেতে বলা হয়েছে।

            উত্তর বঙ্গোপসাগর ও গভীর সাগরে অবস্থানরত সকল মাছ ধরার নৌকা ও ট্রলারকে উপকূলের কাছাকাছি থেকে সাবধানে চলাচল করতে বলা হয়েছে যাতে স্বল্প সময়ের নোটিশে নিরাপদ আশ্রয়ে যেতে পারে। সেই সাথে তাদেরকে গভীর সাগরে বিচরণ না করতে বলা হয়েছে।

            ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এর কারণে বাংলাদেশের সমূদ্র বন্দরসমূহের জন্য ০৪ (চার) নম্বর স্থানীয় হুঁশিয়ারী সংকেত প্রদান করায় আজ ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) বাস্তবায়ন বোর্ডের এক সভা অনুষ্ঠিত হয়। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা. মোঃ এনামুর রহমান এবং সিনিয়র সচিব জনাব মোঃ শাহ্ কামাল ভার্চুয়াল সভার মাধ্যমে উপকুলীয় বিভাগসমূহের বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশাসকগণের সাথে আলোচনায় অংশগ্রহণ করেন। প্রতিমন্ত্রী এবং সিনিয়র সচিব ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ মোকাবিলায় বিভাগীয় কমিশনার ও জেলা প্রশসকগণকে প্রয়োজনীয় নির্দেশনা প্রদান করেন।

            ঘূর্ণিঝড় ‘আম্পান’ এর কারণে পূর্ব প্রস্তুতি গ্রহণের লক্ষ্যে গতকাল এনডিআরসিসিতে দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের প্রতিমন্ত্রীর সভাপতিত্বে একটি প্রস্তুতি সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে। উক্ত সভায় মন্ত্রণালয়ের ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তাবৃন্দ, দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা অধিদপ্তরের মহাপরিচালক, ঘূর্ণিঝড় প্রস্তুতি কর্মসূচি (সিপিপি) এর পরিচালক-সহ সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাগণ উপস্থিত ছিলেন। সভায় ঘূর্ণিঝড় মোকাবিলায় সম্ভাব্য কার্যক্রম সম্পর্কে আলোচনা হয়।

            ‘বাংলাদেশ আবহাওয়া অধিদপ্তর কর্তৃক ঘূর্ণিঝড়ের বিজ্ঞপ্তি জারীর প্রেক্ষিতে ‘দুর্যোগ সংক্রান্ত স্থায়ী আদেশাবলী’ অনুসরণে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণের জন্য সংশ্লিষ্ট জেলা প্রশাসক অনুরোধ করা হয়েছে।

#

তাসমীন/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২০৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ১৭৮০

বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় অবৈধ মৎস্য আহরণ যেকোন মূল্যে বন্ধ করতে হবে

                                                  -মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

            মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ ম রেজাউল করিম বলেছেন, ‘বাংলাদেশের সমুদ্রসীমায় ২০ মে থেকে ২৩ জুলাই পর্যন্ত ৬৫ দিন সকল প্রকার নৌযান কর্তৃক সকল প্রকার মৎস্য ও ক্রাস্টাশিয়ান্স (চিংড়ি, লবস্টার, কাটল ফিস প্রভৃতি) আহরণ নিষিদ্ধ। এ সময়  বিদেশি বা দেশি মৎস্য আহরণকারীদের অবৈধ মৎস্য আহরণ যেকোন মূল্যে বন্ধ করতে হবে। দেশের অর্থনীতির জন্য, মানুষের পুষ্টি বৃদ্ধির জন্য এটা করতে হবে।’

            আজ ঢাকায় সচিবালয়ে মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রণালয়ের সম্মেলন কক্ষে সমুদ্রে ৬৫দিন মৎস্য আহরণ নিষিদ্ধকাল কার্যকরভাবে বাস্তবায়নে আয়োজিত অনলাইন সভায় সভাপতির বক্তব্যে মন্ত্রী এসব কথা জানান।

            মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ সচিব রওনক মাহমুদ, অতিরিক্ত সচিব শ্যামল চন্দ্র কর্মকার, যুগ্ম সচিব মোঃ তৌফিকুল আরিফ সভায় উপস্থিত ছিলেন এবং বাংলাদেশ নৌ বাহিনীর প্রতিনিধি, সশস্ত্র বাহিনী বিভাগের প্রতিনিধি, বাংলাদেশ পুলিশ ও বাংলাদেশ কোস্টগার্ডের প্রতিনিধি, নৌ-পুলিশের ডিআইজি, মৎস্য অধিদপ্তরের মহাপরিচালক কাজী শামস্ আফরোজ, বরিশাল, চট্টগ্রাম ও খুলনার বিভাগীয় কমিশনারগণ, সামুদ্রিক মৎস্য দপ্তর, চট্টগ্রাম-এর পরিচালক, বরিশাল, ঝালকাঠি, পিরোজপুর, বরগুনা, ভোলা, পটুয়াখালী, খুলনা, সাতক্ষীরা, বাগেরহাট, চট্টগ্রাম ও কক্সবাজার জেলার জেলা প্রশাসকগণ ও জেলা মৎস্য কর্মকর্তাগণ এবং মেরিন হোয়াইট ফিশ ট্রলার ওনার অ্যাসোসিয়েশন, সামুদ্রিক মৎস্য আহরণকারী বোট মালিক সমিতি, বাংলাদেশ মেরিন ফিশারিজ অ্যাসোসিয়েশন, জাতীয় মৎস্যজীবী সমিতির প্রতিনিধিগণ সভায় অনলাইনে সংযুক্ত ছিলেন।

            মন্ত্রী বলেন, ‘পুষ্টির অভাব দূর করতে হলে মাছের চাষ বৃদ্ধি করা খুবই দরকার। প্রধানমন্ত্রী সুনির্দিষ্ট নির্দেশনা দিয়েছেন, মাছের যে স্বয়ংসম্পূর্ণতা আমরা অর্জন করেছি, এর পরিসরকে আরো বাড়াতে হবে। যাতে বিদেশে মাছ রপ্তানি করে গুরুত্বপূর্ণ বৈদেশিক মুদ্রা অর্জন করা যায়। ধানের বাম্পার ফলনের পাশাপাশি মাছ, মাংস, দুধ, ডিমের ক্ষেত্রকে সমৃদ্ধ করতে না পারলে করোনা পরিস্থিতি স্বাভাবিক হলেও সংকট থেকে যেতে পারে। প্রধানমন্ত্রী এ বিষয়ে অত্যন্ত গুরুত্ব দিয়ে প্রণোদনা প্যাকেজ ঘোষণা করেছেন, যেনো কোনভাবেই উৎপাদন প্রক্রিয়া ব্যাহত না হয়।’

            মন্ত্রী আরো বলেন, ‘সমুদ্রে মাছ ধরা নিষিদ্ধকালীন মৎস্য আহরণে বিরত থাকা জেলেদের আমরা মাসিক ৪০ কেজি হারে খাদ্য সহায়তা দিচ্ছি। করোনা পরিস্থিতিতে এটা বণ্টন করা জটিল কাজ। এ কাজে সম্পৃক্ত জেলা প্রশাসক, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা, ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যানসহ সকলকে ধন্যবাদ জানাচ্ছি। মৎস্যজীবীদের খাদ্য সহায়তা কর্মসূচির খাতটি অনেক উন্নতি ঘটেছে। খাদ্য সহায়তায় পরিবহন খরচ ছিলো না। পরিবহন খরচ সরকারের পক্ষ থেকে পর্যায়ক্রমে পৌঁছানো হবে।’

            অনলাইন সভায় সংযুক্তদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘মাছকে বেড়ে উঠতে দেয়া এবং মাছকে অবৈধভাবে আহরণ করতে না দেয়ার সরকারি সিদ্ধান্ত আমরা কঠোরভাবে বাস্তবায়ন করতে চাই। মন্ত্রণালয়ের পক্ষ থেকে সুনির্দিষ্ট ও পরিষ্কারভাবে বলবো, আপনারা কঠোর অবস্থান নেবেন। কাউকে আইনের বাইরে কোন কিছু করতে দেবেন না। সেক্ষেত্রে যেকোন চাপ আমরা মোকাবিলা করবো।’

            সরকারি সিদ্ধান্ত বাস্তবায়নে কোন গাফিলতি মানা হবে না উল্লেখ করে সংশ্লিষ্ট কর্মকর্তাদের উদ্দেশ্যে মন্ত্রী বলেন, ‘দায়িত্ব পালনে কোন শৈথিল্য দেখা গেলে রাষ্ট্রের নিয়ম অনুসরণের স্বার্থে সেটাকে কঠোরভাবে গ্রহণ করা হবে। কাউকে ছাড় দেয়া হবে না।’

#

ইফতেখার/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/২০০০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                   নম্বর : ১৭৭৯

নতুন পাঁচ হাজার টেকনোলজিস্ট নিয়োগ দেয়া হবে

                              -স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে):

          স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রী জাহিদ মালেক বলেছেন, মাত্র ১০ দিনের মধ্যে ২ হাজার চিকিৎসক ও ৫ হাজার নার্স নিয়োগ দেয়া হয়েছে। চিকিৎসা খাতকে আরো শক্তিশালী করতে আরো নতুন অন্তত ৫ হাজার মেডিকেল টেকনোলজিস্ট নিয়োগের কাজ চলমান রয়েছে। খুব দ্রুতই এই টেকনোলজিস্টদের নিয়োগ দেয়া হবে।

          আজ রাজধানীর বসুন্ধরা আন্তর্জাতিক কনভেনশন সেন্টারে করোনা মোকাবিলায় ২ হাজার বেডের অস্থায়ী হাসপাতাল কেন্দ্র উদ্বোধনকালে এসব কথা বলেন।

          বসুন্ধরা করোনা ডেডিকেটেড অস্থায়ী হাসপাতালটিকে বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কভিড হাসপাতাল উল্লেখ করে স্বাস্থ্যমন্ত্রী আরো বলেন, মাত্র ২০ দিনের মধ্যে এই হাসপাতালটি (বসুন্ধরা অস্থায়ী কভিড হাসপাতাল) সরকার প্রস্তুত করতে সক্ষম হয়েছে। এটি বিশ্বের দ্বিতীয় বৃহত্তম কভিড ডেডিকেটেড হাসপাতাল। এখানে অত্যাধুনিক মোট ২ হাজার ১৩টি আইসোলেটেড শয্যা রয়েছে যার মধ্যে ৭১ টির সাথে অক্সিজেন সিলিন্ডার যুক্ত করা রয়েছে। এছাড়া এখানে আরো অন্তত ৪০০ টি পোর্টেবল অক্সিজেন সিলিন্ডার রয়েছে। আইসিইউ ব্যবস্থা-সহ এই হাসপাতালটি উন্নত দেশের কভিড অস্থায়ী হাসপাতালের থেকে কোন অংশেই পিছিয়ে নেই।

          একই সাথে, করোনা মোকাবিলায় দেশে এখন প্লাজমা থেরাপির কাজ চলমান রয়েছে। পাশাপাশি আমেরিকার উৎপাদিত ঔষধ রেমডেসিভির এখন দেশেই তৈরি হচ্ছে এবং সরকারের নিকট এই ঔষধ মজুত করা হচ্ছে বলেও জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী। এছাড়া নন কোভিড হাসপাতালে সাধারণ রোগীদের বাধ্যতামূলক চিকিৎসার জন্য সকল সরকারি ও বেসরকারি হাসপাতালকে চিঠি দেয়া হয়েছে বলেও জানান মন্ত্রী। এক্ষেত্রে মানুষ যেন করোনার লক্ষ¥ণ থাকলে তার তথ্য গোপন না করেন সে ব্যাপারেও স্বাস্থ্যমন্ত্রী সকলের নিকট অনুরোধ করেন।

          লক ডাউন শিথিল করা প্রসঙ্গে স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক জানান, সরকার প্রথম থেকেই একটি সুদূরপ্রসারি পরিকল্পনায় কাজ করেছে। যখন লক ডাউন জরুরি ছিল তখনই লক ডাউন করা হয়েছে, যখন শিথিল করা প্রয়োজন তখন স্বাস্থ্যবিধি বজায় রাখা সাপেক্ষে শিথিল করা হয়েছে। সবদিক বিবেচনা করে সরকার যা কিছু করছে তা ভেবেচিন্তেই করছে। মানুষ স্বাস্থ্যবিধি মেনে চলতে পারলে করোনা মোকাবিলার পাশাপাশি দেশ অর্থনৈতিকভাবে বড় ধরনের ক্ষতি থেকে রেহাই পাবে। এক্ষেত্রে প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনাকে তার সময়োপযোগী সিদ্ধান্তগুলো গ্রহণের জন্য ধন্যবাদ ও কৃতজ্ঞতা জানান স্বাস্থ্যমন্ত্রী।

          স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের সচিব আসাদুল ইসলামের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে আরো উপস্থিত ছিলেন বসুন্ধরা গ্রুপের ব্যাবস্থাপনা পরিচালক সায়েম সোবহান,স্বাস্থ্যসেবা বিভাগের অতিরিক্ত সচিব (প্রশাসন) হাবিবুর রহমান, অতিরিক্ত সচিব (হাসপাতাল) সিরাজুল ইসলাম, দৈনিক বাংলাদেশ প্রতিদিন পত্রিকার সম্পাদক নঈম নিজামসহ অন্যান্য কর্মকর্তা।

#

মাইদুল/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/১৯৪৫ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                  নম্বর : ১৭৭৮

কোভিড-১৯ (করোনা ভাইরাস) সংক্রান্ত সর্বশেষ প্রতিবেদন

ঢাকা,  ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          ন্যাশনাল ডিজাস্টার রেসপন্স কো-অর্ডিনেশন সেন্টার (এনডিআরসিসি) থেকে প্রাপ্ত তথ্য অনুযায়ী করোনা ভাইরাস পরিস্থিতি মোকাবিলার জন্য ৬৪ জেলায় আজ পর্যন্ত ১ লাখ ৬২ হাজার ৮১৭ মেট্রিক টন চাল বরাদ্দ করা হয়েছে। এছাড়া শিশু খাদ্য-সহ অন্যান্য সামগ্রী ক্রয়ের জন্য ৯১ কোটি ৪৭ লাখ ৭২ হাজার ২৬৪ টাকা বরাদ্দ করা হয়েছে। দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ মন্ত্রণালয়ের মাধ্যমে বরাদ্দকৃত এ সাহায্য দেশের সকল জেলা ও উপজেলা প্রশাসনের মাধ্যমে বিতরণ করা হচ্ছে । ‌

          রোগতত্ত্ব, রোগ নিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)-এর তথ্যানুযায়ী আজ দেশে নতুন করে আরো ১ হাজার ২৭৩ জনের শরীরে করোনা সংক্রমণ ধরা পড়েছে। এ নিয়ে বাংলাদেশে এখন পর্যন্ত কোভিড-১৯ আক্রান্ত রোগীর সংখ্যা ২২ হাজার ২৬৮ জন। গত ২৪ ঘণ্টায় ১৪ জন-সহ এ পর্যন্ত ৩২৮ জন এ রোগে মৃত্যুবরণ করেছেন। গত ২৪ ঘণ্টায় ৮ হাজার ১১৪টি নমুনা পরীক্ষা করা হয়েছে।

          এখন পর্যন্ত সর্বমোট ২২ লাখ ১৭ হাজার ৩৩৯টি পিপিই সংগ্রহ করা হয়েছে, তার মধ্যে গতকাল পর্যন্ত  মোট বিতরণ করা হয়েছে ১৮ লাখ ৭২ হাজার ৬৬টি এবং মজুত আছে ৩ লাখ ৪ হাজার ২৭৩টি।

          সারা দেশে জেলা ও উপজেলা পর্যায়ে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের জন্য প্রস্তুত করা হয়েছে ৬১৭টি প্রতিষ্ঠান এবং এর মাধ্যমে তাৎক্ষণিকভাবে প্রাতিষ্ঠানিক কোয়ারেন্টাইনের সেবা প্রদান করা যাবে ৩১ হাজার ১৬৫ জনকে।

        আশকোনা হজ ক্যাম্পে বাংলাদেশ সেনাবাহিনীর ব্যবস্থাপনায় ৪০০ জন এবং BRAC Learning Center এ ৬০০ জন, উত্তরা দিয়াবাড়ীতে ১২০০ জন, সাভারের BPATC তে ৩০০ জন এবং যশোর গাজীর দরগা মাদ্রাসায় ৫৫৩ জনকে কোয়ারেন্টাইনে রাখার ব্যবস্থা করা হয়েছে। উল্লেখ্য, বর্তমানে আশকোনা হজ ক্যাম্পে মোট ১০১ জন, BRAC Learning Center এ ৩ জন এবং যশোর গাজীর দরগা মাদ্রাসায় ২৬১ জন কোয়ারেন্টাইনে রয়েছেন ।

#

Zvmgxb/cvkv/mÄxe/Rqbyj/2020/1900NÈv

তথ্যবিবরণী                                                                                         নম্বর : ১৭৭৭

ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবিলায় সরকারের প্রস্তুতি রয়েছে

                                        - ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী ডা: মোঃ এনামুর রহমান বলেছেন, ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবিলায় সরকারের প্রস্তুতি রয়েছে। উপকূলীয় জেলাসমূহের সাইক্লোন শেল্টারসমূহ প্রস্তুত রাখার জন্য ইতিমধ্যে জেলা প্রশাসকগণকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

          প্রতিমন্ত্রী আজ ঢাকায় তাঁর মন্ত্রণালয়ে সভাকক্ষে আয়োজিত ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবিলায় সরকারের প্রস্তুতি বিষয়ে সাংবাদিকদের ব্রিফিংয়ে এসব কথা বলেন। এ সময় মন্ত্রণালয়ের সিনিয়র সচিব মোঃ শাহ কামাল উপস্থিত ছিলেন।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, আবহাওয়া অধিদপ্তরের পর্যালোচনা অনুযায়ী যদি ঘূর্ণিঝড় আম্পান তার গতি ও দিক পরিবর্তন না করে তাহলে আগামী ১৯ মে দিবাগত রাতে বাংলাদেশের উপকূলীয় জেলাসমূহ আঘাত হানতে পারে। উপস্থিত সাংবাদিকের প্রশ্নের জবাবে প্রতিমন্ত্রী বলেন, সামাজিক দূরত্ব বজায় রেখে আশ্রয় কেন্দ্রসমূহে যেন মানুষজনকে আশ্রয়ের ব্যবস্থা করা যায় সে লক্ষ্যে এবার আশ্রয়কেন্দ্রের সংখ্যা বাড়ানোর জন্য প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা নিতে উপকূলীয় জেলাসমূহের জেলা প্রশাসকগণকে ইতিমধ্যে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

          প্রতিমন্ত্রী বলেন, আশ্রয় কেন্দ্রে অবস্থানকালে যাতে খাবারের অভাব না হয় সেজন্য প্রয়োজনীয় শুকনো খাবার এবং গো-খাদ্যের ব্যবস্থা নেয়া হয়েছে। জেলা প্রশাসনের চাহিদা অনুযায়ী প্রয়োজনে আরো বরাদ্দ দেয়া হবে। দুর্যোগকালীন বিদ্যুৎ না থাকলে তার বিকল্প ব্যবস্থা করে রাখার জন্য জেলা প্রশাসনসমূহকে নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।

          এর পূর্বে প্রতিমন্ত্রী ঘূর্ণিঝড় আম্পান মোকাবিলায় পূর্বপ্রস্তুতি ও করণীয় বিষয়ে মন্ত্রিপরিষদ সচিব, প্রধানমন্ত্রীর মুখ্য সচিব, সংশ্লিষ্ট মন্ত্রণালয়সমূহের সচিব ও সিনিয়র সচিব এবং উপকূলীয় জেলাসমূহের জেলা প্রশাসকদের সাথে অনলাইনে সভা করেন।

#

সেলিম/পাশা/সঞ্জীব/জয়নুল/২০২০/১৮৩০ঘণ্টা

তথ্যবিবরণী                                                                                                    নম্বর : ১৭৭৬

শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন

                                                                         -তথ্যমন্ত্রী

ঢাকা, ৩ জ্যৈষ্ঠ (১৭ মে) :

          শেখ হাসিনার ৪০তম স্বদেশ প্রত্যাবর্তন দিবস উপলক্ষে তথ্যমন্ত্রী ও আওয়ামী লীগের যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ড. হাছান মাহ্মুদ বলেছেন, শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন শুধু ব্যক্তি বঙ্গবন্ধুকন্যার প্রত্যাবর্তন নয়, গণতন্ত্র ও মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অগ্নিবীণার প্রত্যাবর্তন।

          আজ বাংলাদেশ সচিবালয়ে নিজ দপ্তরে সংক্ষিপ্ত প্রেস ব্রিফিংয়ে মন্ত্রী একথা বলেন। এ সময় ব্যক্তি শেখ হাসিনাকে পৃথিবীর সবচাইতে সৎ ও কর্মঠ রাষ্ট্রনায়কদের অন্যতম হিসেবে বর্ণনা করে ড. হাছান বলেন, মাদার অভ হিউম্যানিটি, চ্যাম্পিয়ন অভ্ দ্য আর্থ হিসেবে অভিষিক্ত শেখ হাসিনা শুধু বাংলাদেশের রাষ্ট্রনায়ক নন, শুধু বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি নন, তিনি আজ বিশ্বের সামনে একটি অনুকরণীয় নেতৃত্বের উদাহরণ।

          ড. হাছান বলেন, ‘১৯৮১ সালের এই দিন ১৭ মে বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা বাংলাদেশ আওয়ামী লীগের সভাপতি হিসেবে বাংলাদেশে পদার্পণ করেছিলেন। তখন জিয়াউর রহমান গণতন্ত্রকে বাক্সবন্দি করে মার্শাল ডেমোক্রেসি চালু করেছিল, মুক্তিযুদ্ধের চেতনাকে নির্বাসিত করে দেশে পাকিস্তানি ভাবধারা ফিরিয়ে এনেছিল। তাই ১৭ মে ১৯৮১ সালে শুধুমাত্র ব্যক্তি বঙ্গবন্ধুকন্যা শেখ হাসিনার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন ছিল না, এদিন ছিল গণতন্ত্র এবং মুক্তিযুদ্ধের চেতনার অগ্নিবীণার স্বদেশ প্রত্যাবর্তন।’

          ইতিহাসের দিকে তাকিয়ে তথ্যম

2020-05-18-09-29-301da8d9e26fd51b28ee6b0920b6b86a.docx 2020-05-18-09-29-301da8d9e26fd51b28ee6b0920b6b86a.docx

Share with :

Facebook Facebook